ঢাকা শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২০, ১১ মাঘ ১৪২৭
২২ °সে

রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে বেহাল

রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে বেহাল
রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ) : পৌর পার্কের বর্তমান অবস্থা —ইত্তেফাক

রায়গঞ্জ পৌর পার্ক

রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা

রায়গঞ্জ পৌর এলাকার একমাত্র বিনোদন কেন্দ্র ‘ইসহাক হোসেন তালুকদার পৌর পার্কটি’ এখন বেহাল অবস্থায় রয়েছে। দীর্ঘদিন রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে পার্কটি এখন পরিত্যক্ত ও জঙ্গলাকীর্ণ।

জানা গেছে, সিরাজগঞ্জ-৩ আসনের প্রাক্তন এমপি প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা গাজী ইসহাক হোসেন তালুকদার পার্কটি প্রতিষ্ঠা করেন। ২০১২ সালের ২১ জানুয়ারি পৌরসভার ধানগড়া এলাকায় ফুলজোড় নদীতীরে মনোরম পরিবেশে প্রায় ৪৬ শতক জমির ওপর পার্কটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। এলাকাবাসীর দাবির প্রেক্ষিতে এর নামকরণ করা হয় ইসহাক হোসেন তালুকদার পৌর পার্ক। প্রাথমিক পর্যায়ে বিনোদন পিপাসুদের বসার জন্য পাঁচটি বেঞ্চ ও তিনটি ছাতা স্থাপন করা হয়। প্রতিষ্ঠার পর দীর্ঘদিন সংস্কার, পরিচর্যা ও রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে ক্রমশ দৈন্যদশায় পতিত হয় পার্কটি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পার্কের একটি বেঞ্চ ভাঙা ও একটি ছাতা উধাও। পার্কজুড়ে গজিয়ে উঠেছে নানা রকমের আগাছা। স্থানীয়রা জানান, রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে এ অবস্থা হয়েছে। দিনেরবেলায়ও এখন আর সেখানে কেউ যায় না। সন্ধ্যা হলেই এখানে মাদকাসক্তদের আড্ডা বসে। এ কারণে ঐ পথে সন্ধ্যার পর কেউ চলাচল করে না।

প্রথমদিকে নিয়মিত যারা পার্কে আসতেন তাদের মধ্যে পৌর শহরের রণতিথা মহল্লার এমন একজন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব হাসানুজ্জামান সুলতান বলেন, নদীর ধারে জায়গাটি বড়ই চমত্কার। এখানে এক দণ্ড বসলে মনপ্রাণ জুড়িয়ে যেত। এখন সেখানে আর বসার অবস্থা নেই।

পার্কের পার্শ্ববর্তী রায়গঞ্জ টেকনিক্যাল অ্যান্ড বি এম কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল মালেক সরকার বলেন, আশা করেছিলাম এটি সবার জন্য বিনোদনের স্থান হবে। কিন্তু অযত্ন-অবহেলায় পার্কটি এখন বেহাল। তিনি আরো বলেন—শুধু পৌর এলাকা কেন, রায়গঞ্জ উপজেলায় আর কোনো পার্ক নেই। তাই পার্কটির এরিয়া আরো সম্প্রসারিত করে এর উন্নয়ন কাজের পাশাপাশি বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ এবং রক্ষণাবেক্ষণের জন্য একজন কেয়ারটেকার নিয়োগ করা প্রয়োজন।

রায়গঞ্জ পৌরসভার মেয়র আব্দুল্লাহ আল-পাঠান বলেন, পার্কের জায়গাটি এখনো সরকারি খাস সম্পত্তি। তাই এ ব্যাপারে উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নিতে হবে।

রায়গঞ্জ ইউএনও মো. শামীমুর রহমান বলেন—পৌর মেয়র উদ্যোগী হলে পার্কটিকে গড়ে তোলার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা যেতে পারে। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ইমরুল হোসেন তালুকদার বলেন—এব্যাপারে তিনি সংশ্লিষ্ট ঊর্ধতন কর্তৃপক্ষ বরাবরে যোগাযোগ করবেন।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
icmab
facebook-recent-activity
prayer-time
২৪ জানুয়ারি, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন