ঢাকা শনিবার, ২৫ মে ২০১৯, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
২৬ °সে


মোহনগঞ্জ-গাগলাজুর জিসি সড়ক যেন মরণফাঁদ!

একযুগ রাস্তাটি ব্যবহারের ফলে অনেকাংশে চলাচলের অযোগ্য হওয়ায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) এর সংস্কারের উদ্যোগ নেয়। দুটি প্যাকেজে টেন্ডারের মাধ্যমে ঠিকাদার নিয়োগ করা হয়।
মোহনগঞ্জ-গাগলাজুর জিসি সড়ক যেন মরণফাঁদ!
মোহনগঞ্জ (নেত্রকোনা): উপজেলার হাওরের মোহনগঞ্জ গাগলাজুর জিসি সড়কের বর্তমান অবস্থা —ইত্তেফাক

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ উপজেলার হাওরের মোহনগঞ্জ জিসি গাগলাজুর জিসি সড়কটি ভাঙতে ভাঙতে অস্তিত্ব সংকটে পড়েছে। বড় বড় অসংখ্য গর্তে ক্রমশ মরণফাঁদে পরিণত হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, সড়কটির অনেক স্থানে আরসিসি ঢালাইয়ে পাথর বালি সরে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ঢালাই করা কংক্রিট থেকে বালু, পাথর ও রড বেরিয়ে পড়েছে। বর্তমানে ছোট ছোট যানবাহনও গর্তে আটকে যাচ্ছে।

মোহনগঞ্জের তেঁথুলিয়া থেকে গাগলাজুর পর্যন্ত ৮ কিলোমিটার মূল ডুবো সড়কটি নির্মাণ হয় ২০০৪ সালে। একযুগ রাস্তাটি ব্যবহারের ফলে অনেকাংশে চলাচলের অযোগ্য হওয়ায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) এর সংস্কারের উদ্যোগ নেয়। দুটি প্যাকেজে টেন্ডারের মাধ্যমে ঠিকাদার নিয়োগ করা হয়। ২০১৭ সালের আগস্ট মাসের মধ্যে কাজ সমাপ্ত করার জন্য কার্যাদেশ প্রদান করা হয়। ঐ বছর কিছু কাজ করার পর সড়কটি বর্ষার পানিতে তলিয়ে যায়। ঠিকাদাররা সড়কের কাজ কার্যাদেশ সময়সীমার মধ্যে সম্পন্ন করতে ব্যর্থ হন। পুনরায় ২০১৮ সালে পানি সরে যাওয়ার পর বাকি কাজ শুরু হয়। কাজ সমাপ্তির পর যান চলাচলের পর অনেক স্থানে ভেঙে যায়। কাজটি চলমান থাকায় চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে সড়কের ক্ষতিগ্রস্ত অংশ মেরামত করা হয়। যান চলাচল শুরু হলে মেরামতকৃত স্থান আগের মতোই ভেঙে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়।

গাগলাজুর ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হাবিব অভিযোগ করে বলেন, বন্যা ব্যবস্থাপনা ও জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় সড়কটি সংস্কারের জন্য সাড়ে ৩ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়। কিন্তু সংস্কার হলেও জনগুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটি ভেঙে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় হাওরবাসীর দুর্ভোগ এখন চরমে।

গত বৃহস্পতিবার চলতি মাসের উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভায় এ প্রসঙ্গে উপজেলা প্রকৌশলী মো. মাহবুব আলম বলেন, কিছু ভারী যানবাহন চলাচলের কারণে সড়কটি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২৫ মে, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন