ঢাকা রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৯, ৮ বৈশাখ ১৪২৬
৩৫ °সে

সেনবাগে জমজমাট প্রচার-প্রচারণা লড়াই হবে হাড্ডাহাড্ডি

সেনবাগে জমজমাট প্রচার-প্রচারণা লড়াই হবে হাড্ডাহাড্ডি

চতুর্থ ধাপে আগামী ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলা পরিষদের নির্বাচন। এ নির্বাচনে ইতোমধ্যে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে- উপজেলা আওয়ামী লীগের তিনবারের নির্বাচিত সভাপতি আলহাজ্ব জাফর আহমেদ চৌধুরী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। পুরুষ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে একাধিক প্রার্থী থাকায় এখন এ দুই পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এসব প্রার্থীর প্রচার-প্রচারণা দেখে মনে হচ্ছে- নির্বাচনে লড়াই হবে হাড্ডাহাড্ডি।

এর মধ্যে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্য্যান পদে তিনজন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ছয়জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সব প্রার্থীই ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। তাই কেউ কাউকে ছাড় দিতে রাজি নয়। অতীতের কোনো নির্বাচনে বিশেষ করে নারী পদ নিয়ে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের এত বেশি প্রার্থী চোখে পড়েনি। এতে করে এলাকার ভোটাররাও চরম বিব্রত।

নির্বাচনকে সামনে রেখে সেনবাগ উপজেলার সর্বত্র পুরুষ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীদের বর্তমানে জমজমাট প্রচার-প্রচারণা চলছে। তাদের ব্যাপক প্রচার-প্রচারণায় মুখর হয়ে উঠেছে পুরো উপজেলা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে- উপজেলা পরিষদে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সেনবাগ পৌরসভার সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়র, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক নূরজ্জামান চৌধুরী (টিউবওয়েল প্রতীক), সেনবাগ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও ২০১৪ সালের নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী গোলাম কবির (তালা প্রতীক), সেনবাগ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ- সভাপতি, বীজবাগ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুর রব (চশমা প্রতীক)। এদের মধ্যে টিউবওয়েল ও তালা প্রতীকের মধ্যে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে এলাকার ভোটারদের সঙ্গে আলাপে আভাস পাওয়া যাচ্ছে।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন-উপজেলার কেশারপাড় ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা আবু বক্কর ছিদ্দিক ভূঁইয়ার স্ত্রী মরিয়াম সুলতানা (কলস প্রতীক), সাবেক ছাত্রলীগ নেত্রী ফেরদাউস আরা রুপালী চৌধুরী (হাঁস প্রতীক), চট্টগ্রাম মহানগর যুব মহিলা লীগ নেত্রী হাফিজা আক্তার বেবী (সেলাই মেশিন প্রতীক), জেলা যুব মহিলা লীগ নেত্রী ও সাবেক ইউপি সদস্য সাজেদা আক্তার শিল্পী (প্রজাপতি প্রতীক), উপজেলা যুব মহিলা লীগের আহ্বায়ক নাজমুন নাহার পারভীন (ফুটবল প্রতীক), উপজেলা যুব মহিলা লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক দিলরুবা আক্তার তুহিন ( পদ্ম ফুল প্রতীক)।

এসব প্রার্থীর মধ্যে পরিবার এবং স্বামীর রাজনীতি ব্যাপকভাবে এলাকায় ভোটারদের মাঝে কাজে লাগাচ্ছেন- মরিয়াম সুলতানা (কলস প্রতীক)। এ পদে অন্য সব প্রার্থীর প্রচার-প্রচারণা দেখে নির্বাচনে লড়াই যে হাড্ডাহাড্ডি হবে তা সহজে বুঝা যাচ্ছে। যে কেউ অল্প ভোটের ব্যবধানে জয়ী হতে পারেন বলে আভাস পাওয়া যাচ্ছে।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২১ এপ্রিল, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন