ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
৩৩ °সে


দশম শ্রেণির মাদ্রাসা ছাত্রের মিনি কম্পিউটার তৈরি

দশম শ্রেণির মাদ্রাসা ছাত্রের মিনি কম্পিউটার তৈরি
কম্পিউটার তৈরির কাজে ব্যস্ত কামরুজ্জামান আল হাদি

নেত্রকোনার ভাটি অঞ্চলের দশম শ্রেণির এক মাদ্রাসার ছাত্র মিনি কম্পিউটার তৈরি করে এলাকায় তাক লাগিয়ে দিয়েছে। এই ছাত্রের নাম কামরুজ্জামান আল হাদি। সে নেত্রকোনার মদন উপজেলার জাহাঙ্গীরপুর ফাজিল মাদ্রাসার দশম শ্রেণির ছাত্র। সে নিজের মেধা দিয়ে এই কাজটি করেছে বলে জানায়।

হাদি জানায়, তার বাসায় একটি কম্পিউটার আছে। এই কম্পিউটারে ত্রুটি দেখা দিলে সে নিজেই তা মেরামত করতো। এভাবেই তার কম্পিউটারের ক্ষুদ্র যন্ত্রাংশের উপর দখল এসে যায়। আর এ থেকেই তার মাথায় আসে কম্পিউটার তৈরির। যে কথা সে কাজ, লেগে যায় নিজের হাতে কম্পিউটার তৈরিতে। মিনি কম্পিউটার তৈরিতে মোবাইলের মনিটার ব্যবহার করে। পরে টিনের তৈরি সিপিইউর বক্স বানিয়ে তার ভিতর মোবাইলের মাদারবোর্ড ঢুকিয়ে মোবাইলের মাদারবোর্ড ব্যবহার করে সিপিইউর পূর্ণাঙ্গ অংশ তৈরি করে। এরপর হাতে লেখা অক্ষর প্রতিস্থাপন করে তৈরি করে কী-বোর্ড। পরিত্যক্ত সিডির চাকা ও টিনের আবরণের মধ্যে তার সংযুক্ত করে তৈরি করে মাউস। টিনের তৈরি সিপিইউ থেকে একটি সাউন্ডবক্সের সংযোগ দেওয়া হয়। মোবাইলে ব্যবহূত ব্যাটারির মাধ্যমেই এই কম্পিউটার চালানোর কাজ করে। এভাবেই চলে মিনি কম্পিউটারের অডিও, ভিডিও, এমএস ওয়ার্ড ও ইন্টারনেট প্রোগ্রাম। তার এই ছোটো আকারের এ কম্পিউটার তৈরিতে খরচ হয়েছে প্রায় ২০০০ টাকা। ৬ মাস ধরে কাজ করে নিজেই তৈরি করেছে এ কম্পিউটার।

জাহাঙ্গীরপুর ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মো. মঞ্জুরুল হক খান বলেন, মদন উপজেলা থেকে জেলা পর্যায়ে বিজ্ঞান মেলায় অংশগ্রহণ করে হাদি সুনাম কুড়িয়েছে। নিজের অদম্য ইচ্ছা আর মনোবল এবং বাবার অনুপ্রেরণায় মিনি কম্পিউটার তৈরিতে তিনি সফল হন।

মদন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ওয়ালিউল হাসান জানান, হাদির মিনি কম্পিউটার তৈরির বিষয়টি তিনি জানেন। তাকে উপজেলা থেকে জেলা পর্যায়ের বিজ্ঞান মেলায় পাঠানোর ব্যবস্থাও করেছিলেন তিনি। তবে এই কম্পিউটারকে আরো সমৃদ্ধ করতে হলে তাকে সরকারের সহায়তা দেওয়া প্রয়োজন বলে তিনি মনে করেন এবং তার উপজেলা থেকেও তিনি সহায়তা করবেন বলে জানান।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২৩ মে, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন