ঢাকা মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬
৩৪ °সে


পদ্মার তলদেশ দিয়ে বিদ্যুত্ যাচ্ছে চরাঞ্চলে

পদ্মার তলদেশ দিয়ে বিদ্যুত্ যাচ্ছে চরাঞ্চলে

শরীয়তপুর প্রতিনিধি

পদ্মা ও মেঘনা নদীর বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চলে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে বিদ্যুত্ সংযোগ দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এর অংশ হিসেবে ১০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুত্ উপকেন্দ্র নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার নওপাড়ায় উপকেন্দ্রটি উদ্বোধন করেছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম। এ ছাড়াও পদ্মা নদী দিয়ে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে বিদ্যুত্ সঞ্চালন লাইনের কাজের উদ্বোধন করা হয়। দুর্গম চরাঞ্চলে সাবমেরিন ক্যাবলের ও সঞ্চালন লাইনের মাধ্যমে বিদ্যুত্ সংযোগ দেওয়া হবে শরীয়তপুরের চারটি ও চাঁদপুরের তিনটি ইউনিয়নের ২০ হাজার পরিবারকে।

শরীয়তপুর জেলার মাঝ দিয়ে পদ্মা ও মেঘনা নদী প্রবাহিত হয়েছে। নড়িয়া উপজেলার চরআত্রা, নওপাড়া, ভেদরগঞ্জ উপজেলার কাচিকাটা, জাজিরা উপজেলার কুন্ডেরচর ও চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার মোহনপির, ত্রালাপুর ও জহিরাবদ ইউনিয়ন পদ্মা মেঘনা নদীর দুর্গম চরে অবস্থিত।

পল্লীবিদ্যুত্ বোর্ডের সদস্য আব্দুস সালাম জানান, শরীয়তপুরের পদ্মা নদীর তীর হতে চরগুলোর দূরত্ব ছয় হতে সাত কিলোমিটার। ওই দূরত্ব দিয়ে শরীয়তপুর পল্লীবিদ্যুত্ সমিতি বিদ্যুত্ সংযোগ দিতে পারছিল না। শরীয়তপুর ২ আসনের সংসদ সদস্য এনামুল হক শামীমের উদ্যোগে মুন্সিগঞ্জ পল্লীবিদ্যুত্ সমিতি ওই চরাঞ্চলে বিদ্যুত্ সংযোগ দেওয়ার কাজ শুরু করে। মুন্সিগঞ্জ আর নড়িয়ার নওপাড়ার মাঝে পদ্মা নদীর দৈর্ঘ্য এক কিলোমিটার। ওই এক কিলোমিটার অংশ সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে পদ্মা নদীর তলদেশ দিয়ে বিদ্যুত্ সরবরাহের সিদ্ধান্ত হয়।

সাতটি ইউনিয়নের ২০ হাজার পরিবারকে বিদ্যুত্ সরবরাহ করার জন্য ২৩০ কিলোমিটার সঞ্চালন লাইন নির্মাণ কাজ চলছে। ওই এলাকায় বিদ্যুত্ সরবরাহ করার জন্য নওপাড়া এলাকায় ১০ মেঘাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুত্ উপকেন্দ্র নির্মাণ করা হচ্ছে। স্থানীয় মুন্সি পরিবার উপকেন্দ্র নির্মাণের জন্য দুই একর ২৫ শতাংশ জমি দান করেন।

বিদ্যুত্ উপকেন্দ্র নির্মাণ কাজ ও সাবমেরিন ক্যাবলের লাইন উদ্বোধনের পর উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম সুধী সমাবেশে বক্তব্য রাখেন। এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন, জেলা প্রশাসক কাজী আবু তাহের, পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অনল কুমার দে, মুন্সিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুত্ সমিতির মহাব্যবস্থাপক এএইচএম মোবারক আলী, নড়িয়া পৌরভার মেয়র শহীদুল ইসলাম বাবু রাড়ি, নওপাড়া ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান জাকির মুন্সি প্রমুখ।

উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম বলেন, আমার নির্বাচনী ওয়াদা ছিল দুর্গম চরাঞ্চলে বিদ্যুত্ সংযোগ দেওয়া। পদ্মা নদীতে বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চলে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে বিদ্যুত্ সংযোগ দেওয়া হচ্ছে। বিদ্যুত্ সংযোগ দেওয়ার কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। আগামী দুই মাসের মধ্য এখানে বিদ্যুত্ সংযোগ দেওয়া হবে। আগামী ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে সাতটি ইউনিয়নের সকল পরিবারকে বিদ্যুত্ সংযোগ দেওয়া হবে।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৬ জুলাই, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন