ঢাকা শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬
৩২ °সে


ধান নিয়ে বিপাকে কৃষক

বিভিন্ন স্থানে মানববন্ধন অবস্থান কর্মসূচি

বিভিন্ন স্থানে মানববন্ধন অবস্থান কর্মসূচি
গাইবান্ধা:রাস্তায় ধান ভর্তি বস্তা ফেলে কৃষকের অবস্থান কর্মসূচি পালন —ইত্তেফাক

গাইবান্ধা প্রতিনিধি

ইউনিয়ন পর্যায়ে ক্রয়কেন্দ্র খুলে লাভজনক দামে কৃষকের কাছ থেকে সরাসরি ধান কেনার দাবিতে শনিবার রাস্তায় ধান ভর্তি বস্তা ফেলে গাইবান্ধায় অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে দুই শতাধিক কৃষক।

গাইবান্ধা-সুন্দরগঞ্জ সড়কের গাইবান্ধা সদরের দারিয়াপুরে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির গাইবান্ধা সদর উপজেলা ও অঞ্চল কমিটির আয়োজনে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। উপজেলা কমিটির সভাপতি ছাদেকুল মাস্টারের সভাপতিত্বে ঘণ্টাব্যাপী অবস্থান কর্মসূচি চলাকালে বক্তব্য রাখেন কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য মিহির ঘোষ, জেলা সিপিবির সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল, সহ-সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মুরাদ জামান রব্বানী প্রমুখ।

ন্যায্যমূল্যের দাবিতে মানববন্ধন

নেত্রকোনা প্রতিনিধি জানান, নেত্রকোনায় ধানের ন্যায্যমূল্য দাবিতে শুক্রবার বিকালে হাতে ধান নিয়ে কৃষকরা মানববন্ধন করেছেন। ঐক্য ন্যাপ জেলা কমিটির উদ্যোগে জেলা শহরের মোক্তারপাড়া পুরাতন কালেক্টরেট ভবনের সামনের সড়কে এ মানববন্ধন করা হয়। এ সময় বিভিন্ন সামজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারাও এই কর্মসূচির সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করে মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন।

শেরপুরে স্বেচ্ছাশ্রমে ধান কাটছেন

যুবক ও বিশ্ববিদ্যলয়ের শিক্ষক

শেরপুর প্রতিনিধি জানান, সারাদেশে যখন কৃষকরা ধানকাটা শ্রমিকের মজুরি বৃদ্ধির কারণে ধান কাটতে পারছে না, ঠিক তখন শেরপুরের একদল যুবক এলাকার দরিদ্র কৃষকের পাকা ধান স্বেচ্ছায় কেটে দিচ্ছেন। শুধু এলাকার যুবসমাজই নয়, স্থানীয় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এগিয়ে এসেছে এ স্বেচ্ছাশ্রমে ধান কাটায়। শিক্ষার্থীর আহ্বানে সারা দিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষকও ছুটে এসেছেন এ স্বেচ্ছাশ্রমের ধান কাটায়। এদিকে স্বেচ্ছাশ্রমে ধান কেটে দেওয়ার খবর পেয়ে সাবেক এক শিক্ষার্থীর আহ্বানে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষক ও সভাপতি ড. মামুনও একাত্মতা ঘোষণা করে শেরপুরের ওই গ্রামে এসেছেন ধান কাটতে।

হাসি নেই কৃষকের মুখে

ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা জানান, ত্রিশালে ধান কাটা শ্রমিকের মজুরি বেড়ে যাওয়ায় হাসি ফুটেছে তাদের মুখে; কিন্তু ধানের মূল্য কম ও শ্রমিকের মজুরি বেশি হওয়ায় লোকসানে হাসি নেই কৃষকের। নিচু জমির ফসল তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কায় ধান কাটা শ্রমিকদের মজুরি প্রায় দ্বিগুণ হয়ে গেছে। মাত্র কয়েক দিন আগে ধান কাটা একজন শ্রমিকের মজুরি ছিল ৪ থেকে ৫শ টাকা।

কোটালীপাড়ার কৃষকরা বিপাকে

কোটালীপাড়া (গোপালগঞ্জ) সংবাদদাতা জানান, এ বছরের বোরো মৌসুমে উত্পাদিত ধান নিয়ে কোটালীপাড়ার কৃষকরা বিপাকে পড়েছেন। ধানের ন্যায্যমূল্য না পাওয়ায় তারা চরমভাবে হতাশ। এক মণ ধান বিক্রি করে পাওয়া যাচ্ছে না এক কেজি গরুর মাংস।

বদলগাছীতে শ্রমিক সংকট

বদলগাছী (নওগাঁ):বদলগাছীতে ইরি-বোরো ধানের বাম্পার ফলন হলেও শ্রমিক সংকটে দিশাহারা হয়ে পড়েছেন কৃষকরা। কৃষক জিল্লুর রহমান, রমজান আলীসহ অনেকে বলেন, ঘূর্ণিঝড়ে ধান পড়ে যাওয়ায় শ্রমিকরা ওই ধান আর কাটতে চায় না। অনেকে চড়া দাম চেয়ে বসে আছে। একদিকে বাজারে ধানের দাম নেই অন্যদিকে শ্রমিক না পাওয়ায় দিশেহারা হয়ে পড়েছি।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২৩ আগস্ট, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন