ঢাকা মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০১৯, ৪ আষাঢ় ১৪২৬
৩৩ °সে


যত্রতত্র পৌরবর্জ্য সীমাহীন ভোগান্তি!

যত্রতত্র পৌরবর্জ্য সীমাহীন ভোগান্তি!
বড়লেখা (মৌলভীবাজার):বড়লেখা-শাহবাজপুর সড়কের জাগিয়ার পুল এলাকায় ফেলা বর্জ্য —ইত্তেফাক

তপন কুমার দাস, বড়লেখা (মৌলভীবাজার) সংবাদদাতা

মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার বড়লেখা-শাহবাজপুর সড়কের জাগিয়ার পুল এলাকায় সড়কের পাশে বিভিন্ন স্থানে ফেলা হচ্ছে পৌর এলাকার ময়লা-আবর্জনা। এতে শহরের প্রবেশপথ ভাগাড়ে পরিণত হয়ে স্থানীয়রা ভোগান্তির শিকার হচ্ছে।

এই রাস্তা দিয়ে উপজেলার উত্তর শাহবাজপুর, দক্ষিণ শাহবাজপুর, নিজ বাহাদুরপুর ইউনিয়নের কয়েক হাজার বাসিন্দা, পাঁচটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, চারটি কলেজ, একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও দুটি মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা প্রতিদিন যাতায়াত করেন। এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, প্রায় সাড়ে তিন বছর থেকে বড়লেখা-শাহবাজপুর সড়কের জাগিয়ার পুল এলাকায় সড়কের পাশে প্রতিদিন যত্রতত্র ময়লা-আবর্জনা ফেলা হচ্ছে। এর আগে গাজিটেকা এলাকায় শহরের প্রবেশমুখে ময়লা ফেলা হতো।

গত বুধবার দুপুরে জাগিয়ার পুল এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, এলাকায় দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে। স্কুল শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে মানুষ রুমালে নাক চেপে ওই এলাকা পার হচ্ছেন।

এ সময় ছোটলেখা উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র সালমান হোসেন এমাদ ও আশরাফ আহমদ বলেন, ‘স্কুলে যাওয়া-আশা করতে আমাদের অনেক কষ্ট হয়। অনেক দুর্গন্ধ।’ ওই এলাকা দিয়ে প্রতিদিন বিদ্যালয়ে যাতায়াত করেন শিক্ষক ময়নুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘আবর্জনার গন্ধে রাস্তা দিয়ে চলাচল অনেক কঠিন হয়ে গেছে।’

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আহম্মদ হোসেন বলেন, ‘আবর্জনার গন্ধে শ্বাসনালিতে ইনফেকশন হয়ে শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন জটিল রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে।’

পরিবেশ কর্মী ও শিক্ষক মুর্শেদুজ্জামান সাদেক বলেন, ‘এভাবে আবর্জনা ফেলায় পরিবেশ ও জনস্বাস্থ্য হুমকির মধ্যে পড়ছে।’

দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাহাব উদ্দিন বলেন, ‘এ বিষয়ে উপজেলা পরিষদের মাসিক মিটিং-এ আলোচনা হয়েছে। তিনটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এ বিষয়টি উত্থাপন করেছেন।’

এ ব্যাপারে বড়লেখা পৌরসভার মেয়র আবুল ইমাম মো. কামরান চৌধুরী বলেন, ‘নির্ধারিত কোনো জায়গা না থাকায় বাধ্য হয়ে আবর্জনা ফেলা হচ্ছে। বিকল্প জায়গার জন্য সরকারের কাছে আবেদন করা হয়েছে। সরকারিভাবে জায়গা না পাওয়া পর্যন্ত ওই জায়গায় ফেলা ছাড়া আর কোনো বিকল্প নেই।’

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৮ জুন, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন