ঢাকা মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬
৩৩ °সে


দুর্নীতি দমনে ইসলামের নির্দেশনা

দুর্নীতি দমনে ইসলামের নির্দেশনা

ইসলাম একটি সুন্দর ও দুর্নীতিমুক্ত সমাজ কায়েম করার উপর অত্যধিক গুরুত্ব প্রদান করেছে। ইসলাম সবাইকে দুর্নীতিমুক্ত থাকার নির্দেশ দিয়েছে। কেউ দুর্নীতিগ্রস্ত হলে তার জন্য পার্থিব ও অপার্থিব শাস্তির বিধান দিয়েছে। শুধু আইন ও বিধান দিয়ে সবক্ষেত্রে দুর্নীতি দমন করা সম্ভব নয়। কারণ আইন প্রয়োগের রয়েছে একটি দীর্ঘ প্রক্রিয়া। অন্যদিকে আইনে থাকে বিভিন্ন ধরনের ফাঁক-ফোকর। তাই ইসলাম দুর্নীতি প্রতিরোধে আইন ও শাস্তির বিধানের সঙ্গে সঙ্গে আরো কিছু বাস্তবসম্মত পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে; যা মানবীয় সহজাত বৈশিষ্ট্যের সাথে ভারসাম্যপূর্ণ।

ইসলাম অপরাধী, দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে পার্থিব শাস্তি প্রদানে স্বচ্ছ আইন এবং তা দ্রুত কার্যকর করার বিধান প্রণয়ন করেছে। ইসলামে কোনো অপরাধী, দুর্নীতিবাজ, এমনকি খুনির শাস্তি প্রেসিডেন্ট কর্তৃক ক্ষমা করার বিধান রাখা হয়নি। কারণ এতে ভবিষ্যতে অপরাধীদের আরো বড়ো ধরনের অপকর্ম করার সুযোগে করে দেওয়া হয়। এজন্য মহানবী (স) বলেছেন, ‘আমার মেয়ে ফাতেমা চুরি করলেও আমি তার হাত কেটে দিব।’ (বুখারি : ৩২৮৮)।

দুনিয়াতে অপরাধের শাস্তি হোক বা না হোক আখিরাতে সব অপরাধের বিচার হবে এই মানসিকতা জনসাধারণের মধ্যে জাগ্রত করতে হবে। আল্লাহর ভয় ও আখিরাতের শাস্তি সম্পর্কে সচেতন করার মাধ্যমে অপরাধ দমন করা যায়। শেষ বিচারের দিন হাত-পা, অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ অপরাধীর বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেবে। আল্লাহ তায়ালার ইরশাদ, ‘আজ আমি তাদের মুখে মোহর এঁটে দেব তাদের হাত আমার সাথে কথা বলবে এবং তাদের পা তাদের কৃতকর্মের সাক্ষ্য দেবে। (সুরা ইয়াসিন : ৬৫)। আল্লাহর সামনে হিসাব দিতেই হবে, এই মানসিকতা জনসাধারণের মধ্যে সৃষ্টি হলে দুর্নীতি ও অপরাধ বন্ধ হবে।

সত্ লোক তৈরির জন্য আধুনিক শিক্ষার পাশাপাশি ইসলামি শিক্ষার প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। এজন্য প্রথমেই পারিবারিক পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। কারণ একজন শিশুর ওপর পারিবারিক প্রভাব সবচেয়ে বেশি থাকে। রসুলুল্লাহ (স) বলেছেন, ‘প্রত্যেক সন্তানই প্রবৃত্তির ওপর জন্মগ্রহণ করে থাকে। অত:পর তার পিতামাতাই তাকে ইহুদি বা খ্রিস্টান বানায় অথবা অগ্নি-উপাসক বানায়।’ (বুখারি : ১২৯২)। তাই প্রত্যেক পিতামাতার উচিত নিজেদের সন্তানকে সত্, আল্লাহভীরু ও ইসলামি অনুশাসনের পূর্ণ অনুসারী হিসেবে গড়ে তোলার সুব্যবস্থা করা।

দুর্নীতিমুক্ত জাতি গঠনের লক্ষ্যে ইসলামি মূল্যবোধ এবং তাকওয়ার ব্যাপক অনুশীলন হওয়া প্রয়োজন। আল্লাহ তায়ালার ইরশাদ, ‘লোকালয়ের মানুষগুলো যদি ঈমান আনত ও তাকওয়ার জীবন অবলম্বন করত তাহলে আমি তাদের ওপর আসমান-জমিনের যাবতীয় বরকতের দুয়ার খুলে দিতাম।’(সুরা আরাফ : ৯৬)। তাই জনপ্রতিনিধি, সরকারি ও বেসরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী ও সাধারণ জনগণকে আধ্যাত্মিক ও নৈতিক প্রশিক্ষণ দিয়ে সততা ও নৈতিকতার আদর্শে উজ্জীবিত করতে হবে।

দুর্নীতি দমনের মূলনীতি হিসেবে ইসলাম হালাল-হারাম তথা পবিত্র-অপবিত্রর পার্থক্য সুস্পষ্ট ভাবে বর্ণনা করেছে। সেই সঙ্গে হালালের কল্যাণ ও উপকারিতা এবং হারামের অপকারিতা ও ক্ষতি স্পষ্ট করে দিয়েছে। আল্লাহ তায়ালার বাণী, ‘হে মানবমন্ডলী, পৃথিবীর হালাল ও পবিত্র বস্তু-সামগ্রী ভক্ষণ করো। আর শয়তানের পদাঙ্ক অনুসরণ কোরো না। সে নিঃসন্দেহে তোমাদের প্রকাশ্য দুশমন।’ (সুরা বাকারা : ১৬৮)। তিনি আরো বলেছেন, ‘তোমরা একে অন্যের সম্পদ অবৈধ পন্থায় গ্রাস করো না এবং মানুষের ধন-সম্পত্তির কিয়দাংশ জেনে শুনে অন্যায়ভাবে গ্রাস করার উদ্দেশ্যে তা বিচারকগণের নিকট পেশ করো না।’ (সুরা বাকারা : ১৮৮)। রসুলুল্লাহ (সা) বলেছেন, ‘ঐ শরীর জান্নাতে প্রবেশ করবে না যা হারাম খাদ্য দ্বারা গঠিত হয়েছে।’ (কানযুল উম্মাল : ৯২৭৩)।

দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গঠনে সত্কর্ম সম্পাদন ও সত্কাজে উত্সাহ প্রদানের কোনো বিকল্প নেই। কারণ সবাই যখন সত্কাজে উদ্যোগী হবে, দুর্নীতিবাজরা নিজে থেকেই নিস্তেজ হয়ে দুর্নীতি করতে উত্সাহ হারিয়ে ফেলবে। এতে সমাজ হবে দুর্নীতিমুক্ত। আল্লাহ তায়ালা মানুষকে সত্ কাজের প্রতি উত্সাহিত করতে গিয়ে বলেন, ‘মুমিন পুরুষ কিংবা নারী যে কেউ সত্কর্ম করবে আমি তাকে পবিত্র জীবন দেব এবং তাদের তাদের কর্মের শ্রেষ্ঠ পুরস্কার দান করব।’ (সুরা নাহাল : ৯৭)। আল্লাহ তায়ালা আরো বলেন, ‘তোমরাই হলে সর্বোত্তম জাতি, মানবজাতির কল্যাণের জন্যেই তোমাদের উদ্ভব ঘটানো হয়েছে। তোমরা সত্কাজের নির্দেশ দান করবে ও অন্যায় কাজে বাধা দেবে।’ (সুরা আল ইমরান : ১১০)।

রসুলুল্লাহ (স) বলেছেন, ‘তোমাদের মধ্যে কেউ যদি কাউকে অন্যায় কাজ করতে দেখে তাহলে সে যেন তার শক্তি দ্বারা তা প্রতিহত করে। যদি সে এতে অক্ষম হয়, তবে মুখ দ্বারা নিষেধ করবে। যদি সে এতেও অপারগ হয় তবে সে অন্তর দ্বারা ঘৃণা পোষণ করবে। (মুসলিম : ১৮৬)। তাই আসুন দুর্নীতিবাজদের সাথে সামাজিক সকল বন্ধন ছিন্ন করে দুর্নীতির প্রতি ধিক্কার জানাই।

লেখক :ইসলামি গবেষক

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৫ অক্টোবর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন