ঢাকা বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১ কার্তিক ১৪২৬
২৮ °সে


খাদেমে রাসূল হযরত আনাস (রা)

খাদেমে  রাসূল হযরত  আনাস (রা)

হযরত উম্মে সুলাইম (রা) [আনাস (রা)-এর মাতা] হতে বর্ণিত তিনি বলেন, একদা তিনি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের নিকট এসে বললেন, ইয়া রাসূলুল্লাহ! আপনার খাদেম আনাসের জন্য আল্লাহর কাছে দোয়া করুন। তখন তিনি এভাবে দোয়া করলেন, ‘আল্লাহুম্মা আকসির মালাহু ওয়া ওলাদাহু ওয়া বারিকলাহু ফি মা আতইতাহু’। অর্থ : হে আল্লাহ! তার ধন ও সন্তান বৃদ্ধি করে দাও। আর তুমি তাকে যা কিছু দান করবে তাতে বরকত প্রদান কর। হযরত আনাস (রা) বলেন, আল্লাহর কসম! আমার মালসম্পদ প্রচুর এবং আমার সন্তানের সংখ্যা আজ প্রায় ১০০ অতিক্রম করেছে (বুখারী ও মুসলিম)।

হযরত আনাস (রা)-কে দশ বছর বয়সে মতান্তরে আট বছর বয়সে রাসূলে করীম (স)-এর খেদমতের জন্য ওয়াকফ করে দেওয়া হয়েছিল। একাধারে ১০ বছর রাসূলে করীম (স)-এর খেদমত করেছেন। আর এ আন্তরিকতাপূর্ণ খেদমতের ফলে রাসূলে করীম (স) তার হায়াত ও সম্পদে বরকতের জন্য দোয়া করেছেন। ঐ দোয়ার বরকতে তিনি ১০৩ বছর হায়াত পান এবং আল্লাহ তাআলা তাঁর সন্তানাদি এত বৃদ্ধি করে দেন যে, তার ৭৩ জন ছেলে এবং ২৭ জন মেয়ে ছিল। তার সম্পদে বরকতের অবস্থা এই ছিল যে, মদীনা শরীফে অন্যদের বাগানে বছরে একবার ফসল ফলত কিন্তু তাঁর বাগানে বছরে দুই বার ফসল ফলত। তাঁর উচ্চ মানমর্যাদার পরিমাপ এভাবেও করা যায় যে, তাঁর বাগানের ফুল হতে মিশক আম্বারের সুঘ্রাণ আসত। আল্লাহর রাসূল (স) আনাস (রা)-এর জন্য যে দোয়া করেছিলেন, আমরাও আমাদের ছোটো বাচ্চাদের জন্য রাসূলের শিখানো দোয়ার মাধ্যমে আল্লাহর সাহায্য চাইতে পারি।

—লেখক : আওলাদ হযরত মাওলানা কারামত আলী সিদ্দিকী জৌনপুরী (রহ)

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৬ অক্টোবর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন