ঢাকা বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
২৩ °সে


কমিউনিটি অ্যাপার্টমেন্ট : আবাসনে নতুন ধারণা

কমিউনিটি অ্যাপার্টমেন্ট : আবাসনে নতুন ধারণা

ঢাকা শহরে এখনকার দিনে বাড়ির সামনে খোলা জায়গা দেখা যায় না বললেই চলে। কিন্তু কয়েক যুগ আগেও দৃশ্যপট এরকম ছিল না। শহরের বেশির ভাগ বাড়ির সামনেই খোলা একটু জায়গা থাকত, যেখানে প্রাপ্তবয়স্করা প্রকৃতিকে উপভোগ করতে পারতেন এবং বাচ্চারাও আশেপাশে খেলাধূলা করে নিজেদের সময়টা উপভোগ্য করে তুলতে পারত। কিন্তু দেশের জনসংখ্যা দ্রুতই বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশেষ করে রাজধানী শহরে, কারণ মানুষ তাদের জীবিকার সন্ধানে এখানেই আসছে। জায়গার পরিমাণ এক থাকলেও দিন দিন জনসংখ্যা বেড়েই চলছে। তাই এই ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার আবাসন নিশ্চিত করার জন্য আরো ভবন নির্মিত হচ্ছে, আর এর সঙ্গে আশঙ্কাজনকভাবে কমছে খোলা জায়গার পরিমাণ। শহরের বেশির ভাগ মানুষই দেশ এবং দেশের বাইরের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসছে এবং বসবাসের জন্য বাড়ি ভাড়া করছে। সর্বোচ্চসংখ্যক মানুষের আবাসন সরবরাহ করার জন্য মালিকপক্ষ বা ডেভেলপাররা বহুতল ভবন নির্মাণ করছেন। তাই ছোটো বাড়িতে থাকার পরিবর্তে মানুষ এখন অ্যাপার্টমেন্টে থাকতেই বেশি পছন্দ করেন, কারণ ব্যয়বহুল বাড়ি বা লনসহ ডুপ্লেক্স ভাড়া করার চেয়ে আনন্দময় সময় কাটাতে এই অ্যাপার্টমেন্টগুলো অনেক সহজলভ্য। নিজেদের বাড়ির সামনে একটু খোলা জায়গার সুবিধা নেওয়ার জন্য মানুষ কমিউনিউটি অ্যাপার্টমেন্টকে বেছে নিতে পারে। কারণ এই অ্যাপার্টমেন্ট ভবনগুলোর সামনে সবার জন্য খেলার জায়গা বা পার্ক এবং গ্যারেজ থাকে, যেখানে তারা ব্যস্ত দিনের শেষে নিজেদের গাড়িগুলো রাখতে পারেন।

কমিউনিটি অ্যাপার্টমেন্টের বেশির ভাগ মানুষই যেহেতু একে অপরকে চিনে, তাই প্রয়োজনের সময় একে অপরকে সাহায্য করতে পারেন। কমিউনিটি অ্যাপার্টমেন্টে থাকাটাও বেশ আরামদায়ক, কারণ এখানে মুদি দোকান, কাপড়ের দোকান, দর্জি দোকান, ফার্মেসি, সেলুন, লন্ড্রি, কমিউনিটি হল এবং মসজিদ থাকে। এখানে সাধারণত একটি খেলার মাঠ বা পার্ক থাকে, যেখানে শিশুসহ সব বয়সের মানুষ তাদের অবসর সময় উপভোগ করতে পারেন। এখানে বসবাসকারীরা স্বাস্থ্য রক্ষায় যেন জগিং করতে পারেন সেজন্য এই এলাকার চারদিকে ওয়াকিং স্পেসও থাকে। কমিউনিটি অ্যাপার্টমেন্টে বসবাসকারী মানুষ নিজেদের মেধা প্রকাশের যথেষ্ট সুযোগ পান, কারণ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এখানে বিভিন্ন উপলক্ষ্যে নানা ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকেন, যেখানে কমিউনিটিতে বসবাসকারীরা তাদের বাচ্চাদের নিয়ে অংশগ্রহণ করতে পারে। কমিউনিটি অ্যাপার্টমেন্টে বসবাসকারী মানুষের জীবন তুলনামূলকভাবে ঝামেলামুক্ত। অতিরিক্ত কিছু সুবিধা নেওয়ার জন্য তাদের যেহেতু মাসিক সার্ভিস চার্জ দিতে হয়, তাদের বাসায় কোনো টেকনিক্যাল সমস্যা হলে তা সমাধানের জন্য এখানে সেখানে দৌঁড়াতে হয় না। তাদের শুধু কমিউনিটির পরিচালনায় যারা আছেন তাদের ফোন করে বিষয়টি জানালেই সমস্যা সমাধানের জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেন।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২০ নভেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন