ঢাকা বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১ কার্তিক ১৪২৬
২৮ °সে


আসছে বাজেট ২০১৯-২০

আসছে বাজেট ২০১৯-২০

মেয়াদোত্তীর্ণ ২৭২ প্রকল্প নতুন এডিপিতে

আলাউদ্দিন চৌধুরী

চলতি ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে এমন ২৭২টি প্রকল্প আসছে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এদের জন্য এবার বরাদ্দ রাখা হয়েছে ১৫ হাজার ৫৫৯ কোটি ৮৬ লাখ টাকা, যা মোট এডিপি বরাদ্দের ৭ দশমিক ৬৮ শতাংশ। চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের এডিপিতে সম্ভাব্য সমাপ্য প্রকল্পের সংখ্যা ছিল ৪৪৬টি। অর্থাত্ আগামী জুনের মধ্যে এসব প্রকল্পের বাস্তবায়ন শেষ হওয়ার কথা। কিন্তু ২৭২টি প্রকল্প আগামী জুনে শেষ হচ্ছে না। এ জন্য প্রকল্পগুলোকে আগামী অর্থবছরের বাজেটে অন্তর্ভুক্ত করার প্রস্তাব করা হয়েছে। এসব প্রকল্পের মেয়াদ বাড়াতে হবে। এছাড়া ১ হাজার ৪৫টি বরাদ্দবিহীন অননুমোদিত নতুন প্রকল্প অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে নতুন এডিপিতে। এ ধরনের জন্য থাকছে প্রায় সাড়ে ৮ হাজার কোটি টাকা। সম্প্রতি নতুন অর্থ বছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিবি) অনুমোদন করেছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ (এনইসি)। দেশের চলমান মেগা প্রকল্পগুলো দ্রুত এগিয়ে নেওয়ার জন্য আসছে ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের এডিপিতে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। যোগাযোগ ও বিদ্যুতের বড় পাঁচ প্রকল্পের কাজ দ্রুত শেষ করতে নতুন এডিপিতে বরাদ্দ রাখা হয়েছে প্রায় ৩৫ হাজার কোটি টাকা। এছাড়া সরকারের অগ্রাধিকার পাওয়া ফার্স্ট ট্র্যাকভুক্ত প্রকল্পসহ বড় ১০ প্রকল্পে থাকছে ৪০ হাজার কোটি টাকার বেশি বরাদ্দ। এনইসি বৈঠকে ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য ২ লাখ ২ হাজার ৭২১ কোটি টাকার এডিপি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, মেয়াদোত্তীর্ণ যে প্রকল্পগুলো নতুন এডিপিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে, সেগুলোর মধ্যে কিছু আছে ২০০৫, ২০০৯, ২০১০, ২০১১ সাল থেকে চলমান। দফায় দফায় মেয়াদ বাড়িয়েও গত ৮ থেকে ১৩ বছরে এসব প্রকল্প শেষ করতে পারেনি বাস্তবায়নকারী সংস্থাগুলো। কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগার নির্মাণ প্রকল্পটি ২০০৫ সালে শুরু হয়। ১৪ বছর ধরে এই প্রকল্পটি চলমান। ২০১০ সালে শেষ করার কথা থাকলেও তা শেষ করতে পারেনি। ২০০৯ সালে শুরু হওয়া জাতীয় রাজস্ব বোর্ড ভবন নির্মাণ প্রকল্প এখনো চলমান। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্বাচিত বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোর ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পটি ২০১১ সালে শুরু হয়। ২০১২ সালে শুরু হওয়া দেশের গুরুত্বপূর্ণ উপজেলা সদর বা স্থানে ১৫৬টি ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন স্থাপন প্রকল্পটি ২০১৫ সালে শেষ করার কথা ছিল, যা এখনো চলমান। রেলের কুলাউড়া-শাহবাজপুর সেকশনের পুনর্বাসন প্রকল্পটি ২০১১ সালে শুরু হয়। এটি ৯ বছর ধরে চলমান। আট বছর ধরে চলমান ঢাকা-টঙ্গী সেকশনের তৃতীয় ও চতুর্থ ডুয়েলগেজ লাইন এবং টঙ্গী-জয়দেবপুর সেকশনের ডুয়েলগেজ ডাবল লাইন নির্মাণ প্রকল্পটি। পরিকল্পনা কমিশন বলছে, এই ২৭২টি প্রকল্পের মেয়াদ বৃদ্ধি ও সংশোধন আগামী এক মাসের মধ্যে অর্থাত্ জুনের মধ্যে সম্পন্ন করতে হবে। যাতে নতুন অর্থবছর শুরুতেই অর্থাত্ আগামী জুলাই থেকেই প্রকল্পগুলোর অনুকূলে বরাদ্দকৃত অর্থ ছাড় করা সম্ভব হয়। এডিপিতে এসব প্রকল্প রাখা গেলেও মেয়াদ বৃদ্ধি ছাড়া এসব প্রকল্পের বিপরীতে বরাদ্দকৃত অর্থ ছাড় ও ব্যয় করা যাবে না। আগামী অর্থবছরের উন্নয়ন বাজেটে চলতি অর্থবছরে চেয়ে প্রায় ১৫ শতাংশ বেশি খরচ করতে চাইছে সরকার। সংসদ নির্বাচনের আগে শেষ মুহূর্তে নেওয়া প্রায় ২০০ প্রকল্প, যেগুলো নতুন এডিপিতে যোগ হয়েছে। এছাড়াও পৌনে দুশ এমন প্রকল্প রয়েছে, যেগুলো চলতি অর্থবছরে মধ্যেই কাজ শেষ করার লক্ষ্য ছিল। কাজ শেষ না হওয়ায় তা আগামী অর্থবছরের এডিপিতে যোগ হচ্ছে। দুই ধরনের মিলে কয়েকশ প্রকল্প চাপ বাড়িয়েছে নতুন এডিপিতে।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৬ অক্টোবর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন