ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬
২৯ °সে


মঙ্গল গ্রহে বিচরণের লক্ষ্যে মঙ্গল তরী

মঙ্গল গ্রহে বিচরণের লক্ষ্যে  মঙ্গল তরী

তৃতীয় বিশ্বের দেশ হিসেবে যেখানে সারা বিশ্বের চোখে সবদিক দিয়েই আমরা পিছিয়ে, ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি রোবোটিক ক্লাবের তত্ত্বাবধানে ২০১৫ সাল থেকে ‘ব্র্যাক মঙ্গল তরী’ দলটি মঙ্গল গ্রহে বিচরণের রোবট তৈরি করে যাচ্ছে একনিষ্ঠতার সঙ্গে। ব্র্যাক মঙ্গল তরী মূলত একটি রোভার বা বিচরণকারী রোবট। কিন্তু অন্যান্য রোবটের চেয়ে তার টিকে থাকার ক্ষমতা ও প্রসেসিংয়ের ক্ষমতা বেশি হওয়া গুরুত্বপূর্ণ। কেননা মূলত এই বিচরণের কাজে সরাসরি তত্ত্বাবধানে কোনো মানুষের পক্ষে ফিল্ডে থাকা সম্ভব না।

ব্র্যাক মঙ্গল তরী দলটি তাদের রোভারটিকে আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন করার লক্ষ্যে শুরু থেকেই কাজ করে যাচ্ছে। এরই ফলস্বরূপ বিশ্বের ৮৪টি নামীদামি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে থেকে ব্র্যাক মঙ্গল তরী এখন এই বছরের ইউনিভার্সিটি রোভার চ্যালেঞ্জের সেরা ৩৬ দলের একটি। আগামী ৩০ মে থেকে শুরু হতে যাওয়া প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত হবে আমেরিকায় অবস্থিত ইউটাহ-এর বিখ্যাত মার্স ডেজার্ট রিসার্চ সেন্টারে।

মঙ্গল তরী দলটি পুরোপুরিভাবেই ছাত্রছাত্রীদের হলেও দক্ষতায় যে তারা পিছিয়ে নেই, সে প্রমাণ তারা দেখিয়েছে ইউয়ারসি-১৯-এর সিস্টেম এক্সেপ্টেন্স রিভিউ স্কোরিংয়ে। যেখানে তারা সফলতার সঙ্গে ১০০-তে ৮৮.৩১ স্কোর করতে সক্ষম হয়েছে। প্রায় তেরো বছর ধরে চলতে থাকা ইউআরসি প্রতিযোগিতায় প্রতিবছর নতুন ধরনের টাস্ক দেওয়া থাকে। এই বছরের টাস্ক ছিল মূলত চারটা। সেখানে বিজ্ঞানভিত্তিক মিশন থেকে শুরু করে সার্ভিসিং মিশনও ছিল। যার সবগুলোতে ব্র্যাকের মঙ্গল তরী সফলতার সঙ্গে উতরে গেছে।

আর এক মাস পরেই অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সর্ববৃহত্ প্রতিযোগিতার জন্য রাজিন বিন ইসার নেতৃত্বে আটটা দল নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছে। প্রতিটা দলই জানে তাদের ওপর বর্তানো দায়িত্ব কতটুকু গুরুত্বপূর্ণ এবং যেকোনো একজন হেলাফেলা করলে ছুটে যেতে পারে দেশের সম্ভাব্য অন্যতম বড় একটি গৌরব। মাহবুব সিফাতের নেতৃত্বে কাজ করে যেতে থাকা ইলেকট্রিক্যাল টিমটি সম্পূর্ণ সেক্টরটি দেখছে। যন্ত্রশৈলীর অংশটির নেতৃত্বে আছে সায়ন্তন রয় অর্ক। তাদের মধ্যকার যোগাযোগের নেতৃত্বে আছেন রাগিব আঞ্জুম। আর এই সমস্তই সম্ভব হয়েছে যেই ম্যানেজমেন্টের কারণে, সেই দিকটা দেখছেন শোয়েব আহমেদ।

এরমধ্যেই বৈশ্বিক এই প্রতিযোগিতায় দু বছর আগেও মঙ্গল তরী ১৮তম অবস্থান অর্জন করেছিল। এমনকি গতবছরও ভারতে অনুষ্ঠিত রোভার চ্যালেঞ্জে তারা তৃতীয় স্থান লাভ করেছে। এই বছর তারা আরো অনেক এগিয়ে থাকতে চায়। ব্র্যাক পরিবার এবং একই সঙ্গে বাংলাদেশের প্রত্যাশা, ব্র্যাক মঙ্গল তরী এগিয়ে যাবে, মঙ্গল গ্রহের বুকেও তারা বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবে। পৃথিবী জানবে, মেধা কিংবা দক্ষতায় পিছিয়ে নেই বাংলাদেশ।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২০ আগস্ট, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন