ঢাকা বুধবার, ২২ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
৩৩ °সে


বন্ধুর কাছে নোয়াখালীর এক ব্যাচেলরের পত্র

বন্ধুর কাছে নোয়াখালীর এক ব্যাচেলরের পত্র

পত্রটি সংগ্রহ করেছেন

তারেকুর রহমান

প্রিয় বল্টু

কীরে কী অবস্থা? বালা আছোত্তি? আঁই বালা নাইরে। একলা একলা আর কয়কাল ভালা থাইক্কম। আঁর লগের বেগ্গুন বিয়া করি হালাইছে। আর আঁই অন ও বিয়া কইত্তে হারিন। ইয়ান মনে হইড়লে আঁর কইলজা হাডি যা। আহারে আঁর চিদ্দতের কতা কারতন কইওম। তুই ছাড়াতো আঁর কে আছে? হুনবিনি এক্কান কতা। কদিন আগে মাইয়া অগ্গারে দেই আঁই বেহুঁশ অই গেছি। আহারে মাইয়া কি সোন্দর। যেরুম চেহারা হেরুম সোন্দর। আঁর মনে অইছে আঁই লাইভ কোন হরি দেইখছি। আঁই হেতিরে দেই এক্কারি এক মনে তাকাই আছিলাম। চোখ হরাইতে মন চায় ন। হঠাত্ করি হোলা অগ্গা আই আঁর কানের তলেদি দুগা চোবাড় লাগাই দিছে। চোবাড়ের বিষে আঁর কানটান হুলি গেছে। হোলা হিগা মনে অয় হেতির হেমিক অইব। হারা রাইত ঘুমযাইতে হারি ন। মাইয়া ইগা খালি আঁর স্বপ্নে আইয়ে। আইচ্ছা এক্কান কতা কবিনি আঁই কি দেইখতে হুইনতে খারাপ নি? মাশাল্লাহ হড়ি আঁই লব্বা চৌড়া কম ন। হিয়ার হরেও মাইয়ারা আঁরে কিল্লাই হছন্দ করে না। দুইন্নার হাগল ছাগল বেগ্গুন হেরেম করে শুধু আঁই হেরেম কইত্তে হারি না। বুইঝলাম আঁর নছিবে হেরেম নাই।

হেরেম না অয় নাই থাইকল। বিয়াও বুঝি আঁর কলে নাই। আঁর আব্বা-আম্মা এক্কানা ভুলেও বিয়ার কতা কয় না। হেতারা কয় আঁর বেলে বয়স অয়নো। ইগিন কিয়া কয় হেতারা আঁর বুঝে আইয়ে না। আঁর লগের বদরুইল্লার হোলা ক্লাস থিরিতে হড়ে আর হেতারা কয় আঁর বয়স অয়নো। আঁই কত করি হেতাগোরে বুঝানোর লাই চাইছি যে আঁর বিয়ের বয়স অইছে। আঁই বিয়ে কইত্তাম চাই। ওম্মা কে হুনে কার কতা। হেতারা যিয়ান মনে কইচ্ছে হিয়ানেরত্তন লড়ানোর ক্ষেমতা কারো নাই। মনের দুক্কে আঁই অন বাপ্পারাজের ছবি চাই। হেতার ছবিগুন মনে অয় আঁর লাই বানাইছে। তোরে চিডি লেনের আগেও আঁই ‘প্রেমের সমাধি’ ছবি ইগা চাইছি।

যাওক, তোর কি অবস্তা? আগের হেই বদ অইভ্যাস অনও আছেনি? অনও কি হাড়ার মাইগোরে ডিস্টার্ব করোসনি? হা হা, মনে কষ্ট নিচ না। এক্কানা বাইচালি কইচ্ছি আরি। আমরা তো দুইজন হায়হমাইন্না।

বালা থাইস। আঁর লাই দোয়া করিস। চিডির উত্তর দিস।

ইতি

তোর বন্ধু কাশেম

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২২ মে, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন