ঢাকা মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
২৩ °সে


ভারতের জয়ে সিরিজে সমতা

ভারতের জয়ে সিরিজে সমতা
গতকাল রাজকোটে বাংলাদেশের উজ্জ্বল পারফরমার দুই তরুণ। বিপ্লব (বামে) নিয়েছেন ২ উইকেট, নাঈম শেখ ৩৬ রান করেছেন —মোশারফ হোসেন, রাজকোট থেকে

রাজকোটে ঘূর্ণিঝড় ‘মাহা’ নিথর হয়ে পড়লেও ২২ গজে ঝড় তোলার চেষ্টা করেছিলেন বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। সৌম্য সরকার, লিটন দাসরা না পারলেও ব্যাটিং-সহায়ক উইকেটে ঠিকই ভয়ংকর সুন্দর ব্যাটিং করেছেন ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মা।

স্কোরবোর্ডে বাংলাদেশের অপ্রতুল পুঁজিই প্রথম ম্যাচ হেরে বিষম চাপে থাকা ভারতীয় শিবিরে এনে দিয়েছিল প্রশান্তির পরশ। তারপর রোহিত শর্মার খুনে ব্যাটিংয়ে রাজকোটে টাইগারদের সিরিজ জয়ের মিশন আলোর মুখ দেখেনি। গতকাল সিরিজের দ্বিতীয় টি-২০ ম্যাচে ভারতের কাছে ৮ উইকেটে হেরে গেছে বাংলাদেশ। স্বাগতিকদের জয়ে সিরিজে ফিরল সমতা (১-১)। সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচটি হয়ে পড়ল অলিখিত ফাইনাল। নাগপুরে আগামী ১০ নভেম্বরই হবে সিরিজের ফয়সালা।

রাজকোটে আগে ব্যাট করে বাংলাদেশ তুলেছিল ৬ উইকেটে ১৫৩ রান। জবাবে ১৫.৪ ওভারে ২ উইকেটে ১৫৪ রান তুলে ম্যাচ জিতে নেয় ভারত। রোহিত শর্মা ম্যাচ-সেরা হন।

রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করেন ভারতীয় অধিনায়ক। তার আগুনে ব্যাটিংয়ে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ হারায় বাংলাদেশ। ২৩ বলে হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন তিনি। ১১তম ওভারে ধাওয়ানকে বোল্ড করেন বিপ্লব। ১১৮ রানে ভাঙে ভারতের ওপেনিং জুটি। ধাওয়ান ৩১ রান করেন। নিজের পরের ওভারে রোহিতের ঝড়ও থামান লেগ স্পিনার বিপ্লব। ৪৩ বলে ৮৫ রানের (৬ চার, ৬ ছয়) ইনিংস খেলেন তিনি। শ্রেয়াস আইয়ার অপরাজিত ২৪, লোকেশ রাহুল অপরাজিত ৮ রান করেন। বাংলাদেশের বিপ্লব নেন ২ উইকেট। এর আগে টসে হেরে ব্যাট করা বাংলাদেশ দারুণ শুরু পায় নাঈম শেখ-লিটন দাসের ৬০ রানের জুটিতে। জেগেছিল বড়ো স্কোরের সম্ভাবনা। নাঈম শেখের ঝড়ে ৬ ওভারে আসে ৫৪ রান। খলিলকে দ্বিতীয় ওভারে টানা তিনটি ও পঞ্চম ওভারে দুটি চার মারেন নাঈম। দুইবার জীবন পাওয়া লিটন রানআউট হন ২৯ রান করে। চাহালের করা ষষ্ঠ ওভারে স্ট্যাম্প অতিক্রম করার আগে বল ধরে প্রান্ত স্ট্যাম্পিং করায় বেঁচে যান লিটন। ওয়াশিংটন সুন্দরের করা পরের ওভারে তার ক্যাচ ফেলেন রোহিত শর্মা।

বাংলাদেশের ইনিংসটা কক্ষচ্যুত হয় চাহালের করা ১৩তম ওভারে। ৬ রানে পড়ে যায় ২ উইকেট। ওভারের প্রথম বলে স্লগ সুইপে স্কয়ার লেগে ক্যাচ দেন মুশফিক (৪)। ষষ্ঠ বলে স্ট্যাম্পড হন সৌম্য। তিনি ২০ বলে ৩০ রান করেন। ইনিংসের মাঝপথে দ্রুত উইকেট হারানোর চাপেই স্কোরটা আর বড়ো হয়নি। আফিফ (৬) সুবিধা করতে পারেননি। ১৯তম ওভারে অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ ফেরেন ৩০ রান করে। শেষ দিকে মোসাদ্দেকের অপরাজিত ৭, বিপ্লবের অপরাজিত ৫ রানে দেড়শ পার হয় বাংলাদেশের স্কোর। ভারতের চাহাল দুটি, চাহার, খলিল ও ওয়াশিংটন সুন্দর একটি করে উইকেট নেন।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৯ নভেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন