ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬
২৪ °সে


১০ হাজার টাকার মেশিন ৩০ হাজারে বিক্রি

বাড়তি ১ কোটি ১৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার পাঁয়তারা
১০ হাজার টাকার মেশিন ৩০ হাজারে বিক্রি

ঝালকাঠি জেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে ডিজিটাল হাজিরা মেশিন (ফিঙ্গারপ্রিন্ট অ্যাটেনডেন্স মেশিন) স্থাপন নিয়ে এসবি ট্রেডার্স নামে একটি কোম্পানির বিরুদ্ধে কোটি টাকা বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এমনকি প্রধান শিক্ষকদের কোনো অনুমতি না নিয়েই তারা বিদ্যালয়ে মেশিন বসিয়ে তিনগুণ দাম আদায় করছে। ঝালকাঠি সদর উপজেলায় তাদের এ বাণিজ্যে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ছালেহা খাতুনের বিরুদ্ধে সহায়তার অভিযোগ করেছেন শিক্ষকরা। এসব কারণে জেলার চারটির মধ্যে তিনটি উপজেলায় ডিজিটাল মেশিন স্থাপন কার্যক্রম এরই মধ্যে স্থগিত করা হয়েছে।

জানা গেছে, স্কুলে স্কুলে এসবি ট্রেডিং কোম্পানির সরবরাহ করা ২৯ হাজার ৫০০ টাকার মেশিনের প্রকৃত বাজারদর মাত্র ১০ হাজার টাকা। এ হিসাবে জেলার ৫৮৪টি বিদ্যালয় থেকে বাড়তি ১ কোটি ১৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার পাঁয়তারা চালাচ্ছে এ কোম্পানি। তাত্ক্ষণিক এই অর্থ দিতে না পারায় অনেক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ব্যক্তিগত হিসাবের চেক দিতে বাধ্য হচ্ছেন। কারণ কোম্পানিটি দাবি করা টাকা না পেলে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার ভয় দেখাচ্ছে। এ বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনার দাবি উঠেছে।

ঝালকাঠি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র জানায়, জেলায় মোট বিদ্যালয়ের সংখ্যা ৫৮৪টি। এরমধ্যে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত সদর উপজেলার ১৬২টির মধ্যে ১০০টি, নলছিটি উপজেলার ১৬৫টির মধ্যে আটটি, রাজাপুর উপজেলার ১২৪টির মধ্যে একটি ও নলছিটি উপজেলার ১৩২টির মধ্যে একটি বিদ্যালয়ে ডিজিটাল হাজিরা মেশিন বসানো হয়েছে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ডিজিটাল হাজিরা মেশিন ক্রয়ের বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব রুহুল আমিন স্বাক্ষরিত পত্রে সুনির্দিষ্ট ব্যাখ্যা দেওয়া হয়েছে। গত ২৩ অক্টোবর ১৮-১৬৮ নম্বর স্মারকে মহাপরিচালকসহ বিভাগীয়, জেলা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের এ পত্র প্রেরণ করা হয়েছে। পত্রে ১৫টি পদ্ধতি সংযুক্ত মেশিন ক্রয়ের নির্দেশনা রয়েছে। কিন্তু পাঁচটি পদ্ধতি যুক্ত নিম্নমানের মেশিন বিদ্যালয়ে স্থাপন করে বাড়তি অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে এসবি।

এ বিষয়ে ঝালকাঠি চৌপালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মজিবুর রহমান জানান, আমাদের বিদ্যালয়ে তারা এ মেশিন লাগিয়ে ২৯ হাজার ৫০০ টাকা নিয়েছে। লেশপ্রতাপ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কামরুননাহার জানান, এসবি ট্রেডিং কোম্পানি গত ৩১ অক্টোবর মেশিন লাগিয়ে দিয়েছে। মেশিনের দাম ২৯ হাজার ৫০০ টাকা বিদ্যালয়ের ফান্ডে না থাকায় আমার ব্যক্তিগত ব্যাংক হিসাব থেকে চেকের মাধ্যমে পরিশোধ করেছি। আগরবাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হাসিনা মমতাজ বলেন, মেশিনের জন্য ২৯ হাজার ৫০০ টাকা নিয়েছে। কুতুবকাঠি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, এসবি কোম্পানি আমার বিদ্যালয়ে এসে উপজেলা শিক্ষা অফিস থেকে পাঠানোর কথা বলে মেশিন বসিয়ে ৩০ হাজার টাকা দাবি করে। আমি ১৫ হাজার টাকা দিলে তারা বাকি টাকা পরে নিতে আসবে বলে জানায়। না দিলে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার ভয় দেখিয়ে হুমকি দেয়। এ প্রসঙ্গে ঝালকাঠি উদ্বোধন প্রাথমিক বিদ্যালয় সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিল জানান, আমার বিদ্যালয়ে এসবি কোম্পানি এ মেশিন বসিয়ে ৩০ হাজার টাকা দাবি করেছে। কিন্তু প্রধান শিক্ষক টাকা দেননি। ১০ হাজার টাকার মেশিন লাগিয়ে অযৌক্তিক দাবি কোনোভাবেই মানা যায় না।

অভিযোগ প্রসঙ্গে এসবি কোম্পানির মার্কেটিং অফিসার পরিচয়ে মেসবাহ উদ্দিন বলেন, আমরা কোথাও জোর করছি না। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ছালেহা খাতুনের অনুমতি নিয়েই আমরা এ কাজ শুরু করেছি। যারা আপত্তি করছে সেখানে স্থগিত রাখছি। ৩ বছরের ওয়ারেন্টি ও গ্যারান্টি দিয়ে এটা লাগাচ্ছি। আমাদের মেশিন লাগানোর পর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এর কার্যক্রম পরিদর্শন করে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন বলেও এই মার্কেটিং অফিসার দাবি করেন।

জানতে চাইলে ঝালকাঠি সদর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ছালেহা খাতুন এ প্রসঙ্গে কিছুই জানেন না বলে জানান। তিনি বলেন, কোনো প্রধান শিক্ষক এখন পর্যন্ত তার কাছে এই কোম্পানির বিরুদ্ধে তার কথা বলে মেশিন লাগানোর অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে তিনি ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান।

এ বিষয়ে ঝালকাঠি জেলা প্রাথমিক সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম জানান, শিক্ষকদের বিদ্যালয়ে হাজিরা নিশ্চিত করতেই সরকার এ উদ্যোগ নেয়। বাজার থেকে মেশিনটি ক্রয় করার কথা। কিন্তু কোনো কোম্পানি বিদ্যালয়ে গিয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা অথবা অন্য কারো রেফারেন্সে মেশিন বসিয়ে অধিক মূল্য আদায় করলে এ অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৪ নভেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন