ভোটের ফল পাল্টাতেই বাঘাইছড়ির ব্রাশফায়ার!

প্রকাশ : ২০ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  চট্টগ্রাম অফিস ও রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি

রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী হন সুদর্শন চাকমা। তার সম্ভাব্য জয় ঠেকাতেই গত সোমবার সন্ধ্যায় নির্বাচনী কর্মকর্তাদের গাড়িবহর লক্ষ্য করে ব্রাশফায়ার করে সন্ত্রাসীরা। স্থানীয় রাজনীতিবিদ, পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর একাধিক সূত্র এমনটাই দাবি করেছেন।

সূত্রগুলো জানায়, ভোটের দিন সকাল থেকে যেভাবে ভোট চলছিল তাতে জয়ের পাল্লা ক্রমশ সুদর্শন চাকমার দিকে ঝুঁকছিল। বিষয়টি অনুধাবন করতে পেরে তার প্রতিপক্ষ নির্বাচন বানচাল করার পরিকল্পনা নেয়। তাদের ধারণা ছিল, ব্যালট বাক্সসহ নির্বাচনী সরঞ্জাম ছিনিয়ে নিতে পারলে ভোট বাতিল হয়ে যাবে। তবে কঠোর নিরাপত্তার কারণে ভোট চলাকালে কোনো কেন্দ্রের ধারেকাছে না এসে তারা ভোটগ্রহণ শেষ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে থাকে। ভোট শেষে সন্ধ্যায় দুটি কেন্দ্রের নির্বাচনী কর্মকর্তারা কেন্দ্র থেকে গাড়িবহর নিয়ে উপজেলার দিকে যাওয়ার পথে সন্ত্রাসীদের ব্রাশফায়ারের মুখে পড়েন। ওই ঘটনায় নিহত হন সাতজন। ঘটনা তদন্তে বিভাগীয় কমিশনার ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন।  

এদিকে, বাঘাইছড়ির ঘটনার ১২ ঘণ্টার মধ্যে রাঙ্গামাটির বিলাইছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সুরেশ কুমার তঞ্চঙ্গা সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হয়েছেন। হত্যাকাণ্ডের জন্য সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জেএসএসকে দায়ী করা হচ্ছে। 

অন্যদিকে, উপজেলা নির্বাচন নিয়ে আঞ্চলিক সংগঠনগুলোর মধ্যে বিরোধের জের ধরেই বাঘাইছড়িতে নৃশংস হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর সূত্রগুলো জানিয়েছে। নির্বাচনী বিরোধকে কেন্দ্র করে গত রবিবার জেএসএস (সন্তু লারমা) ও জেএসএস (সংস্কার) গ্রুপের মধ্যে গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। নির্বাচনে সন্তু লারমা সমর্থিত জেএসএস-এর প্রার্থী ছিলেন বর্তমান চেয়ারম্যান বড়ঋষি চাকমা। অন্যদিকে, বিজয়ী প্রার্থী সুদর্শন চাকমার পেছনে সমর্থন ছিল জেএসএস সংস্কার গ্রুপের। জানা গেছে, নির্বাচনের বাতাস নিজের অনুকূলে যাচ্ছে না দেখে বড়ঋষি চাকমা বেলা সাড়ে ১০টার দিকে তড়িঘড়ি করে সংবাদ সম্মেলন ডেকে নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ এনে ভোটগ্রহণ স্থগিতের দাবি জানান। অন্যথায় যেকোনো অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির জন্য নির্বাচন কমিশন ও সরকার দায়ী থাকবে বলে হুঁশিয়ার করে দেন। ওই সংবাদ সম্মেলনের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই উপজেলার নয়কিলো এলাকায় সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হন নির্বাচনী কর্মকর্তারা।

পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর একাধিক কর্মকর্তা ইত্তেফাককে জানিয়েছেন, নির্বাচনে ইউপিডিএফ (প্রসীত) প্রার্থী না দিলেও যেখানে হামলার ঘটনা ঘটেছে সেটা ইউপিডিএফ এর শক্ত ঘাঁটি। তাই সন্তু গ্রুপ ও ইউপিডিএফ (প্রসীত) গ্রুপ মিলেমিশেই এই হামলা চালিয়েছে। বাঘাইছড়ি উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান সুদর্শন চাকমা গতকাল এক বিবৃতিতে জেএসএস (সন্তু) ও ইউপিডিএফ (প্রসীত) দলের সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের হামলায় নির্বাচনী কর্মকর্তারা নিহত হয়েছেন দাবি করে অবিলম্বে হামলাকারীদের গ্রেফতার দাবি করেছেন। বাঘাইছড়ির ঘটনার প্রতিবাদে আজ খাগড়াছড়িতে হরতাল ডেকেছে বাঙালি ছাত্র পরিষদ।

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি এক বিবৃতিতে নির্বাচনী কর্মকর্তা বহনকারী গাড়িবহরে হামলা করে সাতজনকে হত্যা এবং আওয়ামী লীগ নেতা সুরেশ কুমার তঞ্চঙ্গাকে নির্মমভাবে গুলি করে হত্যার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। এদিকে, বাঘাইছড়ির ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনুর রশিদ ও পুলিশ সুপার আলমগীর কবিরসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

তারা বাঘাইছড়ির নয়কিলো এলাকায় সন্ত্রাসীদের হামলারস্থল ঘুরে দেখেন এবং স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলেন।

রাঙ্গামাটি পুলিশ সুপার আলমগীর কবির বলেন, পাহাড়ে ভৌগোলিক অবস্থার কারণে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা অসম্ভব তার পরেও যথেষ্ট নিরাপত্তা থাকা সত্ত্বেও সন্ত্রাসীদের এই ধরনের হামলা উদ্বেগজনক। পরে তারা বাঘাইছড়ি থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিত্সাধীন গুলিবিদ্ধ আহত রোগীদের দেখতে যান। রাত ১০টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত জানা গেছে, পাহাড়ে কম্বিং অভিযান শুরু হয়েছে।

মামলা হয়নি, নিহতদের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর

২৪ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও বাঘাইছড়ির ঘটনায় পুলিশ এখনো কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। গতকাল সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোনো মামলাও হয়নি। তবে মামলার প্রস্তুতি চলছে জানিয়ে রাঙ্গামাটির পুলিশ সুপার আলমগীর কবির ইত্তেফাককে বলেন, মামলার পর তদন্ত করে জড়িতদের গ্রেফতার করা হবে। বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. নাদিম সারোয়ার জানিয়েছেন, ময়না তদন্তের পর নিহতদের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে লাশ দাফনের জন্য ২০ হাজার টাকা করে দেয়া হয়েছে। জেলা প্রশাসন আহত সাতজনকে ১০ হাজার টাকা করে সহায়তা প্রদান করে।