ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬
৩১ °সে


বিতর্কিতদের বাদ দিতে বললেন শেখ হাসিনা

ছাত্রলীগের কমিটি
বিতর্কিতদের বাদ দিতে বললেন শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা সদ্য ঘোষিত ছাত্রলীগের ৩০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে ঠাঁই পাওয়া বিতর্কিতদের বাদ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। গতকাল বুধবার দুপুরে ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীকে গণভবনে ডেকে সংগঠনের অভিভাবক হিসাবে তিনি এ নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানা গেছে। ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন এবং সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীকে ধমক দেন শেখ হাসিনা। ছাত্রলীগের সর্বোচ্চ অভিভাবক হিসাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শোভন-রাব্বানীর ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘আমি তো আমদানিকৃত ছাত্রলীগ চাইনি, আমি চেয়েছি ত্যাগী ছাত্রলীগ।’ এ সময় ৩০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটির সবার বিষয়ে গোয়েন্দা প্রতিবেদনের একটি তালিকা প্রধানমন্ত্রী তাদের হাতে ধরিয়ে দেন। এরমধ্যে যাদের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিকভাবে তদন্ত করে প্রমাণ পাওয়া সাপেক্ষে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন শেখ হাসিনা। দ্রুততম সময়ের মধ্যেই বির্তকিতদের পদ বিলুপ্ত করে সেই পদে ত্যাগী ও যোগ্য ছাত্রলীগ নেতাদের পদ দেওয়ার বিষয়েও নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া গোয়েন্দা প্রতিবেদনে বর্তমান কমিটির সভাপতি শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর বিরুদ্ধেও অভিযোগ রয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র।

বিতর্কিত ১৫ জনের নাম কালি দিয়ে কেটে দিলেন শেখ হাসিনা

ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক বলেন, কমিটি নিয়ে যারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন পোস্ট দিচ্ছেন ও অভিযোগ করছেন তাদেরকে বলবো, আপনারা সেসব তথ্য আমাদেরকে দিন। আমরা ব্যবস্থা নেবো। তারা আরো বলেন, ‘ঘোষিত কমিটিতে যারা রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে কেউ প্রমাণসহ লিখিত অভিযোগ উপস্থাপন করলে তাদের কমিটি থেকে বাদ দিতে আপা (প্রধানমন্ত্রী) আমাদের নির্দেশনা দিয়েছেন। কেউ যদি উপযুক্ত প্রমাণসহ অভিযোগ দেন তাহলে আমরা অবশ্যই ব্যবস্থা নেবো। তবে এখন পর্যন্ত কেউ আমাদের কাছে কোনো অভিযোগ উপস্থাপন করেননি।’ ছাত্রলীগের শীর্ষ দুই নেতা বলেন, ‘আপার (প্রধানমন্ত্রী) সঙ্গে সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ আমরা সাক্ষাত্ করেছিলাম। তারা প্রধামন্ত্রীর কাছে অভিযোগ করেছেন যে তাদের সর্মথনকারীদের কমিটিতে রাখা হয়নি। এর জবাবে আপা আমাদের পক্ষে কথা বলেছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘সাবেকদের অনুসারীদের ৯০ জনকে রাখা হয়েছে, যা ৩০১ সদস্যদের কমিটির জন্য অনেক বেশি।’ গণভবন সূত্রে জানা গেছে, শোভন-রাব্বানীর সঙ্গে কথা বলার আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা জাহাঙ্গীর কবির নানকের সঙ্গে একান্তে আলাপ করেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ তালিকায় থাকা ১৫ জন বিতর্কিত নেতার নাম কালি দিয়ে চিহ্নিত করে তাদের বাদ দেওয়ার নির্দেশ দেন। তালিকায় যদি আরও কোনো বিতর্কিত নেতা থাকেন খোঁজখবর নিয়ে তাদেরকেও বাদ দিতে ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।

জানা গেছে, সাংগঠনিক নেত্রী আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বিতর্কিতদের ব্যাপারে উত্থাপিত অভিযোগগুলো ভালোভাবে যাচাই-বাছাই করার নির্দেশ দিয়েছেন। কারো বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে তাদেরকেও অব্যাহতি দেওয়ার নির্দেশ দেন সংগঠনের অভিভাবক শেখ হাসিনা। বিশেষ করে যাদের নামে খুনের মামলা, বিবাহ, মাদক ব্যবসার সংশ্লিষ্টতা, জামায়াত-বিএনপি পরিবার তথা মানবতাবিরোধী পরিবারের সঙ্গে সম্পৃক্ততা আছে তাদেরকেও চিহ্নিত করে অব্যাহতি দেওয়ার নির্দেশ দেন তিনি। এছাড়া যারা কমিটি ঘোষণার পর থেকে ক্ষোভ প্রকাশের নামে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি করছে তাদের ব্যাপারেও ক্ষোভ প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৮ জুলাই, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন