ঢাকা শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৯ ফাল্গুন ১৪২৬
৩০ °সে

বৃষ্টিতেও মান বাঁচল না সাকিবদের

বৃষ্টিতেও মান  বাঁচল না  সাকিবদের
এই বল দিয়েই দুই ইনিংসে ১১ উইকেট নিয়েছেন আফগান অধিনায়ক রশিদ খান। গতকাল ম্যাচ শেষে সাকিবের সঙ্গে আলাপচারিতায় হয়তো সেই গল্পই করছিলেন তিনি —বিসিবি

বৃষ্টি তখন একটু ধরে এসেছিল।

হাতে একটা ধূমায়িত চায়ের কাপ এবং মাথায় ছাতা নিয়ে মাঠে নেমে এলেন রশিদ খান। কাভারের দিকে চেয়ে রইলেন। তারপর অপলক দৃষ্টিতে অনেকটা সময় আকাশের দিকে চেয়ে রইলেন। মনেপ্রাণে যেন প্রার্থনা করছিলেন, বৃষ্টিটা থেমে যাক। নইলে কাছে এসে ডুবে যাবে আফগানিস্তানের এত বড়ো স্বপ্নের তরি।

শেষ পর্যন্ত তা হয়নি। আফগানিস্তানের স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। সারাদিন বৃষ্টির লুকোচুরি এড়িয়ে শেষ বিকেলে খেলা হয়েছে সামান্য সময়। আর তাতেই বাকি ৪ উইকেট হারিয়ে ১৭৩ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। আফগানিস্তান পেয়েছে ২২৪ রানের এক ঐতিহাসিক জয়। মাত্র তৃতীয় টেস্ট খেলতে নেমেই দ্বিতীয় জয় তুলে নিয়েছে তারা। এবার বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে ১৯ বছর ধরে টেস্ট ক্রিকেট খেলে আসা বাংলাদেশকে।

প্রথম ইনিংসে আফগানিস্তান করেছিল ৩৪২ রান। জবাবে বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে ২০৫ রানে অলআউট হয়। আফগানিস্তান দ্বিতীয় ইনিংসে করে ২৬০ রান। ফলে বাংলাদেশের সামনে জয়ের জন্য ৩৯৮ রানের বিশাল লক্ষ্য দাঁড়ায়।

আগের দিনই সেই লক্ষ্যে ছুটতে গিয়ে ৬ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল বাংলাদেশ। ৬ উইকেটে ১৩৬ রান নিয়ে দিন শুরু করে বাংলাদেশ। সাকিব আল হাসান ছিলেন ৩৯ রানে এবং সৌম্য সরকার শূন্য রানে অপরাজিত ছিলেন।

আগের রাতে সারারাত বৃষ্টি হয়েছে। সকাল থেকেও বৃষ্টি ছিল। বৃষ্টির অঝোরধারা একটু কমে এলে দুপুর ১টায় খেলা শুরু হয়। সাত মিনিটের বেশি সে খেলা হতে পারেনি। ১২টা বাজতেই আবার নামল ঝুম বৃষ্টি। এবার খেলা বন্ধ রইল বিকাল পর্যন্ত। বিকাল ৪টায় আবার শুরু হলো খেলা।

এবার খেলা শুরু হতে প্রথম বলেই সাকিব আল হাসান চেষ্টা করলেন জহির খানকে কাট করতে। কিন্তু উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফিরে এলেন তিনি। এরপর মেহেদী হাসান মিরাজ ইঙ্গিত দিচ্ছিলেন সৌম্য সরকারকে সঙ্গ দেওয়ার। কিন্তু তিনি রশিদ খানের শিকার হয়ে ফেরেন ১২ রান করে। পরপরই তাইজুলের উইকেট তুলে নেন রশিদ। ইনিংসে আবারও ৫ উইকেট নিলেন আফগান অধিনায়ক।

প্রথম আফগান ক্রিকেটার হিসেবে ম্যাচে ১০ উইকেট শিকারের কৃতিত্ব দেখালেন রশিদ। এ নিয়ে টানা তিন ইনিংসে ৫ উইকেট শিকার করলেন এই তরুণ লেগ স্পিনার।

শেষ ব্যাটসম্যান নাঈম হাসানকে নিয়ে সৌম্য সরকার প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেছিলেন, কিন্তু তাকেই আউট করে রশিদ খান উত্সব শুরু করেন। ম্যাচে ১১ উইকেট পান রশিদ খান। এর চেয়েও বড়ো প্রাপ্তি তার নেতৃত্বে জয়ের উত্সবে মাতল আফগানিস্তান।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
icmab
facebook-recent-activity
prayer-time
২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন