ঢাকা সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ১ পৌষ ১৪২৬
২১ °সে

উন্নয়ন-বৈষম্যের কারণে রংপুর বিভাগে শিল্পায়ন হচ্ছে না

মতবিনিময় সভায় উদ্যোক্তারা
উন্নয়ন-বৈষম্যের কারণে রংপুর বিভাগে শিল্পায়ন হচ্ছে না

স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর

উন্নয়ন-বৈষম্যের কারণে রংপুর অঞ্চলে শিল্পায়ন হচ্ছে না। ফলে কর্মসংস্থান সৃষ্টি না হওয়ায় রংপুর বিভাগে দিন দিন দারিদ্র্যের হার বাড়ছে। তাই রংপুর বিভাগের দারিদ্র্যের হার হ্রাসে প্রয়োজন দ্রুত শিল্পায়ন। গত শনিবার রংপুর চেম্বার ভবনের আরসিসিআই অডিটরিয়ামে দিনব্যাপী বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রিজ (বিসিআই) ও রংপুর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (আরসিসিআই) এর যৌথ উদ্যোগে রংপুর বিভাগের ধারাবাহিক শিল্প উন্নয়ন কার্যক্রম প্রণয়ন এবং বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় এসব কথা তুলে ধরেন রংপুর বিভাগের ব্যবসায়ী ও শিল্পোদ্যোক্তারা।

রংপুর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিসিআইয়ের সভাপতি ও বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি ইভেন্স গ্রুপের চেয়ারম্যান আনোয়ার-উল আলম চৌধুরী (পারভেজ)। মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন রংপুর চেম্বারের সাবেক সভাপতি, এফবিসিসিআইয়ের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট ও বিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু, বিসিআইয়ের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ইউনির্ভাসেল মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের চেয়ারম্যান প্রীতি চক্রবর্তী, বিসিআইয়ের পরিচালক দেলোয়ার হোসেন রাজা, আবুল কালাম ভূঁইয়া, দিনাজপুর চেম্বারের সভাপতি সুজাউর রব চৌধুরী, নীলফামারী চেম্বারের সিনিয়র সহসভাপতি ফারহানুল হক, রংপুর মেট্রোপলিটন চেম্বারের সিনিয়র সহসভাপতি মো. গোলাম জাকারিয়া পিন্টু, পঞ্চগড় চেম্বারের পরিচালক মো. খলিলুর রহমান, ঠাকুরগাঁও চেম্বারের পরিচালক মামুনুর রশিদ, রংপুর উইমেন চেম্বারের সিনিয়র সহসভাপতি শাহনাজ পারভীন, গাইবান্ধা চেম্বারের সভাপতি শাহজাদা আনোয়ারুল কাদির, কুড়িগ্রাম চেম্বারের সহসভাপতি অলক সরকার, লালমনিরহাট চেম্বারের সিনিয়র সহসভাপতি কাজী নজরুল ইসলাম তপন, রংপুর চেম্বারের সিনিয়র সহসভাপতি মোজতোবা হোসেন রিপনহসহ আরো অনেকে। বক্তারা বলেন, গ্যাস সরবরাহ না করা হলে কোনোভাবেই এ অঞ্চলে শিল্পায়ন সম্ভব নয়। কেননা এ অঞ্চলে গ্যাস সরবরাহ নিশ্চিত হলে এসব জেলা থেকে ভারত, নেপাল ও ভুটানের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়ার ব্যাপক সম্ভাবনা রয়েছে। তাই বক্তারা রংপুর বিভাগে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করার লক্ষ্যে অবকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি এ অঞ্চলের জন্য আলাদা শিল্প ও ঋণনীতি, ভ্যাট ও করনীতি প্রণয়ন, আইসিটি শিল্পের উন্নয়নে রংপুরে প্রস্তাবিত হাইটেক পার্ক দ্রুত স্থাপন, ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু, অঞ্চল ও জেলাভিত্তিক শিল্পায়নের উদ্যোগ গ্রহণ, দক্ষ শ্রমিক তৈরিতে কারিগরি বিশ্ববিদ্যালয় ও সার কারখানা স্থাপনসহ ট্যাক্স হলিডের মেয়াদ বৃদ্ধির আহ্বান জানান।

আনোয়ার-উল আলম চৌধুরী (পারভেজ) তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন, এ অঞ্চলের জন্য ট্যাক্স হলিডের মেয়াদ বৃদ্ধির পাশাপাশি অঞ্চল ও জেলাভিত্তিক শিল্পায়নের উদ্যোগ গ্রহণ করা প্রয়োজন। তিনি রংপুর বিভাগের সব জেলা চেম্বার এবং জনপ্রতিনিধিদের সম্পৃক্ততা ও সুপারিশ গ্রহণের বিষয়টি উল্লেখ করেন। সভাপতির বক্তব্যে রংপুর চেম্বারের প্রেসিডেন্ট মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটু বলেন, হাতেগোনা দুই চারটি ক্ষুদ্র শিল্প ছাড়া শিল্পায়ন বলতে রংপুর বিভাগে কিছু নেই। তাই তিনি অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে পড়া রংপুর বিভাগে শিল্পায়নের গতি ত্বরান্বিত করতে বিশেষ প্রণোদনা দেওয়ার আহ্বান জানান।

সভায় উদ্যোক্তারা জানান, এ অঞ্চলে কৃষিভিত্তিক এবং তৈরি পোশাকশিল্প স্থাপনের বিপুল সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া প্রতি জেলায় স্ব স্ব পণ্যের ওপর ভিত্তি করে শিল্প গড়ে তোলার ওপরও তারা গুরুত্বারোপ করেন। নারী উদ্যোক্তাগণ এসএমই প্রতিষ্ঠায় সরকার প্রদত্ত ঋণ প্রদান নীতিমালা যথাযথভাবে পরিপালন এবং হয়রানি ও জামানত-গ্যারান্টি ছাড়া ঋণ প্রদান নিশ্চিত করার জন্য বিশেষ দাবি জানান। তরুণ উদ্যোক্তারাও পুঁজির যোগানে স্বল্প সুদে ঋণ প্রদানের জোর দাবি জানান। শিল্পোদ্যোক্তারা গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোকে ৬ লেনে উন্নীতকরণের পাশাপাশি আকাশ পথসহ এ অঞ্চলের জেলাগুলোর যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়নে বিশেষ গুরুত্বারোপ করেন।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন