ঢাকা মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ২৪ চৈত্র ১৪২৬
৩৭ °সে

সিটি নির্বাচনে উত্তরে কামরুল, দক্ষিণে মিলন জাপার প্রার্থী

একজন সিনিয়র ও ছয় জন কো-চেয়ারম্যানের নাম ঘোষণা
সিটি নির্বাচনে উত্তরে কামরুল, দক্ষিণে মিলন জাপার প্রার্থী

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে দলীয় প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে জাতীয় পার্টি (জাপা)। উত্তরে ব্রি. জে. (অব.) কামরুল ইসলাম, দক্ষিণে হাজি সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলনকে গতকাল রবিবার দলের মেয়র প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেন জাপা চেয়ারম্যান জি এম কাদের। হাজি মিলন গতবারও দক্ষিণে দলের মেয়র পদে প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। আর অবসরপ্রাপ্ত সামরিক কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম জাপায় যোগ দেন গত মঙ্গলবার।

আনিস সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান :এদিকে কাউন্সিলের পরদিন গতকাল দলের এক জন সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ও ছয় জন কো-চেয়ারম্যানের নাম ঘোষণা করেছেন জি এম কাদের। সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান করা হয়েছে ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদকে। আর কো-চেয়ারম্যান হয়েছেন এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, কাজী ফিরোজ রশীদ, জিয়া উদ্দিন আহমেদ বাবলু, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, মুজিবুল হক চুন্নু ও সালমা ইসলামকে। জাপার আগের গঠনতন্ত্রে একজন সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ও একজন কো-চেয়ারম্যানের পদ ছিল। শনিবার অনুষ্ঠিত দলের কাউন্সিলে কো-চেয়ারম্যানের সংখ্যা বাড়িয়ে ছয় জন করে গঠনতন্ত্রে সংশোধনী আনা হয়।

কাউন্সিলের আগ পর্যন্ত সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ছিলেন সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ। তার জন্য ক্ষমতাহীন ও আলংকারিক পদ ‘প্রধান পৃষ্ঠপোষক’ সৃজন করায় এখন তার আগের পদে স্থলাভিষিক্ত হলেন ব্যারিস্টার আনিস। জাপার দায়িত্বশীল একাধিক নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, চেয়ারম্যান পদে বহাল থাকতে জি এম কাদেরকে কয়েক নেতার সঙ্গে আপস করতে হয়েছে, যার কারণে কাদেরের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে সেপ্টেম্বরে রওশনকে দলের পালটা চেয়ারম্যান ঘোষণাকারী ব্যারিস্টার আনিসকে এই পদ দেওয়া হয়। এরশাদের মৃত্যুর পর দলের নেতৃত্ব ও নিয়ন্ত্রণ প্রশ্নে কাদেরের বিরোধিতাকারী সাবেক মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার ও মুজিবুল হক চুন্নুকে কো-চেয়ারম্যান করা হয়েছে।

এদিকে কাউন্সিলের মাধ্যমে দলের চেয়ারম্যান হতে চেয়েও না পেরে ক্ষুব্ধ হন রওশন। কাউন্সিলে না গিয়ে রওশন গতকাল সকালে নিজের গুলশানের বাসায় রংপুরের নেতাদের নিয়ে বৈঠক করেন। ঐ বৈঠকে থাকা একজন নেতা ইত্তেফাককে জানান, কাউন্সিল ও দলের নতুন নেতৃত্বের প্রশ্নে রওশন বলেছেন, এখনই উত্তেজিত না হয়ে সবাইকে ধৈর্য ধরতে হবে। অন্যদিকে দলের চেয়ারম্যান পদে বহাল থাকা জি এম কাদের রওশনের সঙ্গে দেখা করতে যাননি। এ নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন রওশনের ঘনিষ্ঠজনেরা।

অন্যদিকে, কাউন্সিলে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় গতকাল বনানী কার্যালয়ে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানাতে আসা নেতাকর্মীদের উদ্দেশে জি এম কাদের বলেছেন, কিছুদিন আগেও বিভিন্ন টকশোতে আলোচকেরা বলতেন জাপা ক্ষয়িষ্ণু রাজনৈতিক দল, এরশাদ মারা গেলেই জাপা বিলীন হয়ে যাবে। কিন্তু এরশাদের ভক্ত-অনুসারীরা কাউন্সিলে প্রমাণ করেছেন যে জাপা ক্ষয়িষ্ণু নয়, এটা বর্ধিষ্ণু রাজনৈতিক শক্তি।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
icmab
facebook-recent-activity
prayer-time
০৭ এপ্রিল, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন