ঢাকা মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ২৪ চৈত্র ১৪২৬
৩০ °সে

ঘর থেকে বের হলেই পড়তে হবে জেরায়

ঘর থেকে বের  হলেই পড়তে  হবে জেরায়
গতকাল অনেক স্থানে কিছু পুলিশ সদস্যকে রাস্তায় সাধারণ মানুষকে এভাবেই কান ধরে ওঠবস করাতে দেখা গেছে —ইত্তেফাক

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের কবলে পড়েছে বাংলাদেশ। এর প্রাদুর্ভাব রোধে সরকার সচেতনমূলক নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। সেই সঙ্গে জনগণকে ঘর থেকে বের না হতেও নিষেধ করেছে। যারা ঘর থেকে রাস্তায় বের হবেন তাদেরই পড়তে হবে সেনাবাহিনী, র্যাব ও পুলিশের জেরার মুখে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাজধানীতে এমন দৃশ্যই চোখে পড়েছে।

পুলিশ সদর দফতরের এআইজি মিডিয়া মো. সোহেল রানা বলেন, আমরা জনগণকে করোনা ভাইরাসের বিষয়ে সচেতন করতে নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছি। এর পরও জনগণকে যেন নিরাপদে রাখা যায় তারই অংশ হিসেবে তাদের ঘরে থাকা নিশ্চিত করার কাজ শুরু হয়েছে। এ কারণে অনুরোধ থাকবে কেউ যেন জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হন। সে ক্ষেত্রে তাদের জেরার মুখোমুখি হতে হবে। উপযুক্ত কারণ ব্যাখ্যা করতে না পারলে তার বিরুদ্ধে দেশের প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বৃহস্পতিবার (গতকাল) থেকে আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত এ ব্যবস্থা বলবত্ থাকবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

জানা গেছে, পরিস্থিতি নিয়ে পুলিশ কর্মকর্তারা বৈঠক করেছেন। পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) জাবেদ পাটোয়ারী বুধবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কর্মকর্তাদের এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছেন। লোকজন যাতে রাস্তায় বের না হতে পারে, সেটা নিশ্চিত করতে বলেছেন।

একাধিক থানা পুলিশের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বেশির ভাগ সময়ই তাদের এখন কাটছে মানুষজনকে ঘরে রাখার ব্যবস্থা করতে। তাদের সার্বক্ষণিক টহল চলছে। প্রতি থানায় দুটি করে বিশেষ টিম করা হয়েছে। তাদের কাজ হলো জনগণ যেন কোনোভাবেই রাস্তায় না থাকতে পারে এবং একই সঙ্গে কোথাও যাতে জনসমাগম হতে না পারে, সে ব্যবস্থা করা। এ কারণে বলা যায় গতকাল থেকে এক প্রকার লকডাউন শুরু হয়েছে। সেক্ষেত্রে ভাইরাসটি মোকাবিলায় সবাইকে সহযোগিতা করতে হবে।

এদিকে আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) সূত্র জানায়, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে কাজ শুরু করেছে সশস্ত্র বাহিনী। রাস্তায় টহল দিচ্ছেন সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা। তারা বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে নাগরিকদের হোম কোয়ারেন্টাইনের বিষয়টি নিশ্চিত করছেন।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
icmab
facebook-recent-activity
prayer-time
০৭ এপ্রিল, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন