ঢাকা বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১১ বৈশাখ ১৪২৬
২৭ °সে

তজুমদ্দিন ও খুলনায় নির্বাচনী সংঘর্ষে আহত ৪০

তজুমদ্দিন ও খুলনায় নির্বাচনী সংঘর্ষে আহত ৪০

তজুমদ্দিনে সোমবার রাতভর নির্বাচনী সহিংসতায় অন্তত ৩০ জন আহত ও নয়জন আটক হয়েছে। এছাড়া, খুলনায় উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত হয়েছে ১০ জন।

তজুমদ্দিন (ভোলা) সংবাদদাতা জানান, ভোলার তজুমদ্দিনে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দুই পক্ষের সহিংসতা ও পাল্টপাল্টি অভিযোগে পরিবেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠছে। সোমবার রাতভর উপজেলার চাঁচড়া ও সোনাপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ ফজলুল দেওয়ান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মোশারফ হোসেন দুলালের সমর্থকদের মধ্যে ব্যাপক সহিংসতা হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় দুই পক্ষের প্রায় ৩০ জন আহত হয়েছেন। একটি মোটরসাইকেলে আগুন ও দুইটি মোটর সাইকেল লুট হয়েছে। পুলিশ ৯ জনকে আটক করেছে। এ ব্যাপারে ওসি ফারুক আহম্মেদ জানান, এ ঘটনায় নৌকার সমর্থক মানু মিয়া বাদী হয়ে ১৬ জনকে এজহারভুক্ত করে অজ্ঞাত আরো ১২০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষেও মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

খুলনা অফিস ও ডুমুরিয়া সংবাদদাতা জানান, খুলনায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। গত সোমবার রাতে ডুমুরিয়া উপজেলার চুকনগর এবং শাহাপুর বাজারে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন- আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মোস্তফা সরোয়ারের সমর্থক চুকনগর গ্রামের আশরাফ গাজী ও আব্দুস সামাদ শেখ এবং শাহাপুর এলাকার বাপ্পী সরদার ও সাইফুল মোড়ল এবং আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী গাজী এজাজ আহমদের সমর্থক চুকনগর এলাকার ইকবল গাজী, গফুর গাজী, মফিজ গাজী এবং শাহাপুর এলাকার অনি মোল্লা, সাদ্দাম গাজী ও আলী রেজা রাজু । এদের মধ্যে গুরুতর আহত আশরাফ গাজীকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্র জানায় গত সোমবার রাত ১০টার দিকে ডুমুরিয়া উপজেলার চুকনগর বাজারের একটি দোকানের সামনে মোটরসাইকেল রাখাকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী মোস্তফা সরোয়ারের সমর্থক ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী গাজী এজাজ আহমদের সমর্থকদের মধ্যে প্রথমে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও ইট-পাটকেল নিক্ষেপ শুরু হয়। এ খবর শাহাপুর এলাকায় পৌঁছালে শাহাপুর বাজারে ঘোড়া প্রতীকের প্রার্থীদের সঙ্গে নৌকা প্রতীকের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ ঘটে। এতে উভয় গ্রুপের ১০ জন আহত হয়। এ ঘটনার পর সমগ্র ডুমুরিয়া উপজেলায় উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ব্যাপারে ডুমুরিয়া থানার ওসি মো. আমিনুল ইসলাম বিপ্লব বলেন, ঘটনার পর এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। উভয় পক্ষ পরস্পরকে দোষারোপ করে থানায় অভিযোগ দাখিল করেছেন।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২৪ এপ্রিল, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন