ঢাকা শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬
৩৪ °সে


আরো এক আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

ধর্ষক বোরহান এখনো অধরা
আরো এক আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

আটদিনের রিমান্ডের শেষদিনে গতকাল বুধবার বিকালে আদালতে চলন্ত বাসে নার্স শাহিনুর আক্তার তানিয়াকে ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় গ্রেফতার আসামি কটিয়াদী বাসস্ট্যান্ডের কাউন্টার মাস্টার রফিকুল ইসলাম রফিক স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছেন। কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আল মামুন ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন। তার বাড়ি গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার লোহাদি গ্রামে। এই নিয়ে মোট তিনজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলো। এর আগে গত শনিবার একই আদালতে স্বর্ণলতা প্রাইভট লিমিটেডের যে বাসে নৃশংস ঘটনাটি ঘটেছিল সেই বাসের ড্রাইভার নূরুজ্জামান নূরু এবং গত মঙ্গলবার হেলপার লালন মিয়া নিজেদের ধর্ষণ ও হত্যাকাণ্ডে সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন।

কিশোরগঞ্জের পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ জানান, জবানবন্দিতে রফিক ঘটনার সঙ্গে কারা কারা জড়িত ছিল এবং তানিয়াকে কিভাবে বাস থেকে নামিয়ে কটিয়াদী হাসপাতালে নেওয়া হয় এর বিবরণ দেন। তবে তিনি নিজে ধর্ষণ বা হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেন। পরে তাকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়। এদিকে আটদিনের রিমান্ড শেষে অপর দুই আসামি বকুল মিয়া ওরফে ল্যাংড়া বকুল এবং খোকন মিয়াকেও গতকাল আদালতে হাজির করা হয় এবং পরে বিচারক উভয়কে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন।

ধর্ষক বোরহান এখনো অধরা

কটিয়াদী (কিশোরগঞ্জ) সংবাদদাতা জানান, কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে চলন্ত বাসে নার্স শাহিনুর আক্তার তানিয়াকে (২৪) গণধর্ষণ শেষে হত্যার চাঞ্চল্যকর মামলার ড্রাইভার নূরুজ্জামান নূরু ও হেলপার লালন মিয়ার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি অনুযায়ী অন্যতম হত্যাকারী ধর্ষক বোরহানসহ অন্যরা এখনো অধরা। এ ঘটনায় কটিয়াদী উপজেলাসহ সারা দেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন মানববন্ধন ও গণস্বাক্ষর কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছে।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৯ জুলাই, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন