ঢাকা শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬
২৮ °সে


রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুেকন্দ্র প্রকল্পে অগ্নিকাণ্ডে উদ্বেগ

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুেকন্দ্র প্রকল্পে অগ্নিকাণ্ডে উদ্বেগ

নির্মাণাধীন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুেকন্দ্রের কুলিং টাওয়ার-২ এর নিকটবর্তী স্থানের কনটেইনারের ভেতরে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় প্রকল্প এলাকায় চলমান কাজে অমনোযোগিতা ও নিরাপত্তামূলক প্রস্তুতি নিয়ে অভিযোগ উঠেছে। বিদ্যুেকন্দ্রের অগ্নিনিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে। তবে প্রকল্প পরিচালক দাবি করেছেন, এটি একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা। এতে মূল কেন্দ্রের কোনো ক্ষতি হয়নি।

ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতা জানান, গত শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ঈশ্বরদীতে বিদ্যুত্ প্রকল্প এলাকার ভেতরে কনটেইনারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। নির্মাণ কাজে নিয়োজিত সাব ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ম্যাক্স কোম্পানির ২৯ নম্বর অফিস নির্মাণে ওয়েল্ডিং কাজের সময় বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট হতে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। এ সময় অফিস ও দুটি কনটেইনারের মালামাল পুড়ে যায়।

প্রকল্প এলাকায় কর্মরত এক প্রকৌশলী জানান, রূপপুর প্রকল্পে ছোটোবড়ো সব কাজেই সতর্কতা অবলম্বন করা হয়। মনোযোগ ও সতর্ক ব্যবস্থা নিয়ে কাজ করা হলে অগ্নিকাণ্ড হওয়ার কথা নয়। এতে সংশ্লিষ্ট কারো অমনোযোগ এবং দায়িত্বহীনতা রয়েছে। তিনি আরো বলেন, নির্মাণাধীন বিদ্যুেকন্দ্রের কুলিং টাওয়ারের কাছে ঐ আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিস দ্রুত সময়ে নিভিয়ে ফেলে। আগুন দীর্ঘায়িত হলে নির্মাণ কাজে বড়ো ধরনের দেরি হওয়ার আশঙ্কা ছিল।

তবে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার সঙ্গে মূল কেন্দ্রের কোনো সম্পর্ক নেই বলে জানিয়েছেন প্রকল্পের পরিচালক ড. সৌকত আকবর। তিনি বলেন, কুলিং টাওয়ার-২ এর কাছে একটি সাব ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের অফিস নির্মাণের জন্য ওয়েল্ডিং কাজের সময় বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট হতে কনটেইনারে আগুন লাগে। এটি প্রকল্পের মূল প্ল্যান্টের কাজের অংশ নয়। প্রকল্পের নিজস্ব ফায়ার সার্ভিস দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এটি একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা। তিনি আরো বলেন, ঠিকাদারদের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তি অনুযায়ী সকল প্রকার ইন্ডাস্ট্রিয়াল ও ফায়ার সেফটির দায়িত্ব ঠিকাদারের। তাই ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুত্ প্রকল্পের পক্ষ হতে মূল ঠিকাদার রাশিয়ার এটমস্ট্রয় এক্সপোর্টের ভাইস প্রেসিডেন্টকে চিঠি দিয়ে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। চিঠিতে অতি দ্রুত ঘটনার তদন্ত ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলা হয়েছে। এ ছাড়াও দেশের গুরুত্বপূর্ণ ও আর্থিকভাবে সবচেয়ে বড়ো এ প্রকল্পের সুনাম রক্ষার কথা উল্লেখ করে প্রেরিত চিঠিতে প্রকল্পের কারিগরি ও প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থা আরো জোরদার এবং ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে সে বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে।

এদিকে, ঈদের পর আগামী ১৭ আগস্ট বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী ইয়াফেস ওসমানের নেতৃত্বে একটি দল ঈশ্বরদীর রূপপুরে প্রকল্প এলাকায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এটমস্ট্রয় এক্সপোর্টের সঙ্গে জরুরি ভিত্তিতে বৈঠক করবে বলে জানা গেছে।

পাবনার রূপপুরে নির্মাণাধীন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুেকন্দ্রে মোট ২ হাজার ৪০০ মেগাওয়াট বিদ্যুত্ উত্পাদিত হবে। ১২০০ মেগাওয়াটের প্রথম ইউনিট ২০২৩ সালে এবং অপর ইউনিটটি ২০২৪ সালে চালু হওয়ার কথা রয়েছে।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২৪ আগস্ট, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন