ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
২১ °সে


ইলিশ ধরা নিয়ে পদ্মায় বিজিবি-বিএসএফ গোলাগুলি

বিএসএফ কনস্টেবল নিহত
ইলিশ ধরা নিয়ে পদ্মায়  বিজিবি-বিএসএফ গোলাগুলি

রাজশাহীর চারঘাটে পদ্মা নদীতে ভারতীয় জেলেদের নিষিদ্ধ মা ইলিশ শিকারের ঘটনায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও ভারতীয় বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সের (বিএসএফ) সদস্যদের মধ্যে গোলাগুলি হয়েছে। এ ঘটনায় বিএসএফের হেড কনস্টেবল বিজয় ভান সিং নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ভারতের নৌকার মাঝি এক কনস্টেবল। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে চারঘাট উপজেলা সদরের বালুঘাট এলাকার পদ্মা ও বড়াল নদীর মোহনায় মাঝ নদীতে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার পরপর বিএসএফ সদস্যরা মাঝ নদী থেকে আহতদের নিয়ে ভারতীয় সীমান্তের অভ্যন্তরে চলে যায়। তবে বিজিবি ভারতীয় জেলে চাই মণ্ডল ও তার নৌকা আটক করেছে। সারাদেশে মা ইলিশ রক্ষায় গত ৯ অক্টোবর থেকে আগামী ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ করেছে সরকার। মা ইলিশ রক্ষার জন্য সারাদেশে ইলিশের প্রজনন এলাকায় বিজিবি, নৌ-পুলিশ, কোস্ট গার্ডের নদী ও উপকূলবর্তী এলাকায় টহল চলছে। এরই অংশ হিসাবে চারঘাট উপজেলা মত্স্য কর্মকর্তা আরিফুল ইসলামের নেতৃত্বে বিজিবির সদস্যদের নিয়ে পদ্মায় টহল চলছিল। এসময় বাংলাদেশের জলসীমায় ভারতীয় নৌকায় ইলিশ মাছ ধরতে দেখে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় বিজিবি ও বিএসএফের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।

এ ব্যাপারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের বলেন, রাজশাহীর চারঘাট সীমান্তে পদ্মায় মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে বিএসএফ সদস্যরা বাংলাদেশ সীমান্তের ৫০০ গজ ভিতরে এলে অনাকাঙ্ক্ষিত গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। তাতে এক বিএসএফ সদস্য নিহত হয়েছেন।

বিজিবির রাজশাহীর এক ব্যাটালিয়নের অতিরিক্ত পরিচালক মেজর আসিফ বুলবুল সাংবাদিকদের কাছে বিজিবি-বিএসএফ গুলিবিনিময়ের বিষয়টি নিশ্চিত করলেও আটক জেলের নাম প্রকাশ করেননি এবং বিএসএফ সদস্য হতাহতের বিষয়ে কিছুই বলেননি। এছাড়া কত রাউন্ড গুলিবিনিময় হয়েছে তাও বলেননি তিনি। তবে মেজর আসিফ বুলবুল সাংবাদিকদের বলেছেন, এক ভারতীয় জেলে বিজিবির হাতে আটক রয়েছেন। শুনেছি গুলিবিনিময়ের ঘটনা ঘটেছে।

চারঘাট উপজেলা মত্স্য কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম বলেন, প্রজনন মৌসুমের জন্য পদ্মায় ইলিশ শিকারে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এ অবস্থায় জেলেরা যেন পদ্মায় ইলিশ শিকার করতে না পারে, সে জন্য বিজিবি সদস্যদের নিয়ে তারা বৃহস্পতিবার সকালে অভিযানে যান। এসময় তারা দেখেন, পদ্মা-বড়ালের মোহনায় বাংলাদেশ সীমানার অভ্যন্তরে একটি নৌকায় করে তিন ইলিশ শিকার করছে। তিনি আরো বলেন, তারা কাছাকাছি গিয়ে বুঝতে পারেন, ঐ জেলেরা ভারতীয়। এসময় তারা ঐ জেলেদের আটকের চেষ্টা করেন। এ সময় দুই জেলে নৌকা থেকে লাফিয়ে পড়ে সাঁতরে পালিয়ে যান। ফলে তারা নৌকাসহ এক জনকে আটক করতে সক্ষম হন। এ সময় পালিয়ে যাওয়া জেলেরা গিয়ে বিএসএফকে বিষয়টি অবহিত করে। খবর পেয়ে বিএসএফ সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসেই গালাগালি শুরু করেন। বিজিবি সদস্যরা প্রতিবাদ করলে বিএসএফ সদস্যরা গুলিবর্ষণ করে। তখন আত্মরক্ষার্থে বিজিবির পক্ষ থেকেও পালটা গুলিবর্ষণ করা হয়। একপর্যায়ে বিএসএফ সদস্যরা পিছু হটতে বাধ্য হন। পরে তারা এক ভারতীয় জেলে এবং তার নৌকা আটক করে বিজিবির চারঘাট করিডর সীমান্ত ফাঁড়িতে নিয়ে আসেন।

এদিকে, ঘটনার পর গতকাল সন্ধ্যায় বাংলাদেশের ভারতীয় হাইকমিশন থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আলোচনা শেষে বিএসএফ সদস্যরা যখন ফিরে যাচ্ছিলেন, তখনই বিজিবি পেছন থেকে গুলি চালায়। এতে মাথায় গুলিবিদ্ধ হন হেড কনস্টেবল বিজয় ভান সিং এবং হাতে গুলিবিদ্ধ হন নৌকার মাঝি আরেক কনস্টেবল। হাসপাতালে নেওয়ার পর বিজয় ভান সিংকে চিকিত্সকরা মৃত ঘোষণা করেন। এছাড়া গুলিবিদ্ধ অন্য কনস্টেবল মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজে চিকিত্সাধীন।

এদিকে, এ ঘটনায় বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল সাফিনুল ইসলাম বলেছেন, মত্স্য অধিদপ্তরের নেতৃত্বে মা ইলিশ রক্ষার অভিযান পরিচালিত হয়। বাংলাদেশের ৫০০ গজ ভিতরে ভারতীয় জেলেরা ইলিশ শিকার করছিল। এসময় তিন ভারতীয় জেলেকে আটক করে মত্স্য অধিদপ্তর। ভারতীয় বিএসএফ সদস্যরা গেঞ্জি ও হাফপ্যান্ট পরিহিত ছিলেন। এক ভারতীয় জেলে ও এক নৌকা মত্স্য অধিদপ্তরের কাছে আটক আছে। দুই জেলেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২১ নভেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন