ঢাকা শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
১৮ °সে

অবৈধ বিদ্যুত্সংযোগ বিচ্ছিন্ন করুন

অবৈধ বিদ্যুত্সংযোগ বিচ্ছিন্ন করুন

বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির জন্য চলছে গণশুনানি। ১ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া গণশুনানিতে বক্তারা বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির বিরুদ্ধে প্রতিবাদমূলক বক্তব্য দেন। বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে এর প্রভাব নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের ওপর গিয়ে পড়বে। আর বিপাকে পড়বে সাধারণ মানুষ। বিদ্যুতের চাহিদা মেটানো এবং ঘাটতি পূরণের জন্য মূল্য বৃদ্ধি না করে অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার উদ্যোগ নেওয়া জরুরি। বিদ্যুত্ বিভাগের একশ্রেণির অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারী সারা দেশে অসংখ্য অবৈধ বিদ্যুত্ সংযোগ দিয়ে মাসিক হারে টাকা আদায় করছে। পত্রপত্রিকায় এসংক্রান্ত সংবাদও প্রকাশিত হয়েছে। কিন্তু প্রতিরোধের কোনো পদক্ষেপই চোখে পড়ে না। বিদ্যুতের ঘাটতি পূরণের জন্য সহজ পন্থা হিসাবে নামমাত্র একটি গণশুনানির ব্যবস্থা করা হয়। এতে বক্তাদের বক্তব্যের কোনো গুরুত্ব না দিয়ে পরবর্তী সময়ে বাড়ানো হয় বিদ্যুতের দাম। ভোক্তাদের কিছুই করার থাকে না। বরং বিদ্যুতের অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে বিদ্যুত্খাতকে লাভজনক প্রতিষ্ঠান হিসাবে গড়ে তোলা এবং দুর্নীতিমুক্ত বিদ্যুত্ বিভাগ করার পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি।

বিলিং ম্যান ও মিটার রিডার হিসাবে কাজ করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে অনেক বিদ্যুত্-কর্মচারী। তাদের বিরুদ্ধে কেন কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না তার কি জবাব কর্তৃপক্ষের কাছে আছে? ঢাকা শহরের বস্তিগুলোতে যে বিদ্যুত্ ব্যবহার করা হচ্ছে তা কি বৈধ লাইন? অবৈধ লাইন হলে কারা এই বিদ্যুত্ সংযোগ দিল, বা কিভাবে তারা এই বিদ্যুত্ ব্যবহার করছে তার কি কোনো জবাব আছে? ঢাকা শহরের অনেক ফ্লাট বাড়িতে অবৈধভাবে বিদ্যুত্ সংযোগ নেওয়া হচ্ছে সংশ্লিষ্ট কর্মচারীদের মাশোহারা দিয়ে। তাই বলব—মূল্য বৃদ্ধি নয়, গণশুনানি নয়, অবৈধ বিদ্যুত্ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করুন। জনগণকে যথাযথ নিয়মে বিদ্যুত্ ব্যবহারে উত্সাহিত করুন।

মো. সোয়েব মেজবাহউদ্দিন

মোহাম্মদপুর, ঢাকা

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন