ঢাকা সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০১৯, ৯ বৈশাখ ১৪২৬
২৪ °সে

নবাবগঞ্জে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে পাঠদান

নবাবগঞ্জে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে পাঠদান
দোহার-নবাবগঞ্জ (ঢাকা): তেলেঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ঝুঁকিপূর্ণ ভবন এবং এর ভেতরের হাল —ইত্তেফাক

ঢাকার নবাবগঞ্জের ৪৬নং তেলেঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে শিক্ষার্থীদের পাঠদান চলছে। যেকোনো সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।

জানা যায়, ১৯৭৩ সালে বিদ্যালয়টি সরকারিকরণ করা হয়। এরপর থেকে টিন ও কাঠের ক্লাস রুমে চলতো পাঠদান। বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে ৫ কক্ষ বিশিষ্ট ২টি ভবনে চলছে শিক্ষাদান। স্কুলটিতে প্রাক-প্রাথমিকসহ ৩টি ক্লাস রুম। একটি অফিস কক্ষ ও একটি জীর্ণ পরিত্যক্ত কক্ষ রয়েছে।

সরেজমিন পরিদর্শন করে ও বিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ১৯৯৩ সালে ৩ কক্ষবিশিষ্ট একটি পাকাভবন পরে ২০০৯ সালে ২ কক্ষবিশিষ্ট আরও একটি পাকা ভবন নিয়ে বিদ্যালয়টি চলছে। এর মধ্যে ৩ কক্ষবিশিষ্ট পাকা ভবনটির ভিম ও কলামে ফাটল ধরেছে। দেয়ালে ও ছাদে নোনা ধরে চুন প্লাস্টার খসে পড়ছে। কয়েকটি স্থানে দেখা দিয়েছে বড় ফাটল। এ অবস্থায় শিক্ষার্থীরা ঝুঁকি নিয়ে ক্লাস করছে।

তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী মদিনা জানায়, ছাদের ভিমে ফাটল থাকায় নিচে কিছুটা দূরে বেঞ্চ বসানো হয়েছে যাতে প্লাস্টার ভেঙে শরীরে না পড়ে। একই ক্লাসের আবু সুফিয়ান জানায়, শ্রেণিকক্ষের সংকট- তাই ঝুঁকি নিয়েই ক্লাস করছি।

প্রধান শিক্ষক মরিয়ম আক্তার জানান, ভবনের সংকট থাকায় ঝুঁকিপূর্ণ জেনেও অফিস কক্ষ থেকে সরে যেতে পারিনি। শুধু ভবন নয়, রয়েছে শিক্ষক সংকটও। বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক বলেন, এ অবস্থা গত কয়েক বছর ধরে চলছে। পরিবেশ ভালো না থাকায় শিক্ষার্থীরা পার্শ্ববর্তী মাদ্রাসায় চলে যাচ্ছে। আমি সভাপতি হওয়ার পর উপজেলা শিক্ষা অফিসে স্কুল ভবন সংস্কারের ব্যাপারে তাগিদ দিয়ে আসছি। এ বিষয়ে উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আহসান বলেন, ওই ভবনে ক্লাস নেয়া বন্ধ করা হবে। উপজেলা প্রকৌশলী অফিস ভবন পরীক্ষা করবেন। ঝুঁকিপূর্ণ হলে ভবনটিকে পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হবে।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২২ এপ্রিল, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন