ঢাকা মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬
২৮ °সে


আশুলিয়ায় ধর্ষণের শিকার দুই তরুণী

গ্রেফতার তিন
আশুলিয়ায় ধর্ষণের  শিকার দুই তরুণী

সাভারের আশুলিয়ায় দুই তরুণী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এদের মধ্যে এক গার্মেন্টকর্মীকে দলবদ্ধভাবে ধর্ষণ করেছে দুর্বৃত্তরা। পুলিশ ধর্ষণের ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে তিনজনকে গ্রেফতার করেছে। সোমবার দিবাগত রাতে উপজেলার উত্তর গাজীরচট ভূইয়াপাড়া মহল্লার ফজল ভূইয়ার মালিকানাধীন ভাড়া বাড়ি এবং একটি পরিত্যক্ত কারখানায় এই ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে।

ধর্ষণের শিকার দুই নারীকে মঙ্গলবার সকালে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। গার্মেন্টকর্মীকে দলবদ্ধভাবে ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতারকৃতরা হলো- শেরপুর জেলার সদর থানার সাতমাড়িয়া গ্রামের মৃত মুরাদ হোসেনের ছেলে কাইয়ূম ও পাবনার ঈশ্বরদী থানার মুসোরিয়া গ্রামের নূর মোহাম্মদের ছেলে তুহিন আলম । এছাড়া কারখানায় তরুণীকে ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত অপরজন হলো- আশুলিয়া এলাকার বাসিন্দা গাড়ি চালক শারফিন (৩২)।

পুলিশ জানায়, উত্তর গাজীরচট এলাকার ফজল ভুঁইয়ার বাড়ির ভাড়াটিয়া এক গার্মেন্টকর্মীকে গত তিন মাস ধরে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল স্থানীয় কাইয়ূম নামে এক ব্যক্তি। কিন্তু গার্মেন্টসকর্মী তার কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বাড়ির ম্যানেজার তুহিনের সঙ্গে পরিকল্পনা আঁটে কাইয়ূম। পরে সোমবার দিবাগত রাতে ঐ নারী শ্রমিক নিজ কক্ষ থেকে বের হলে কৌশলে তার মুখে রুমাল দিয়ে অচেতন করে ঐ বাড়ির অন্য একটি কক্ষে নিয়ে যায় কাইয়ুম। পরে কাইয়ুম ও তুহিন মিলে ঐ নারীকে রাতভর ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ঐ নারী শ্রমিক আশুলিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে রাতেই অভিযান চালিয়ে দুই ধর্ষককে আটক করে পুলিশ।

অন্যদিকে উত্তর গাজীরচট এলাকার ফজল ভুঁইয়ার মালিকানাধীন একটি পরিত্যক্ত কারখানায় চাকরি দেওয়ার কথা বলে এক তরুণীকে ডেকে নেয় শারফিন নামে এক গাড়ি চালক। পরে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে সেখানে রেখে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ঐ তরুণীর অভিযোগের ভিত্তিতে রাতেই গাজীরচট এলাকায় অভিযান চালিয়ে শারফিনকে আটক করে পুলিশ।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন