ঢাকা মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬
২৮ °সে


বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতি

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি প্রস্তুতি

কেন পড়বেন ‘আর্কিটেকচার’

বাংলাদেশের বিভিন্ন গৃহনির্মাণ প্রতিষ্ঠান, রিয়েল এস্টেট ফার্ম, ইন্টেরিয়র ডিজাইনিং ফার্মে আর্কিটেকচার ও সিভিল ইঞ্জিনিয়ারদের যথেষ্ট চাহিদা রয়েছে। উন্নত আবাসন প্রকল্প, আধুনিক অফিস ও বিপণি বিতান ডিজাইন ও নির্মাণে আর্কিটেকচার ও সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংু এর চাহিদা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। সেই সঙ্গে বাড়ছে চাকরির সুযোগ। তাই ক্যারিয়ার হিসেবে আর্কিটেকচার ও সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বেছে নিতে পারেন অনেকে। কিন্তু তার জন্য চাই আপনার ভালো একটা প্রতিষ্ঠান থেকে এ বিষয়ের উপর ৪ বছর মেয়াদী ডিগ্রি অর্জন। আর এ ডিগ্রীর অর্জনের লক্ষ্যটা যদি হয় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তাহলে আপনাকে কীভাবে এগুতে হবে এ নিয়ে আয়োজন।

আর্কিটেকচারে কেন পড়বেন?

আর্কিটেকচারাল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ে কাজ নিতে পারা যায় বিভিন্ন আর্কিটেকচারাল ফার্ম, রিয়েল এস্টেট কোম্পানী, সরকারি আরবান প্ল্যানিং বিভাগ ইত্যাদিতে। তাছাড়া সাধারণ শিক্ষায় শিক্ষিত অনেক সার্টিফিকেটধারীও আজকাল চাকরির অনিশ্চয়তায় ভোগেন। সেই তুলনায় কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিতদের বেকারত্বের অনিশ্চয়তা নেই বললেই চলে কারণ এর রয়েছে বাস্তব জ্ঞান এবং কর্মক্ষেত্রে এই জ্ঞান কাজে লাগানোর সুযোগ। আর কারিগরি শিক্ষার মধ্যে অন্যতম হলো আর্কিটেকচার এবং সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং।

শাবিতে ভর্তির ক্ষেত্রে যেভাবে প্রস্তুতি নিবেন

শাবির ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা আগামী ২৬ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। সেক্ষেত্রে এ স্বল্প সময়ে আপনি কিভাবে প্রস্তুতি নেবেন এ বিষয়ে বলছিলেন বিভাগটির ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী নওরীন জাহান প্রীতি। তার কথায়, শাবির ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা দুই ভাগে হয়ে থাকে। বি-১ ও বি-২। ‘বি-১’ এর সাবজেক্ট সমূহ হল, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগ, রসায়ন বিভাগ , গণিত বিভাগ, পরিসংখ্যান বিভাগ, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, ক্যামিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড পলিমার সায়েন্স বিভাগ, ইন্ডাষ্ট্রিয়াল অ্যান্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, সিভিল অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, ইলেকট্রিকাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, ফুড ইঞ্জিনিয়ারিং টি টেকনোলজি বিভাগ, পেট্রোলিয়াম এ্যান্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, জিওগ্রাফি অ্যান্ড ইকোলজি বিভাগ, মিকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, সমুদ্র বিজ্ঞান বিভাগ, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বায়োটেকনোলজি বিভাগ, বায়োক্যামেস্ট্রি অ্যান্ড মলিকিউলার বায়োলজি বিভাগ এবং ফরেষ্ট্রি এ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স। আর ‘বি-২’ এ একমাত্র আর্কিটেকচার বিভাগ।

যারা আর্কিটেকচার এ পড়তে চান তাদেরকে উভয় গ্রুপে পরীক্ষা দিতে হবে। বি-১ এর পরীক্ষা ১ ঘন্টা ৩০ মিনিট। তারপর বি-২ এর ৩০ নম্বরের জন্য আরো ১ ঘন্টার পরীক্ষা দিতে হবে। ৩০ নম্বরের প্রশ্নে থাকে কিছু সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন এবং ড্রয়িং। সংক্ষিপ্ত প্রশ্নের উত্তর সাধারণ জ্ঞান থেকেই আসে। সেক্ষেত্রে বিগত বছরের প্রশ্ন দেখলে ধারণা পাওয়া যাবে। ড্রয়িং এর জন্যও বিগত বছরের প্রশ্নগুলো দেখা যেতে পারে এবং অনেক বেশী ফ্রি হ্যান্ড প্রাক্টিস প্রয়োজন।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন