ঢাকা সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
২১ °সে


দৈত্যের মতো যানজট!

দৈত্যের মতো  যানজট!

সম্ভাবনাময় সোনার বাংলা কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে যতগুলো অন্তরায় বা সমস্যা রয়েছে, তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য যানজট। যনজট শুধু আমাদের অমূল্য সময়ই কেড়ে নিচ্ছে না, নাগরিকজীবনেও ডেকে আনছে সীমাহীন দুর্ভোগ। ছাত্র, শিক্ষক, পথচারী সবাই আজ সর্বগ্রাসী যানজটের শিকার। সময়মতো গন্তব্যে পৌঁছানোর কোনো নিশ্চয়তা নেই। নাগরিকজীবনে মানুষের অসীম ব্যস্ততা। অন্তহীন কর্ম। জীবন ও জীবিকার তাগিদে সবাইকে ছুটতে হয় অফিস-আদালত, হাসপাতাল ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে। শিক্ষার্থীদের যেতে হয় স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে। কিন্তু পথে নামলেই যানজট দৈত্যের মতো পথ আগলে দাঁড়ায়। ফলে কাজে বের হলে প্রায় ক্ষেত্রেই দেখা দেয় ব্যর্থতা। যানজটের কবলে একবার আটকে গেলে কখন তা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে তা বলা মুশকিল। রোগীসহ অ্যাম্বুলেন্স যখন যানজটে আটকে পড়ে, তখন ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এমনকি যানজটের কারণে রোগীর মৃত্যু পর্যন্ত ঘটে। মানুষের জীবনে অসুস্থতার কোনো ক্ষণ নেই, কিন্তু সঠিক ক্ষণে অসুস্থ রোগীকে যথাযথ চিকিত্সার দারপ্রান্তে নিয়ে যাওয়ার সুযোগ থাকলেও রাজধানীবাসীর পক্ষে সে সুযোগ কাজে লাগানোর নিশ্চয়তা নেই। কোথাও অগ্নিকাণ্ড ঘটলে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা খুব দ্রুত পৌঁছাবে তারও সুযোগ নেই। আমাদের পথগুলোতে কোনো এমাজেন্সি লেন নেই। যে কারণে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অধিকাংশ ক্ষেত্রে ভয়াবহ রূপ ধারণ করে।

আর্থিক ক্ষয়ক্ষতিরও একটা বড়ো কারণ এই যানজট। এতে একদিকে যেমন বিপুল সময় নষ্ট হচ্ছে, অন্যদিকে তেমনি হারিয়ে যাচ্ছে অগণিত শ্রমঘণ্টা। অপূরণীয় ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে দেশ। যানজট দূর করা গেলে বাংলাদেশের জিডিপি বৃদ্ধি পেত। বিভিন্ন কারণে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। উল্লেখযোগ্য কারণগুলো—অপ্রশস্ত রাস্তা, অপরিকল্পিত নগরায়ণ, ট্রাফিক আইন অমান্য করা, ফুটপাত অবৈধ দখল, যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং, ধারণ ক্ষমতার বেশি গাড়ির অনুমোদন ইত্যাদি।

সুতরাং দেশের মঙ্গল এবং আগামী প্রজন্মের জন্য একটি সুস্থ নগর জীবন উপহার দিতে দৈত্যরূপী এই যানজট দূর করার জন্য করণীয় দিকগুলো হলো—অবৈধ পার্কিং বন্ধ করা, যখন-তখন যানবাহন থামিয়ে লোক ওঠা-নামা না করা, লাইসেন্সহীন রিকশার দৌরাত্ম্য কমানো, ফুটপাতগুলোকে হকারমুক্ত করা, রাজধানীতে রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ির প্রতিযোগিতা বন্ধ করা, প্রতিটা মোড়ে বহুমুখী ফ্লাইওভার নির্মাণ করা—যাতে যে কোনো মোড়ে গাড়ি ট্রাফিক সিগন্যাল ছাড়া নিজের পথে চলতে পারে, শহরের ব্যস্ত এলাকার বাস টার্মিনাল উঠিয়ে দেওয়া, পাতাল রেলের ব্যবস্থা করা, অধিক সংখ্যক প্রাইভেট কারের পরিবর্তে অত্যাধুনিক বাস, ডাবল ডেকারসহ গণপরিবহণের ব্যবস্থা করা, নানা অজুহাতে ফুটপাত দখল না করা, যাদের খামখেয়ালিপনার কারণে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে—তাদেরকে আইনের আওতায় আনা।

ঢাকা

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
০৯ ডিসেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন