ঢাকা রবিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬
২৮ °সে


গৃহস্থালির কাজ এবং নারীর ক্ষমতায়ন

গৃহস্থালির কাজ এবং  নারীর ক্ষমতায়ন

বেগম রোকেয়ার অবরোধবাসিনীরা আজ সুলতানার স্বপ্ন হয়ে আসমুদ্র হিমালয় ও মহাশূন্য জয় করা কর্মক্ষেত্রে ছুটে চলা মানুষ। যে কাজগুলো নিয়মিত ঘরে করা হয়, কিন্তু তার স্বীকৃতি, মূল্যায়ন ও আর্থিক মূল্য নেই; যেমন পরিবারের প্রতি ভালোবাসা, ঘর সাজানো, সন্তান লালনপালন, পরিবারের প্রবীণ সদস্যদের দেখাশোনা, বাড়িঘর পরিষ্কার রাখা ইত্যাদি কাজই গৃহস্থালির কাজ।

২০১৮ সালের আইএলওর ‘ফেয়ার ওয়ার্ক অ্যান্ড কেয়ার জবস ফর দ্য ফিউচার ডিসেন্ট ওয়ার্ক’ শীর্ষক প্রতিবেদনে বলা হয় এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে নারীরা পুরুষের তুলনায় চারগুণ বেশি সময় গৃহস্থালির কাজ করে। ২০১২ সালের টাইম ইউজড সার্ভে বলেছে, ১৫ বছরের বেশি বয়সী কর্মজীবীদের মধ্যে ঘরের বিভিন্ন কাজে নারী দৈনিক ৩.৬ ঘণ্টা ও পুরুষ দৈনিক ১.৪ ঘণ্টা শ্রম দেয়। ২০১৭ সালে অ্যাকশনএইড বাংলাদেশ-এর প্রতিবেদনে বলা হয় গৃহস্থালি কাজে নারী প্রতিদিন গড়ে ৭.৫০ ঘণ্টা ও পুরুষ প্রতিদিন ২.৩৭ ঘণ্টা ব্যয় করে। ২০১৪ সালে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন এবং সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ যৌথভাবে গবেষণার ফলাফলে দেখা যায়, নারী প্রতিদিন গড়ে ১২টির বেশি মজুরিবিহীন কাজ করেন। ১৯৯৫ সালে বেইজিং সম্মেলনে প্লাটফর্ম অব অ্যাকশনে নারীর কাজের পরিধি, মূল্যহীন কাজকে দৃশ্যমান করা এবং মূল্যায়িত করা এবং মূল্যায়িত করতে একটি জুতসই পরিসংখ্যান পদ্ধতি বের করতে বলা হয়। সিডিপি কাজের ছায়া মূল্যের মাধ্যমে প্রতিস্থাপন পদ্ধতি ব্যবহার করে দেখে জিডিপিতে নারীর আবদান ৭৬.৮ শতাংশ। জাতীয় নারী উন্নয়ন নীতি ২০১১ বাস্তবায়নে ২০১৩ সালের কর্মপরিকল্পনায় গৃহস্থালি কাজের স্বীকৃতি এবং জিডিপিতে অন্তর্ভুক্ত করার কথা বলা হয়েছে। তবে এতে বাস্তবায়নের উপায় বাতলে দেওয়া হয়নি। নারীর গৃহস্থালির কাজের বোঝা এবং স্বীকৃতি না থাকার ফলে ঘরের ভেতরে নারী নির্যাতনের ঘটনা বেশি ঘটছে।

সরকারকে অতিদ্রুত জাতীয় হিসাব পরিমাপের এমন একটি পদ্ধতি বের করতে হবে, যাতে নারীদের বেতনহীন কাজ জিডিপিতে অন্তর্ভুক্ত করা যায়। অ্যাকশন এইড বাংলাদেশের নারীর ক্ষমতায়ন ও অধিকার বিষয়ক সচেতনামূলক প্রকল্প ‘পাওয়ার’-এর প্রচারণার পুরুষদের গৃহস্থালি কাজে অংশগ্রহণ বৃদ্ধি পেয়েছে, নারীদের অংশগ্রহণ কমতে শুরু করেছে মাত্র। এভাবে চলতে থাকলে নারীরা তাদের শ্রম ও মেধা উত্পাদনমূলক কাজে ব্যয় করার সুযোগ পাবে। এভাবে প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে নারীদের গৃহস্থালি কাজের মূল্য নিরুপণ করা সম্ভব হলে নারী নির্যাতন বন্ধ হয়ে নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিত হবে।

ঢাকা

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৮ আগস্ট, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন