ঢাকা সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ১ পৌষ ১৪২৬
২৬ °সে

ফুটবলারদের দলবদল

জানান দিল মোহামেডান

জানান দিল মোহামেডান
বাফুফে ভবনে মোহামেডান খেলোয়াড়রা। সাবেকরা ৭০ দশকের জার্সি গায়ে পেছনে। ভবনের বাইরে তখন সমর্থকদের আনন্দ উল্লাস। ঢোল-বাদ্য বাজনার শব্দে মাতোয়ারা। এখন মাঠের লড়াইটায় চোখ সবার —ইত্তেফাক

স্পোর্টস রিপোর্টার

প্রিমিয়ার ফুটবল খেলোয়াড়দের দলবদলে গতকাল মোহামেডান আড়ম্বরপূর্ণ সাজ-সজ্জায় হাজির হয়েছিল বাফুফে ভবনে। ফুল দিয়ে সাজানো ঘোড়ার গাড়ি, বাদ্যযন্ত্র বাাজিয়ে এলাকা গরম করে তোলা, মোহামেডান নিয়ে গান বাজানো, সমর্থকদের গায়ে একই রকম গেঞ্জি, মোহামেডানের সাবেক ফুটবলারদের নিয়ে শোভাযাত্রা করা দেখে মতিঝিলের সাধারণ মানুষ থমকে গিয়েছিল। অস্ট্রেলিয়ান কোচ শেন লিন উঠলেন ঘোড়ার গাড়িতে। বলছিলেন, একটা চ্যালেঞ্জ নিয়ে কাজ করতে হচ্ছে এখানে। তারপরও ভালো, কোচ হলে চ্যালেঞ্জ আসবে।’

কাল বিকালে মোহামেডান উত্সব মুখর পরিবেশে শরগোল তুলল ফুটবল অঙ্গনে। কতদিন পর এমন পরিবেশ এসেছে তা স্মৃতিচারণ করতে পারলেন না অনেকেই। তবে মোহামেডান যেভাবে সুসজ্জিত হয়ে খেলোয়াড় রেজিস্ট্রেশন করাল তা দেখে চ্যাম্পিয়নদের মতোই মনে হলো। মাঠে পারফরম্যান্স কেমন হবে তা বলা কঠিন। তবে ম্যানেজার ইমতিয়াজ আহমেদ নকিব উচ্চাশা নিয়ে জানালেন সেরা তিনের মধ্যে থাকতে পারলে ভালো। গত একটা মাস মোহামেডানের জন্য অর্থ সংগ্রহে দুই-তিন জন ব্যক্তি রাতদিন কাজ করেছেন। টাকা ছাড়া খেলোয়াড় পাওয়াও কঠিন। স্বল্প বাজেটে যাদের নেওয়া হয়েছে তারা হয়ত তারকা খেলোয়াড় নয়। তবে কোচ বলছেন, ‘তরুণ এইসব ফুটবলারদের জন্য নিজেকে প্রমাণ করার সুযোগ এটা।’ তিনি বলেন, ‘আমাদের ভালো মানের বিদেশি খেলোয়াড় রয়েছে। তাই আমাদের ভালো করা উচিত।’

মোহামেডানের দলবদলকে কেন্দ্র করে গতকাল দুপুর থেকেই ক্লাব টেন্টে সমর্থকদের ভিড়। পা রাখারও জায়গা ছিল না। মোহামেডানের সাবেক ফুটবলার, কর্মকর্তারা ৭০ দশকের জার্সি গায়ে ক্লাবে অবস্থান নিয়েছিলেন। অনেক দিন পর একে অন্যের সঙ্গে দেখা হওয়া, বুক মিলিয়ে আনন্দ ভাগাভাগি করেছিলেন। জাকারিয়া পিন্টু, জহিরুল হক, বশির আহমেদ, নওশেরুজ্জামান, গোলাম সারোয়ার টিপু, বাদল রায়, স্বপন দাস, হাসানুজ্জামান খান বাবলু, জনি, কায়সার হামিদ, সাব্বির, কানন, জোসী, গাফফার, মালা, আয়াজ, নকিব, মনিরুল হক চৌধুরী, ক্রীড়া সংগঠক মোজ্জামেল হক বাবু, রেজাউর রহমান সোহাগ, কবির আহমেদ ভুইয়া, সারোয়ার হোসেন প্রমুখ ক্লাব আঙিনায় খেলোয়াড়দের উজ্জীবিত করলেন। মোহাপাগলের প্রতিষ্ঠাতা টি ইসলাম তারিক ১৯৭২ থেকে ১৯৯৬, জাকারিয়া পিন্টু থেকে জুয়েল রানা পর্যন্ত মোহামেডান অধিনায়কদের ছবি টাঙিয়েছেন। অন্য পাশে দেখা যায় সাবেকদের ফুলের মালা দিয়ে বরণ করে নেয় ছোটো ছোটো শিশুরা। বাফুফে ভবনে খেলোয়াড়দের রেজিস্ট্রেশনের সময় বাফুফের সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুস সালাম মুর্শেদী মোহামেডানের কথা বলতে গিয়ে দাবি করলেন তিনি মোহামেডানে যোগ দেওয়ার আগেই পরিচিতি পেয়েছেন, জাতীয় দলে ঢুকেছেন। সেই কথায় ক্লাবে গিয়ে সমর্থকরা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। মোস্তাকুর রহমান বললেন, ‘আমরা মোহামেডানের কর্মী হিসাবে খেলোয়াড়, সাবেক খেলোয়াড়, কর্মকর্তা, সমর্থক সবাই এক হয়েছি। এখানে কারো রাগক্ষোভ বিভেদ থাকবে না।’ মোজাম্মেল বাবু বলেছেন, ‘এবার দলটা যেমনই হোক আগামীতে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য দল গঠন করা হবে।’

আজ দলবদলের শেষ দিন

গতকাল মোহামেডান, বসুন্ধরা কিংস, পুলিশ এবং শেখ রাসেল দলবদলে অংশ নেয়। পুলিশের খেলোয়াড় রেজিস্ট্রেশনে ছিলেন দলের সভাপতি র্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ। এসময় র্যাব এবং পুলিশের অন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন। দলের পরিকল্পনার কথা জানান তারা। লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংসের সভাপতি ইমরুল হাসান বললেন, তাদের সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিকের ফুটবলার ইমন বাবু। এবার এএফসি কাপে খেলার টার্গেট নিয়ে দল গড়েছে বসুন্ধরা।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন