ঢাকা সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ১ পৌষ ১৪২৬
২৬ °সে

মেসি নৈপুণ্যে ড্র আর্জেন্টিনার

মেসি নৈপুণ্যে ড্র আর্জেন্টিনার

g স্পোর্টস ডেস্ক

লিওনেল মেসির শেষ সময়ের দেওয়া গোলে উরুগুয়ের বিরুদ্ধে হার এড়াল আর্জেন্টিনা। গত সোমবার রাতে ইসরাইলের তেলআবিবে অনুষ্ঠিত প্রীতি ম্যাচে দক্ষিণ আমেরিকার এই দুই দলের খেলাটি শেষ পর্যন্ত ২-২ ড্রয়ে শেষ হয়।

এডিসন কাভানির গোলে ৩৪তম মিনিটে এগিয়ে যায় উরুগুয়ে। এরপর সার্জিও অ্যাগুয়েরো ৬৩ মিনিটে সমতা ফেরান। এর পাঁচ মিনিটের মধ্যেই মেসির বার্সেলোনা সতীর্থ লুই সুয়ারেজ গোল করলে পিছিয়ে পড়ে আর্জেন্টিনা। শেষ পর্যন্ত ৯২তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে সমতা ফেরান অধিনায়ক মেসি।

মেসির এটি টানা দ্বিতীয় খেলায় সমানসংখ্যক গোল। এ নিয়ে জাতীয় দলের হয়ে ৭০ বার গোল করলেন বিশ্বের বর্ষসেরা এই ফুটবলার। তিন ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আবার জাতীয় দলে ফিরে গেল শুক্রবারই তিনি চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলের বিরুদ্ধে গোল করে দলকে জিতিয়েছিলেন।

দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবলারদের মধ্যে কেবল ব্রাজিল কিংবদন্তি পেলেই জাতীয় দলের হয়ে তার চাইতে বেশি গোল করেছেন। ব্রাজিলের হয়ে পেলের গোল আছে ৭৭টি।

আগামী মার্চে ২০২২ সালের বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব শুরুর আগে এটিই ছিল উভয় দলের শেষ প্রীতি ম্যাচ। এ বছরের শুরুতে কোপা আমেরিকায় হতাশাব্যঞ্জক ফলের পর আর্জেন্টিনা এখন টানা ছয় খেলাতেই অপরাজিত রইল।

তেলআবিবের দর্শকেরা পুরো খেলাতেই সমর্থন জুগিয়ে মেসিকে মাতিয়ে রেখেছিল। আর্জেন্টিনাও পিছিয়ে পড়া অবস্থান থেকে তার জোগান থেকেই সমতা ফেরাতে সক্ষম হয়েছিল। পরে হারের কবলে পড়া দলকেও বাঁচান তিনি।

আর্জেন্টিনা অবশ্য খেলার প্রথম দিকে আধিপত্য দেখাতে শুরু করেছিল। সৌভাগ্যের ছোয়া পেলে ১৩তম মিনিটেই হয়তো গোলের দেখা পেয়ে যেত দলটি। কিন্তু পাওলো দিবালার শট খেলোয়াড়দের ভিড়ে ঠাসা বক্সে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এরপরই খেলায় ফিরেছিল উরুগুয়ে। কিন্তু মেসি নৈপুণ্যে শেষ পর্যন্ত জয়বঞ্চিত হতে হয় তাদের।

এদিকে খেলাটিতে মেসি ও কাভানির মধ্যে উত্তপ্ত পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। পিএসজি ফরোয়ার্ড কাভানি জানান, মেসির সঙ্গে খেলা চলাকালে তার উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় হয়। উরুগুয়ের খেলোয়াড়টি দাবি করেন, মেসি তাদের আক্রমণের চ্যালেঞ্জ দিয়েছিলেন।

কাভানির গোলে উরুগুয়ে এগিয়ে যাওয়ার পর মেসি বিপক্ষ মিডফিল্ডার মাতিয়াস ভেসিনোর করা ফাউলের পরিপ্রেক্ষিতে ক্ষেপে গিয়েছিলেন। আর্জেন্টাইন পত্রিকা ওলে জানায়, এরকম বিবাদের পরিস্থিতিতে কাভানি মেসিকে বলেন, ‘তুমি কি লড়তে চাও?’ মেসি জবাবে বলেন, ‘যখনই তোমরা চাও, যখনই তোমরা চাও?’

সুয়ারেজ এসে পরে উভয়কে সরিয়ে দেন। তারও পরে উরুগুয়ের ডিফেন্ডার দিয়েগো গোডিন এসে মেসির কাঁধে হাত দিয়ে জড়িয়ে ধরেন। কাভানি অবশ্য পরে বলেন, এটাও ফুটবল।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন