ঢাকা শুক্রবার, ২৪ মে ২০১৯, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
৩৩ °সে


দর্শক জোয়ারেও টিকিটের হাহাকার

দর্শক জোয়ারেও টিকিটের হাহাকার

এই যে ঢাকা-রংপুর, এই যে কুমিল্লা-রাজশাহী—চিত্কার ভেসে আসছিল চারদিক থেকে। শুনে মনে হতে পারে কোনো বাস স্ট্যান্ডের কাছাকাছি চলে এসেছেন। আসলে তা নয়। গতকাল এমন ডাকাডাকি আসলে চলছিল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের চত্বরে।

বেলা ১২টা। ম্যাচ শুরু হতে তখনও দুই ঘণ্টা বাকি। মিরপুর ২ নম্বর থেকে শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে যাওয়ার প্রশস্ত পথ তখনই জনস্রোতে রূপ নিয়েছিল। গাড়ি না চললেও জনসমাগমের কারণে হাঁটাই কঠিন হয়ে পড়ছিল।

দর্শক নেই, দর্শক নেই। শুরু থেকেই দর্শকের হাহাকারে ভুগছিল বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ষষ্ঠ আসর। গতকাল একদিনেই সবকিছু উবে গেল। দর্শক খরা কাটানোই শুধু নয়, এদিন রীতিমতো দর্শকের ঢল নেমেছিল মিরপুর স্টেডিয়ামে। ছুটির দিনে বিপিএলের ম্যাচ উপভোগে হাজারো জনতা ভিড় করেছেন স্টেডিয়ামে।

উপচে পড়া ভিড় সামলাতে হিমশিম খেতে হয়েছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে। দর্শক জোয়ারের দিনে টিকিটের জন্য হাহাকার ছিল অনেক। টিকিট প্রার্থীর সংখ্যা অগুনতি। অ্যাক্রিডিটেশন কার্ডধারী কাউকে দেখলেই এগিয়ে আসছেন মানুষ। যত টাকাই লাগুক ম্যাচ দেখতে টিকিট চাইছেন সবাই। টিকিট বুথে মিলেনি টিকিট। ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকে ভগ্ন মনরথে ফিরতে হয়েছে অনেক দর্শককে। যার সুযোগ কালোবাজারিদের পকেট ভারী হয়েছে। কয়েকগুণ দাম হাঁকিয়ে টিকিট বিক্রি করেছে তারা। উপায়ন্তর না দেখে বেশি দামেই টিকিট কিনেছেন সবাই।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, ম্যাচ শুরুর আগে কালোবাজারিদের কাছ থেকে ৫০০ টাকার টিকিট ১২০০ টাকায় কিনছেন দর্শকরা। পরে ২০০ টাকার সাধারণ গ্যালারির টিকিটের দাম ১ হাজারও ছাড়িয়েছিল। অবশ্য এত চড়া দামে কিনলেও খুব অভিযোগ ছিল না কারো। টিকিট পেতেই নিজেকে মহাভাগ্যবান ভাবছেন সবাই।

বেসরকারি হাসপাতাল পপুলারের প্রশাসনিক কর্মকর্তা ফিরোজ রহমান ৩০০ টাকার টিকিট কিনেছেন ১ হাজার টাকায়। গতকাল তিনি বলছিলেন, বুথে টিকিট পাইনি। কত লোক দাঁড়িয়ে। আমি অনেক কষ্টে দুটি টিকিট ম্যানেজ করেছি। যেভাবেই হোক খেলাটা দেখতে চাই আজ (গতকাল)।

প্রথমত ছুটির দিন, দ্বিতীয়ত গতকাল দিনের প্রথম ম্যাচটি ছিল ঢাকা ডায়নামাইটস ও রংপুর রাইডার্সের ম্যাচ। গত আসরের ফাইনালেও খেলেছিল দুই দল। হাইভোল্টেজ ম্যাচটি দেখতেই দর্শকরা ব্যাকুল হয়ে স্টেডিয়ামের পানে ছুটেছেন। ক্রিস গেইল-হযরতউল্লাহ জাজাই, মাশরাফি-সাকিব, পোলার্ড-নারিনদের চিত্তাকর্ষক টি-২০ লড়াইয়ের আকর্ষণে দর্শকরা ভিড় জমিয়েছেন মিরপুরে।

২৫ হাজার ধারণ ক্ষমতার শেরেবাংলা স্টেডিয়াম। গ্যালারিতে অনেকদিন পর প্রাণের জোয়ার এসেছিল। পুরো টুইটুম্বর ছিল গ্যালারি। যেন তিল ধারণের ঠাঁই নেই। তবে দর্শকদের মধ্যে ঢাকা ডায়নামাইটসের সমর্থকদের আধিক্যই ছিল। দোহার-নবাবগঞ্জ থেকে প্রায় ১০টি বাসে করে খেলা দেখতে এসেছেন ঢাকার সমর্থকরা। গ্যালারি কাঁপিয়েছেনও তারা।

ম্যাচ শুরু হওয়ার পরও দেখা গেছে, স্টেডিয়ামের বাইরে হাজারো জনতা অপেক্ষমাণ। গ্যালারির হর্ষধ্বনির আওয়াজে কাঁপছেন বাইরে থাকা দর্শকরা। টিকিট না পেয়ে তারা বিক্ষোভও করেছেন। এক নম্বর গেইটের পাশে থাকা ছোট টিকিট বুথে কিছুটা ভাঙচুরও হয়েছিল। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছিল আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২৪ মে, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন