ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
৩২ °সে


অসাধারণ লড়াইয়ে আবাহনীর জয়

আবাহনী ৩ : ২ চেন্নাইন এফসি
অসাধারণ লড়াইয়ে আবাহনীর জয়
ঘুরে দাঁড়ানো আবাহনী নিজেদের মাঠে জয় তুলে নেয় -মোশারফ হোসেন

এ যেন প্রতিশোধের চেয়েও বেশি কিছু। আবাহনী ৩-২ গোলে চেন্নাইন এফসিকে দারুণভাবে হারিয়ে গ্রুপ পর্বে নিজেদের টিকিয়ে রাখল। লড়াইয়ে রাখল। মামুনুল ২-২ গোলে খেলাটার শেষ মুহূর্তে মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছেন বুড়ো মামুনুল ইসলাম। খেলা শেষ হওয়ার ৪ মিনিটে মামুনুলের অবিশ্বাস্য একটি গোলে আবাহনী ৩-২ গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে। এমন একটি জয়ের আনন্দে আবাহনীর পর্তুগিজ কোচ খেলা শেষে গ্যালারির দিকে গিয়ে দর্শকদের আবেগে ভাসিয়েছেন। রেফারির শেষ বাঁশিতে আবাহনীর ফুটবলাররা মাটিতে চুমু খেয়েছেন। উপভোগ্য ফুটবল লড়াই আবাহনীকে নতুন করে চিনিয়েছেন। সাহস করলে এদেশের ফুটবলাররা লড়াই করতে পারে সেটি দেখিয়েছেন।

আক্রমণের শুরুতেই ঝাঁপিয়ে পড়েছিল চেন্নাইন এফসি। আবাহনীর ওয়ালী ফয়সাল, মামুনুল, সোহেল রানা, রায়হান, গোলকিপার সোহেল কিছু বুঝে উঠার আগেই আবাহনীর জালে জড়ায় খেলার ৭ মিনিটে। ইসাক ভানমালসমার কর্নারের বল অরক্ষিত ভিনেথ খুব সহজেই গোল করেন ১-০। গোল করে এগিয়ে যাওয়া ভারতের চেন্নাইন এফসি যেন উল্টো চাপের মুখে পড়ে। আবাহনীর আক্রমণভাগে রুবেল মিয়া, নাইজেরিয়ান সানডে, হাইতিয়ান বেলফোর্ট স্ট্রাইকার নাবীব নেওয়াজ জীবন এবং ঝাঁপিয়ে পড়ে গোলের সুযোগ খুঁজে নিয়েও জালে রাখতে না পারা ছিল তাদের জন্য চরম ব্যর্থতার। সুযোগ কাজে লাগাতে পারছিল না। জুয়েলের শট গেল বাইরে। গোল মুখে গেলেই দুর্বল হয়ে যায় আবাহনীর আক্রমণ। বিরতির সময় ফ্লাড লাইটের আলো ছিল না। খেলা শুরু হওয়ার আগেই জ্বলে উঠে ফ্লাড লাইট। আবাহনীও যেন নতুন করে জ্বলে উঠল। ভারতীয় ক্লাব চেন্নাইনের বিপক্ষে আবাহনীর আক্রমণের ঝাঁঝ বাড়ল যেন পায়ে পায়ে বলের সুন্দর পাসে গড়ে উঠা খেলাটা। সাইড লাইনে দাঁড়িয়ে আবাহনীর পর্তুগিজ কোচ চিল্লাচিল্লি করে যাচ্ছিলেন। দুই পাশে সিরিয়ার রেফারি, সহকারী রেফারিরা খেলার উত্তেজনায় কড়া দৃষ্টি রাখছিলেন। ১-০ গোলে পিছিয়ে থাকা আবাহনী ৬৪ মিনিটে গোল করে সমতা আনে। মাসিহ সাইঘানীর দেওয়া বলটা হাইতিয়ান বেলফোর্ট গড়ানো শটে সমতা আনেন ১-১। ৬ মিনিটে ব্যবধানে আবাহনী যেন আরো দুর্বার হয়ে গেল। আরো বদলে গেল আক্রমণ। আবাহনী সেটপিস পেয়েছে। আসাধারণ একটি ফ্রিকিক হতে গোল করেছেন আফগান ফুটবলার মাসিহ সাইঘানী লালিগায় বার্সেলোনার মেসি যেভাবে দৃষ্টিনন্দন গোল করে ফুটবল দুনিয়াকে মুগ্ধ করে দেন। তেমন একটি গোলের ছবি আঁকলেন আবাহনীর আফগান ফুটবলার ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার মাসিহ সাইঘানী চেন্নাইনের বক্সের বাইরে হতে বাম পায়ে অবিশ্বাস্য একটি সুন্দর ফ্রিকিক করেন। ভাসিয়ে দেওয়া বলটা সবার মাথার উপর দিয়ে কোনাকুনি ভাবে জালে ঢুকে যায়। কারোই কিছু করার ছিল না ২-১। যারা খেলা দেখতে আসেননি তারা মিস করেছেন ফুটবলের এমন একটি গোল। এই আফগান ফুটবলার নেপালের মানাংমারসিয়াংদী ক্লাবের বিপক্ষে গোল করে জয় এনে দিয়েছিলেন গ্রুপ পর্বের প্রথম খেলায়। দুর্ভাগ্য হলো ২-১ গোলে এগিয়ে থাকা আবাহনীকে বিপদে ফেলে দিয়েছিল অধিনায়ক সোহেল রানার একটি ভুল। এই গোলকিপারের একটা ভুলে গোল হজম করে আবাহনী, আবার সেই ইসাক গোল করেন ২-২। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে আসা কয়েক শত দর্শকের উষ্মা গিয়ে পড়ল গোলকিপার সোহেলের উপর। একটু খেললে একটু চেষ্টা করলে আবাহনী ভালো কিছু করতে পারে তা দেখিয়ে দিয়েছে আবাহনীর ফুটবলাররা। বেলফোর্টের হেড সুপার সেভ দিয়েছেন চেন্নাইনের গোলকিপার কারান জিত সিং। তখনো বুঝে উঠতে পারেনি আজ বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে তাদের ভাগ্যে কী লেখা আছে। ৮৬ মিনিটে রায়হানের লম্বা থ্রো চেন্নাইনের ডিফেন্ডার ফিরিয়ে দিলে মামুনুল ইসলাম সেই বলে ভলি করে অপ্রত্যাশিত গোল করে ম্যাচ জয়ের নায়কে পরিণত হন ৩-২। এই চেন্নাইনের কাছে আবাহনী ৭৯ মিনিটে আত্মঘাতী গোলে হেরেছিল তাদের ঘরে আহমেদাবাদের মাঠে।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২১ মে, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন