ঢাকা শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬
২৯ °সে


চল্লিশ মিনিটেই শেষ ভারত!

চল্লিশ মিনিটেই শেষ ভারত!

বিশ্বের সেরা ব্যাটিং লাইনআপ তাদের। র্যাংকিংয়ের শীর্ষ দুই ব্যাটসম্যান তাদের টপ অর্ডারে। বিশ্বকাপের গ্রুপপর্বের সেরা দল তারা। কিন্তু সেই ভারতই কি না ২৩৯ রান তাড়া করে ম্যাচ জিততে পারল না!

ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি বলেছেন, রান তাড়া করতে নামার ৪০ মিনিটের মধ্যেই আসলে খেলা শেষ হয়ে গেছে। তারা ৫ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলার পর আর খেলার কিছু অবশিষ্ট ছিল না বলে বলছিলেন ভারতীয় অধিনায়ক।

ভারত ও নিউজিল্যান্ড প্রথম সেমিফাইনালটি হয়েছে দুই দিন ধরে। প্রথম দিনে ভারতীয় বোলাররা বেশ চাপে রেখেছিলেন নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানদের। কিন্তু দ্বিতীয় দিনে নিউজিল্যান্ড যখন ভারতের সামনে ২৪০ রানের লক্ষ্য দিল, তখন ভেঙে পড়ল ভারতের টপ অর্ডার। কিউই ফাস্ট বোলার ম্যাট হেনরি ও ট্রেন্ট বোল্ট বিধ্বস্ত করে দিলেন ভারতকে।

নিজেদের এই ম্যাচ থেকে ছিটকে যাওয়ার কথা বলতে গিয়ে বিশ্বসেরা ব্যাটসম্যান কোহলি বলছিলেন, ঐ প্রথম ধাক্কাতেই তারা ম্যাচ থেকে ছিটকে গেছেন, ‘প্রথমার্ধে আমরা খুব, খুব ভালো করেছি। ঐ সময়ে আমাদের যা দরকার, তাই পেয়েছি। আমরা মনে করেছিলাম, আমরা নিউজিল্যান্ডকে তাড়া করার যোগ্য একটা স্কোরেই আটকে রাখতে পেরেছি। কিন্তু ওরা বল হাতে নিয়ে শুরুতেই যেটা করল, সেটা আসলে ব্যবধান গড়ে দিল। আমরা ব্যাটিং করতে নামার চল্লিশ মিনিটের মধ্যে আসলে সবকিছু বদলে গেল।’

নিজেদের ব্যর্থতা তো কোহলি দেখছেন। তার চেয়ে বেশি করে দেখছেন নিউজিল্যান্ডের বোলারদের ভয়ংকর এই প্রদর্শনী। প্রতিপক্ষের কথা বলতে গিয়ে কোহলি বলছিলেন, ‘তারা আসলেই এখানে দেখিয়ে ছেড়েছে যে, নতুন বলে কীভাবে বল করতে হয়। তারা আমাদের ভুল করতে বাধ্য করেছে। তারা ভয়ানক চাপ তৈরি করতে পেরেছে। আমার মনে হয় প্রথম সাত বা আট ওভারে আমরা ড্রাইভ করার মতো একটা বলও পাইনি। এটাই প্রমাণ করে যে, খেলাটায় ওদের কতটা নিয়ন্ত্রন ছিল।’

কোহলি বলছেন, এদিন ব্যাট করতে নামার সময় তারা ইতিবাচকই ছিলেন। তারা মনে করেছিলেন, খেলাটা তাদের পক্ষেই আছে। কিন্তু পরিস্থিতি বদলে গেল, ‘আমরা জানতাম যে, আগের দিনটা আমরা ভালো কাটিয়েছি। আমরা মনে করেছিলাম যে, সময়টা আমাদের পক্ষে আছে। কিন্তু কৃতিত্ব নিউজিল্যান্ডের বোলারদের। তারা যেভাবে সুইং করিয়েছে এবং উইকেট থেকে যেভাবে সহায়তা নিয়েছে সেটা তাদের অসাধারণ স্কিল প্রমাণ করেছে।’

তবে এই অসাধারণ বোলিংয়ের পরও ভারত খেলায় ফিরে আসার চেষ্টা করেছিল। বিশেষ করে রবীন্দ্র জাদেজা ও মহেন্দ্র সিং ধোনি চেষ্টা করেছিলেন। জাদেজা ও ধোনির এই চেষ্টা নিয়ে কথা বলতে গিয়ে কোহলি বলছিলেন, ‘জাদেজা সত্যিই গত দুটো ম্যাচ খুব ভালো কাটিয়েছে। তার এদিনের পারফরম্যান্স খুবই ইতিবাচক ছিল। সে পরিষ্কার ছিল যে, কি করতে চাচ্ছে। এমএস-এর (ধোনি) সঙ্গে ওর জুটিটা খুব ভালো ছিল। এটাই দলের ভাগ্য ঠিক করে দিতে পারত। কিন্তু এম এস রান আউট হয়ে গেল। আসলে ৪৫টা খারাপ মিনিটই আমাদের টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে দিল। এটা মেনে নেওয়া কষ্টের। তবে নিউজিল্যান্ডের এই জয় প্রাপ্য ছিল।’

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২০ জুলাই, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন