হোয়াইট হাউজের কাছে শাটডাউন বন্ধে মিছিল

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বেতন না পেয়ে ক্ষুব্ধ যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি কর্মীরা

যুক্তরাষ্ট্রে চলমান ‘শাটডাউন’ বন্ধের দাবিতে মিছিল করেছেন দেশটির সরকারি কর্মীরা। গত বৃহস্পতিবার শাটডাউনের ২০তম দিনে ‘আমাদের বেতন চাই’ স্লোগান দিয়ে হোয়াইট হাউসের কাছাকাছি যান তারা।

শাটডাউনের কারণে দেশটির আট লাখ সরকারি কর্মীকে ঘরে থাকতে কিংবা বেতন ছাড়া কাজ করতে বলা হয়েছে। এ অবস্থার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউজের কাছে জড়ো হয়ে আন্দোলনকারীরা শাটডাউন বন্ধের দাবিতে স্লোগান দিতে থাকেন। তাদের হাতে ব্যানারে লেখা ছিলো, ‘ট্রাম্প: শাটডাউন বন্ধ করুন’ ‘অবরোধ নয়, কাজ চাই আমরা। আন্দোলনকারীদের বেশিরভাগই সবুজ পোশাক পরা ছিলো এবং ব্যানারে লেখা ছিলো, ‘আমি কর্মী, আমি কথা বলতে চাই।’মিছিলে অংশ নেওয়া পরিবেশ সুরক্ষা সংস্থার বিজ্ঞানী ইলাইনি সুরাইনো বলেন, এই পরিস্থিতি চলতে থাকলে তাকে অবসরে যেতে হবে। তিনি বলেন, এটা স্পষ্ট যে,  প্রশাসন সাধারণ মানুষের জীবনের ওপর এর প্রভাব বোঝেন না, না হলে এমনটা করতো না। আরেকটি করপোরেশনের কর্মী ম্যাথিউ ক্রিচটন বলেন, শাটডাউন কতদিন চলবে তার নিশ্চয়তা না থাকায় তারা কোনো খাবারসহ অন্য কোনও পরিকল্পনা করতে পারছেন না।

তিনি বলেন, ‘এটা একদিনও হতে পারে কিংবা এক সপ্তাহ। এটা খুবই লজ্জার যে আমি কাজ করতে সক্ষম কিন্তু করতে পারছি না।’ খবর ওয়াশিংটন পোস্ট ও রয়টার্সের।মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণে বরাদ্দ অনুমোদনের প্রশ্নে ট্রাম্পের সঙ্গে ডেমোক্র্যাটদের সমঝোতা না হওয়ায় তিন সপ্তাহ যুক্তরাষ্ট্র সরকারে চলছে আংশিক শাটডাউন। তারপরও দেয়াল নির্মাণের প্রশ্নে অনড় অবস্থানে রয়েছেন ট্রাম্প। কংগ্রেসের নিম্ন কক্ষ— প্রতিনিধি পরিষদ এখন ডেমোক্র্যাটদের নিয়ন্ত্রণে। সমপ্রতি প্রতিনিধি পরিষদ একটি বাজেট বিল পাস করলেও তাতে মেক্সিকো সীমান্তের জন্য তহবিল বরাদ্দ রাখা হয়নি। পাম বিচ, ফ্লোরিডা ও নিউ ইয়র্কেও এমন আন্দোলনের খবর পাওয়া গেছে। তবে সামনে আন্দোলনের সময়  ট্রাম্প হোয়াইট হাউসে ছিলেন না বলে জানা গেছে।