সুনামগঞ্জে 'অপ্রাকৃতপ্রকৃতি' শীর্ষক চিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত

সুনামগঞ্জে অনুষ্ঠিত হলো 'অপ্রাকৃতপ্রকৃতি' শীর্ষক চিত্র প্রদর্শনী
সুনামগঞ্জে অনুষ্ঠিত হলো 'অপ্রাকৃতপ্রকৃতি' শীর্ষক চিত্র প্রদর্শনী। ছবিতে প্রদর্শনীর আয়োজক ও অংশ নেয়া শিল্পীরা।

সংস্কৃতির রাজধানীখ্যাত সুনামগঞ্জে অনুষ্ঠিত হলো 'অপ্রাকৃতপ্রকৃতি' শীর্ষক দলীয় চিত্র প্রদর্শনী। নবীন ও প্রবীণ ২২ জন শিল্পীর শতাধিক চিত্রকর্ম নিয়ে সুনামগঞ্জ জেলা শিল্পকলা একাডেমির লোকসংস্কৃতি সংগ্রহশালায় এই প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। গত শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে পাঁচদিনব্যাপী এ প্রদর্শনী শুরু হয়ে চলে মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত।

আয়োজকরা বলেন, সুনামগঞ্জে আগে কখনো বড় পরিসরে চিত্রপ্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়নি। এ এলাকার যারা দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে চারুকলা অধ্যয়ন করছে তাদের আঁকা বেশ কিছু ছবি এই প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছে। বর্তমান সময়ে অনেক তরুণরাই উচ্চশিক্ষায় চারুকলার দিকে ঝুঁকছে। মূলত তারা ছবি আঁকার প্রতি ভালোলাগা থেকে এই বিষয়টিকে পড়ার জন্য বেছে নিলেও এতে ভালো ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ রয়েছে। সুনামগঞ্জের তরুণদের মাঝে এমন ধারণা জাগ্রত করবে এই প্রদর্শনী।

পাঁচদিনব্যাপী এই প্রদর্শনীটি দেখতে আসেন বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ। জেলা প্রশাসক জাহাঙ্গীর হোসেন, পৌরসভার মেয়র নাদের বখ্ত, শিল্পকলার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শামসুল আবেদীন, জেলা কালচারাল অফিসার আহমেদ মঞ্জুরুল হক চৌধুরী পাভেল, রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি লতিফুর রহমান রাজু, সাংস্কৃতিক সংগঠক দেবদাস চৌধুরী রঞ্জন, তুলিকা ঘোষ চৌধুরী, জেলা উদীচীর সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলমসহ শহরে সাংস্কৃতিক অঙ্গনের অনেকেই আয়োজন পরিদর্শন করেন।

আয়োজকদের অন্যতম সদস্য ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের প্রিন্টমেকিং বিভাগের স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী তাফান্নুম কাগজী বলেন, 'সুনামগঞ্জ থেকে মাত্র হাতে গোনা কয়েকজন চারুকলায় পড়াশোনা করছেন। এই শহরে নানাধরনের সাংস্কৃতিক আয়োজনের বিষয়টি নিয়মিত হলেও চিত্রপ্রদর্শনী খুব একটা হয়নি। তাছাড়া আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পর থেকে পড়াশোনায় ব্যস্ততায় ইচ্ছা থাকার পরও এমন আয়োজন করতে পারিনি। এবার করোনাকালীন বন্ধের সময়টাকে কাজে লাগিয়েছি। মূলত আমাদের প্রিন্টেমেকিং বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ঋতুরূপা তালুকদার সাথী এই প্রদর্শনী আয়োজনের পরিকল্পনা করার পর আমরা তার সঙ্গে যুক্ত হই।'

তাফান্নুমের বোন ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের গ্রাফিক ডিজাইন বিভাগের স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী ইরতিজা কাগজী বলেন, 'একটি ছবি কখনো কখনো হাজারো শব্দের চেয়ে বেশি অর্থ প্রকাশ করে। ছবি দিয়েই গল্প, আবেগ, হাসিকান্না ফুটিয়ে তোলা যায়। চিত্রকর্মের শক্তিও এটি।'

ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অল্টারনেটিভের (ইউডা) ড্রয়িং অ্যান্ড পেইন্টিং বিভাগের শিক্ষার্থী শুভ্র তালুকদার বলেন, ‘সুনামগঞ্জের শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা এখনো চারুকলায় অধ্যয়নের ব্যাপারে তেমন আগ্রহ দেখান না। অথচ সংস্কৃতির রাজধানীখ্যাত সুনামগঞ্জে শিল্পচর্চার পরিসর আরও বড় হওয়া উচিত। আমরা চেয়েছি আমাদের এই প্রদর্শনীর মাধ্যমে শিক্ষার্থীদেরকে চারুকলায় পড়াশোনার ব্যাপারে উদ্বুদ্ধ করতে।'

দর্শনার্থী ও সুনামগঞ্জ মিররের বার্তা সম্পাদক সাদিকুল আলম বললেন, ‘সুনামগঞ্জের তরুণদের মধ্যে যে এতো গুণী চিত্রশিল্পীরা রয়েছেন, সেটি এই প্রদশর্নী না দেখলে আমার জানা হতো না।’ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের সভাপতি সব্যসাচী নিলয় বলেন, 'আমাদের সহপাঠী ও সমবয়সীরা মিলে একটি ভিন্ন আয়োজন করেছেন। এ ধরনের আয়োজন নিয়মিত করা উচিত।' প্রদর্শনী ঘুরতে আসা বিশ্বম্ভরপুর দ্বিগেন্দ্র বর্মণ সরকারি কলেজের প্রভাষক মশিউর রহমান বললেন, সুনামগঞ্জকে আমরা শিল্পসংস্কৃতির তীর্থস্থান হিসেবে জানলেও চিত্রশিল্পের চর্চা খুব বেশি চোখে পড়েনা। এ আয়োজনটি সুনামগঞ্জের নতুন প্রজন্মকে ব্যাপকভাবে উৎসাহিত করবে।'

সুনামগঞ্জের সাংস্কৃতিক সংগঠক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলার অনুষদের সাবেক শিক্ষার্থী রুনা শাহীন আরা লেইস বলেন, ‘আমরা যখন বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া করেছি, তখন অনেকেই চারুকলা সম্পর্কে খুব একটা জানত না। দিনদিন এই বিষয়টি জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। এমন আয়োজন চারুকলার প্রতি আরো আগ্রহ বাড়াবে বলে মনে করি।’

প্রদর্শনীতে খ্যাতিমান চিত্রশিল্পী সুনীল শুক্লা, হ্যারল্ড রশীদ, সুনামগঞ্জ শিল্পকলা একাডেমির চারুকলার প্রশিক্ষক দীপেন্দ্র নারায়ণ চৌধুরী স্বপন, ঢাবির সাবেক শিক্ষার্থী রুনা শাহিন আরা লেইস, শুভ রায়, তারেক আমিন, জয়ন্ত কুমার তালুকদার ও রত্নাস্বর সূত্রধরের ছবি রাখা হয়। এছাড়া শিক্ষার্থী তাফান্নুম কাগজী, ইরতিজা কাগজী ও ঋতুরূপা তালুকদার সাথী, রবীন্দ্র-ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃণাল বণিক, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী অরুণ দ্যুতি চক্রবর্তী ও জয় তালুকদার, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সৌম্য রায় অমিত, ইউডার শিক্ষার্থী শুভ্র তালুকদার, ইমরান হোসেন মাসুম, কারিশমা দেবী মনি, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তন্দ্রা কৃতী ও কান্তা সরকার, সিলেট মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির অয়ন চৌধুরী, ঢাকা আর্ট কলেজের শিক্ষার্থী প্রান্ত চন্দের ছবি প্রদর্শন করা হয়।

ইত্তেফাক/এসটিএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x