ভার্চুয়াল প্রাইভেট সার্ভার নির্বাচনে যে বিষয়গুলো জানা দরকার

প্রকাশ : ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৩:৪৯ | অনলাইন সংস্করণ

  মোজাহেদুল ইসলাম

ছবি: সংগৃহীত।

ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হতে শুরু করেছে ভার্চুয়াল প্রাইভেট সার্ভারের (ভিপিএস) ব্যবহার। বর্তমানে ভিপিএস সেল করে এমন হোস্টিং কোম্পানির অভাব নেই। একসঙ্গে অনেকগুলো চয়েজ থাকা ভালো ব্যাপার, কিন্তু যতবেশি চয়েজ সামনে চলে আসবে সঠিক ও কাজের জিনিস নির্বাচন করা ততই মুশকিল ব্যাপার হয়ে দাঁড়াবে।

হতে পারে কোনো অ্যাপ রান করানোর জন্য, ওয়েব সাইট হোস্ট করার জন্য, বা ক্লাউড গেমিং করার জন্য ভিপিএস দরকার বা প্রয়োজন। সে ক্ষেত্রে ভিপিএস নির্বাচন করার আগে যে বিষয়গুলো খেয়াল রাখতে হবে তা নিয়েই সাজানো হয়েছে এ লেখা।

 

যেমন খরচ হতে পারে

বর্তমানে অনেক প্রভাইডার ভিপিএস প্রভাইড করে থাকে তাই একই কনফিগারেশনের জন্য বিভিন্ন টাইপের দাম চোখের সামনে আসতে পারে। আর এতে আপনি সহজেই কনফিউজডও হয়ে যেতে পারেন। তবে ভিপিএসের এভারেজ প্রাইসিং জানা থাকলে কনফিউশন অনেকটা দূর হতে পারে। বর্তমানে ৫ ডলার দিয়ে ১ জিবি র্যাম ও ১ কোর সিপিইউ পাওয়া যায়, তেমনই ১০ ডলার মাসিক চার্জে ২ জিবি র্যাম ও ২ কোর সিপিইউ মিলে। ব্যান্ডউইথ ও ডিস্ক স্পেস, একেক কোম্পানি কমবেশি অফার করে। মোটামুটি এই হচ্ছে ভিপিএসের স্ট্যান্ডার্ড মূল্য তালিকা। কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান একটু কমবেশি মূল্যের অফার দিতে পারে, সেক্ষেত্রে কারো র্যাম কম তো সিপিইউ বেশি আবার স্পেস কম তো ব্যান্ডউইথ বেশি।

বেস্ট ভিপিএস সার্ভার খুঁজে পাওয়া অনেক কষ্টের ব্যাপার। অনেক জিনিস মাথায় রাখতে হয়, ফালতু ভিপিএস সার্ভিস খুঁজে পাওয়া তেমনই সহজ। সস্তায় ভিপিএস দিচ্ছে আর আপনি পানির দামে কিনেও ফেললেন, এতে প্রতারিত সুযোগই বেশি। Linode, DigitalOcean, Vultr—এরা প্রত্যেকে প্রায় ৫ ডলার মাসিক চার্জে ১ জিবি র্যাম ও ১ কোর সিপিইউ অফার করে থাকে। যদি কোনো প্রভাইডার সেইম দামে আরো তিন থেকে চারগুণ রিসোর্স অফার করে, তাদের থেকে দূরে থাকুন। অন্যদিকে একই রিসোর্স যদি কেউ ১ ডলার মাসিক চার্জে দিতে চায়, তাদেরও এড়িয়ে চলুন।

ভিপিএসে আপনাকে যে রিসোর্সগুলো কনফিগর করে দেওয়া হয় সেই রিসোর্স ফিজিক্যালভাবেও যে মজুত থাকতে হবে এমনটা নয়। ফিজিক্যাল সার্ভার রিসোর্স থেকে বিশেষ সফটওয়্যার ব্যবহার করে ভার্চুয়াল মেশিন তৈরি করা হয়। আপনাকে দেওয়া রিসোর্সগুলো ভার্চুয়ালভাবে তৈরি করা, যেগুলো নিজে থেকে ফিজিক্যাল মেশিনের মতোই আচরণ করে।

ধরুন, ফিজিক্যাল সার্ভারে ১ জিবি র্যাম আছে, এখন ভার্চুয়াল সার্ভার হোস্ট করে দুইজন ব্যবহারকারী তৈরি করা হলো আর দুইজনকেই ১ জিবি ১ জিবি করে সেল করা হলো। সে ক্ষেত্রে ২ জিবি র্যাম থাকার দরকার ছিল, কিন্তু এভাবে ১ জিবি র্যাম থেকেই ১০ জন ব্যবহারকারীদের ও কনফিগ করে দেওয়া যাবে। যেখানে সকল ব্যবহারকারী মনে করছে তারা ডেডিকেটেড র?্যাম ব্যবহার করছে, কিন্তু আসলে সকলে মাত্র ১ জিবি র্যামই ব্যবহার করছে। এখন সকল ব্যবহার নিশ্চয় একই সময়ে সকল রিসোর্স খেয়ে নেবে না, তাই কেউ ভিপিএস ব্যবহার করার সময় আরেকজন ব্যবহার করে না। এভাবে ব্যবহারকারীর অভিজ্ঞতা বজায় থাকে। বিশেষ করে যে কোম্পানিগুলো কমদামে সার্ভার সেল করে তারা তাদের সার্ভার ওভারলোড করে। এতে আপনার যতটা পারফরম্যান্স পাওয়ার দরকার আপনি সেটা পাবেন না।

 

ভিপিএসের প্রয়োজন অনুসারে সার্ভার ভিপিএস-এর একটি ভালো ব্যাপার হচ্ছে ইচ্ছা মতো রিসোর্স কাস্টমাইজেশন করা যায়, আপনার আরও র্যাম, সিপিইউ বা স্টোরেজ লাগলে তা কয়েক ক্লিকেই অ্যাড করা যাবে। ভিপিএস নানান কাজের জন্য হতে পারে, শুধু ওয়েবসাইট হোস্ট করায় এর একমাত্র কাজ নয়, যেহেতু এটি সম্পূর্ণ ফিজিক্যাল কম্পিউটারের মতোই আচরণ করে। আপনি যদি সাধারণ কোনো ওয়েবসাইট হোস্ট করার জন্য ভিপিএস নিয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে স্ট্যান্ডার্ড প্ল্যান কিনতে হবে।

যদি আপনার ভিপিএসটি বিশেষ করে ফাইল ডাউনলোড করার জন্য তৈরি করে থাকেন সেক্ষেত্রে সবার পূর্বে দেখতে হবে আপনার ভিপিএস-এর নেটওয়ার্ক কতটা বেশি ফাস্ট। বেশিরভাগ স্ট্যান্ডার্ড প্ল্যানে কমপক্ষে ১ টেরাবিট নেটওয়ার্ক আউট পোর্ট থাকে, যেখানে মোটামুটি ১০০ মেগাবাইট/সেকেন্ড স্পিড পাওয়া যেতে পারে। তবে হাই ব্যান্ডউইথ দরকার পড়লে সেই অনুসারে প্ল্যান কিনতে হবে, না হলে ব্যবহারকারীরা অনেক স্লো ডাউনলোড স্পিড পাবে।

 

ম্যানেজড-আনম্যানেজড ভিপিএস

সাধারণত বেশিরভাগ ভিপিএস কোম্পানি আপনাকে আনম্যানেজড ভিপিএস সেল করে, সেখানে আপনিই ১০০% সিস্টেম অ্যাডমিন। বেশিরভাগ প্রভাইডারের লাইব্রেরিতে আগে থেকেই অনেক লিনাক্স ডিস্ট্রগুলো থাকে, যেগুলো ১ ক্লিকে আপনার ভিপিএস এ ইন্সটল করা যেতে পারে; কিন্তু আপনার যদি স্পেশাল টাইপ ওএস দরকার যেমন—Arch Linux, OpenBSD, অথবা CoreOS—সেক্ষেত্রে পূর্বে চেক করে নিন, তাদের এই ওএস সাপোর্ট আছে কি না। ভিপিএস সেটআপ এবং কনফিগারেশন আপনার ওপরে নির্ভর করবে। শেয়ারড হোস্টিং প্রভাইডারের মতো সবকিছু ম্যানেজড পাবেন না এখানে। কিছু প্রভাইডার ম্যানেজড ভিপিএস ও সেল করে; কিন্তু সেগুলো দামে অনেক বেশি হয়ে থাকে এবং অনেক লিমিটেড ফাংশন পাওয়া যায়।