ফিরে দেখা ২০১৯

ক্রিকেট কাঁপিয়ে দেওয়া ধর্মঘটের বছর

ক্রিকেট কাঁপিয়ে দেওয়া ধর্মঘটের বছর
ছবি: সংগৃহীত

মহাকালের গর্ভে হারিয়ে যাচ্ছে আরেকটি বছর। বিগত বছরগুলোর মতোই স্মৃতির আয়নায় ২০১৯ সালকে খুঁজে ফিরবে গোটা দুনিয়া। বছরের শেষান্তে এসে ফিরে দেখা ২০১৯ সালে বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের পরিধি এবার শুধু ২২ গজের জয়-পরাজয়, সাফল্য-ব্যর্থতায় সীমাবদ্ধ ছিল না।

অক্টোবরের তৃতীয় সপ্তাহে ক্রিকেটারদের নজিরবিহীন ধর্মঘট কাঁপিয়েছিল বাংলাদেশের ক্রিকেটাঙ্গন। সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বে ১১ দফা দাবিতে ক্রিকেটারদের ধর্মঘট খবরের শিরোনাম হয়েছিল আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমেও। তিন দিনের শ্বাসরুদ্ধকর অচলাবস্থার অবসান হয়েছিল বিসিবি- ক্রিকেটারদের সমঝোতার মাধ্যমে।

ধর্মঘট ছাড়া বড়ো কোনো আলোচিত বিষয় ছিল না ঘরোয়া ক্রিকেটে। তবে গত কয়েক বছরের মতো ঢাকার ক্লাব ক্রিকেটের নীচের লিগগুলোতে আম্পায়ারিং বিতর্ক, ম্যাচ কেনাবেচার মতো আলোচনা মাঝে-মধ্যে আলোড়ন তুলেছে। কিন্তু কর্তা ব্যক্তিদের উদাসীনতায় সেসবের প্রতিকার পরিলক্ষিত হয়নি।

জাতীয় নির্বাচনের কারণে পিছিয়ে যাওয়া বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ষষ্ঠ আসর অনুষ্ঠিত হয়েছিল বছরের শুরুতে। এছাড়া ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ, জাতীয় ক্রিকেট লিগ ভালোভাবে সম্পন্ন হয়েছে। টি-২০ ফরম্যাটে ক্রিকেটারদের অভ্যস্ততা বাড়াতে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন টি-২০ লিগও এই বছর আয়োজন করেছিল বিসিবি। তবে এই বছর বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ (বিসিএল) অনুষ্ঠিত হয়নি। কারণ ২০১৮-১৯ মৌসুমের বিসিএল ২০১৮ সালের শেষ দিকে হয়েছিল।

ক্রিকেটারদের ধর্মঘট

দৃশ্যত একটা নিস্তরঙ্গ পরিবেশই ছিল ক্রিকেটাঙ্গনে। জাতীয় ক্রিকেট লিগ শুরু হয়েছিল, দ্বিতীয় রাউন্ড শেষ হয়েছে। তৃতীয় রাউন্ডের প্রস্তুতিতে বিভিন্ন দলের ক্রিকেটাররা এক ভেন্যু থেকে আরেক ভেন্যুতে ভ্রমণ করছিলেন। তার মাঝেই গত ২১ অক্টোবর দুপুরে এক লহমায় যেন কেঁপে উঠল দেশের ক্রিকেট। দুপুর ১২ টার মিরপুরে জড়ো হতে শুরু করেন একঝাঁক ক্রিকেটার। তার আগেই ব্যক্তিগত পর্যায়ে ক্রিকেটারদের পক্ষ থেকে সাংবাদিকদের জানানো হয়েছিল, একটা সংবাদ সম্মেলন করবেন ক্রিকেটাররা। আর বেলা ৩টার বিসিবি একাডেমি মাঠে ঐ সংবাদ সম্মেলনেই চূড়ান্ত বিস্ফোরণ দেখা যায়। বাংলাদেশের শীর্ষ ক্রিকেটারদের মধ্যে সাকিব, তামিম, মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ, মুমিনুল, মুস্তাফিজ, তাসকিনরাসহ জনা পঞ্চাশেক ক্রিকেটার উপস্থিত হয়ে সংবাদমাধ্যমে তুলে ধরলেন ১১ দফা দাবি। ১১ জন ক্রিকেটার পৃথকভাবে নিজেদের বক্তব্যে ১১টি দাবির কথা বলেছেন।

ক্রিকেটার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব) পুনর্গঠন, বিপিএল-প্রিমিয়ার লিগের দলবদলে পুরোনো পদ্ধতি ফেরানো, প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে পারিশ্রমিক বাড়ানোসহ বিভিন্ন দাবিতে উচ্চকিত ক্রিকেটাররা। তৈরি হয় অচলাবস্থা। পর দিন সংবাদ সম্মেলনে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন দাবি করেছিলেন, হুট করেই ক্রিকেটারদের এমন ধর্মঘটে ষড়যন্ত্রের আভাস রয়েছে। তবে পরস্পর মিটিংয়ে বসে আলোচনার প্রস্তাব দিয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি। বিসিবি-ক্রিকেটারদের মধ্যে অনেকটা মুখোমুখি অবস্থান তৈরি হয়।

পরে ২৩ অক্টোবর দিনভর বিসিবিতে কর্মকর্তারা অপেক্ষা করলেও সাড়া মিলেনি ক্রিকেটারদের। আলোচনায় বসার লক্ষণ দেখা যায়নি। সন্ধ্যার পর গুলশানে ক্রিকেটাররা এক আইনজীবীর মাধ্যমে নিজেদের বক্তব্য, দাবি আবার তুলে ধরে। তার ঘণ্টা দুয়েকের মধ্যেই বিসিবিতে ফিরে আসেন ক্রিকেটাররা। দুই পক্ষ আলোচনায় বসে। ঘণ্টা খানেকের আলোচনা শেষে যৌথ সংবাদ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে ক্রিকেটারদের ধর্মঘটের অবসান হয়। বিসিবি দাবি নেওয়ার আশ্বাস দিলে অচলাবস্থার নিরসন হয়। প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী কয়েক দিনের মধ্যেই প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ক্রিকেটারদের বেতন, ম্যাচ ফি বাড়ানোর ঘোষণা দেয় বিসিবি।

আরও পড়ুন: প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে ঘাড় ধরে নির্যাতন পুলিশের!

বিপিএল

বছরের শুরুতে ৫ জানুয়ারি মাঠে গড়িয়েছিল বিপিএলের ষষ্ঠ আসর। ৮ ফেব্রুয়ারি ফাইনালে ঢাকা ডাইনামাইটসকে ১৭ রানে হারিয়ে দ্বিতীয়বার বিপিএল ট্রফি জিতেছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। ফাইনালে তামিম ইকবালের ৬১ বলে ১৪১ রানের বিস্ফোরক ইনিংসই ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দেয়। ম্যাচ সেরাও হন এই বাঁহাতি ওপেনার।

টুর্নামেন্টও ছিল বেশ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ। ছিল তারার মেলা। প্রথমবার বিপিএল খেলেছিলেন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার স্টিভেন স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার। বল টেম্পারিংয়ের নিষেধাজ্ঞার শেষান্তে থাকা স্মিথ-ওয়ার্নার পুরো টুর্নামেন্ট খেলেননি, ইনজুরিতে পড়ে মাঝপথে ফিরে যান অস্ট্রেলিয়া। দক্ষিণ আফ্রিকার এবি ডি ভিলিয়ার্স, ইংল্যান্ডের অ্যালেক্স হেলসরাও খেলেছিলেন।

ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ

ওয়ানডে ফরম্যাটের প্রিমিয়ার লিগ শুরুর আগে মাঠে গড়ায় প্রিমিয়ার ডিভিশন টি-২০ লিগ। প্রিমিয়ার লিগের ১২টি ক্লাবকে নিয়ে ২৫ ফেব্রুয়ারি থেকে ৪ মার্চ অনুষ্ঠিত হয় এই লিগ। যেখানে খেলেছেন শুধু দেশীয় ক্রিকেটাররা। নুরুল হাসান সোহানের নেতৃত্বে ঐ আসরে চ্যাম্পিয়ন হয় শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। এরপর ৮ মার্চ থেকে ২৩ এপ্রিল ওয়ানডে ফরম্যাটের প্রিমিয়ার লিগে আবাহনী চ্যাম্পিয়ন হয়

জাতীয় ক্রিকেট লিগ

২১তম জাতীয় ক্রিকেট লিগ অনুষ্ঠিত হয়েছিল ১০ অক্টোবর থেকে ১৯ নভেম্বর পর্যন্ত। সপ্তমবারের মতো দেশের প্রধান প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে চ্যাম্পিয়ন হয় খুলনা বিভাগ। দ্বিতীয় স্তরের শীর্ষে থেকে প্রথম স্তরে উন্নীত হয় সিলেট বিভাগ।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত