ঢাকা মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ২৪ চৈত্র ১৪২৬
৩৮ °সে

তরুণদের নিয়ে উচ্ছ্বসিত ভেট্টোরি

তরুণদের নিয়ে উচ্ছ্বসিত ভেট্টোরি
টেস্ট শেষ না হতেই শুরু হয়ে গেছে ওয়ানডে সিরিজের প্রস্তুতি। বুধবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে। ছবি: ইত্তেফাক

মাত্রই আগের দিন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট শেষ হয়েছে। প্রায় সব ক্রিকেটার আছেন বিশ্রামে; কোচরাও তাই। কিন্তু দুপুরের পর স্টেডিয়ামে চলে এলেন জাতীয় দলের স্পিন বোলিং কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টোরি। সাবেক এই নিউজিল্যান্ড অধিনায়কের সঙ্গী অবশ্য জাতীয় দলের কেউ নন। তার সাথে এলেন হাসান মুরাদ, তানভীর ইসলামদের মতো জনা তিনেক তরুণ স্পিনার।

এদের নিয়ে অনুশীলন শেষ করার পর ভেট্টোরি নিজেই বললেন, তার ভূমিকা এখন শুধু জাতীয় দলের সঙ্গে নয়। তিনি এখন থেকে দেশের তরুণ স্পিনারদের নিয়েও কাজ করবেন। সেই কাজের প্রথম দফা ছিল গতকাল। আর এই কাজ করে খুবই খুশী সাবেক এই গ্রেট বাঁহাতি স্পিনার। তিনি উচ্ছ্বসিত হয়ে বললেন, এই তরুণরা দারুণ প্রতিভাবান।

নিজের নতুন ভূমিকা সম্পর্কে বলতে গিয়ে ভেট্টোরি বলছিলেন, ‘আমি মনে করি, আমার কাজটা হলো উঠে আসতে থাকা বাংলাদেশি স্পিনারদের জ্বালানিটা দেওয়া। আমি ওদের সঙ্গে আজ দেখা করলাম। এদের আগে অনেককে টিভিতে দেখেছি। অনেককে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে খেলতে দেখেছি। আমার কাজ শুধু আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারদের নিয়ে নয়। বরং আমাকে উঠে আসতে থাকা এসব ক্রিকেটারের উন্নতির জন্যও কাজ করতে হবে।’

তরুণ এই স্পিনারদের সঙ্গে কাজ করতে গিয়ে ভেট্টোরির মূল্যায়ন হলো, এরা সিনিয়রদের মতোই প্রতিভাবান। এদের উদাহরণ হিসেবে নাঈম হাসানকে সামনে আনলেন তিনি, ‘এদের জন্য আমার বার্তা একই। এরা বড়োদের মতোই বোলার। এরা খুবই স্কিল সমৃদ্ধ। এটা খুব সন্তোষজনক একটা ব্যাপার। আমি মনে করি, এই ছেলেদের যে স্কিল আছে, সেটা খুব অসাধারণ। আপনি দেখেন, নাঈম (হাসান) বছর দুয়েক আগেও অনূর্ধ্ব-১৯ দলের খেলোয়াড় ছিল। কিন্তু সে কতো দ্রুত নিজের উন্নতি করেছে। এখন তার স্কিল কতো ভালো! ফলে আমি এসব ভালো বোলারের সঙ্গে কাজ করতে পেরে খুবই ভাগ্যবান বোধ করছি।’

এক সময়ের এই বিশ্বসেরা স্পিনার মনে করেন, বাংলাদেশি তরুণ স্পিনারদের খুব বেশি পরিবর্তনও করার দরকার নেই, ‘এদের খুব বেশি পরিবর্তন দরকার নেই। এদেরকে কিছু অভিজ্ঞতা দিতে হবে। এদের বোঝাতে হবে যে, তারা কী করে আরেকটু ভালো বল করতে হবে। এদের বড়ো অংশেরই এই জ্ঞান আছে যে, কীভাবে পারফরম করতে হবে।’

বিশেষ করে তরুণদের মধ্যে মুরাদ ও তানভীরের ব্যাপারে খুব উচ্ছ্বসিত কোচ, ‘এই দুজন (হাসান মুরাদ ও তানভীর ইসলাম) খুব ভালো বল করল। আমি মনে করি, নেটে বল করা আর ম্যাচে বল করা একটু আলাদা। ফলে ওদের সঙ্গে এখানে কাজ করার পাশাপাশি ওদের খেলায় দেখাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমি যেটা তাইজুল, নাঈম, মিরাজের সঙ্গে এখন উপভোগ করছি। আমার এখন কাজ হলো এদের চেনা, এদের স্কিল বোঝা এবং শক্তিটা বোঝা।’

এই তরুণদের বিষয়ে আলোচনায় ভেট্টোরি বারবারই নাঈম হাসানের প্রসঙ্গ টেনে আনলেন। তিনি বললেন, ‘নাঈম যেটা করেছে, সেটা অনেকেই করতে পারে না। সে খুব অল্প বয়সি। তাইজুল বেশ বয়সি স্পিনার। কিন্তু মিরাজও খুব কম বয়সি। এই ছেলেরা সবাই খুব প্রতিভাবান স্পিনার। আর এরা আরো অনেক উন্নতি করতে পারে।’

ইত্তেফাক/বিএএফ

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
icmab
facebook-recent-activity
prayer-time
০৭ এপ্রিল, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন