ঢাকা শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
৩০ °সে

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ বলেই আশাবাদী মুমিনুল

অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড সিরিজ অনিশ্চিত
টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ বলেই আশাবাদী মুমিনুল
টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক। ছবিঃ সংগৃহীত

করোনা ভাইরাসের কারণে ঘর থেকে বের হওয়া বারণ। গৃহবন্দি হয়েই দিন কাটছে ক্রিকেটারদের। বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকও তার ব্যতিক্রম নন।

কীভাবে সময় কাটছে মুমিনুলের? শুনুন তার মুখেই, ‘এই তো বাসায় জিম করছি। ফিটনেস ঠিক রাখার চেষ্টা করছি। বাসায় সবার সঙ্গে সময় কাটাচ্ছি।’

সতীর্থদের সঙ্গেও মুঠোফোনে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কথা হচ্ছে টেস্ট অধিনায়কের। বাসায় থেকে গণমাধ্যমে চোখ রাখছেন। যার কারণে তার চোখ এড়ায়নি গত কয়েক দিনে বাংলাদেশের ক্রিকেট সম্পর্কিত গণমাধ্যমে আসা খবরগুলো। চলতি বছরে বাংলাদেশ সফর অনিশ্চিত বলে জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড। দুই দলই টেস্ট সিরিজ খেলবে টাইগারদের বিরুদ্ধে।

অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক টিম পেইন বলেছেন, জুলাইয়ে দুই ম্যাচের সিরিজ খেলতে তাদের বাংলাদেশ আসা অনেকটাই অনিশ্চিত। যে অবস্থা চলছে তাতে সিরিজ নাও হতে পারে, এটা বুঝতে আইনস্টাইন হতে হবে না।

আগস্টের শেষ দিকে আসার কথা নিউজিল্যান্ড দলের। গত শুক্রবার নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের প্রধান নির্বাহী ডেভিড হোয়াইট বলেছেন, সন্দেহ দানা বেঁধেছে আগস্টের বাংলাদেশ সফর নিয়েও।

সফর কয়েক মাস দূরেই আছে। করোনা পরিস্থিতির কারণে জুলাই-আগস্টের সফর নিয়ে এখনই আলোচনা হচ্ছে। যেখানে দুই প্রতিবেশি দেশ অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড ইঙ্গিত দিয়েছে করোনায় তাদের বাংলাদেশ সফর কার্যত অনিশ্চিত।

আরও পড়ুনঃ কোয়ারেন্টাইন শেষে বাসায় ফিরলেন সাকিব

বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক খবরগুলো দেখে হতাশ হয়েছেন। আবার দেশের মাটিতে ম্যাচগুলো খেলবেন বলে আশাবাদী শোনাল তার কণ্ঠ। মুমিনুল বলেছেন, ম্যাচগুলো টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ। এখন না হলেও পরে তাদেরকে খেলতেই হবে। করোনা পরিস্থিতি ঠিক হলে নতুন সূচি হতে পারে।

একের পর এক সিরিজ স্থগিত হচ্ছে করোনার কারণে। তিন-চার মাস দূরে থাকা বড়ো দুই দলের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের হোম সিরিজ শঙ্কায় পড়ে গেছে। গতকাল জানতে চাইলে এ বিষয়ে মুমিনুল বলেছেন, ‘একদিক থেকে চিন্তা করলে তো অবশ্যই হতাশার। এতগুলো টেস্ট ম্যাচ দেশের মাটিতে। আমাদের তো দেশের মাটিতেই রেকর্ড ভালো, বাইরের চেয়ে। সেই দিক থেকে চিন্তা করলে একটু সুযোগ হারানোর মতোই। সঙ্গে সঙ্গে আমাদের এটাও চিন্তা করতে হবে যে, অন্তত এখন যে অবস্থা সেখানে খেলার চেয়ে জীবন বাঁচানোটা ফরজ কাজ, আমার যেটা মনে হয়। পরিস্থিতি ঠিক হলে পরে বোর্ড হয়তো কথা বলে এগুলো ঠিক করতে পারবে।’

তবে মুমিনুল আশাবাদী ম্যাচগুলো হবেই। যেমনটা টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ বলেই পাকিস্তান যেতে হয়েছিল বাংলাদেশকে। ২৮ বছর বয়সি এই ক্রিকেটার গতকাল বলেছেন, ‘যেহেতু টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ, তার কারণে একটা সুযোগ থাকেই। ওদের খেলতেই হবে। এই বছর না হলেও পরে খেলতে হবে। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ধরলে যে কেউ খেলতে বাধ্য। না খেললে ওদেরও ক্ষতি, আমাদেরও ক্ষতি। আসলে এখন চিন্তা করতে হবে এখন যে পরিস্থিতি রয়েছে সারাবিশ্বে সেটা আগে ঠিক হোক। তারপর হয়তো সবই ঠিক হয়ে যাবে।’

সাদা পোশাকে ঘরের মাঠে গত কয়েক বছরে বাংলাদেশের রেকর্ড খুব খারাপ নয়। মুমিনুল আশা করেন, সবকিছু ঠিক হলে বড়ো প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে একই ছন্দ ধরে রাখবে তার দল।

ইত্তেফাক/ এমএএম

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
৩০ মে, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন