বেটা ভার্সন
আজকের পত্রিকাই-পেপার ঢাকা শনিবার, ০৪ জুলাই ২০২০, ২০ আষাঢ় ১৪২৭
২৯ °সে

মাশরাফিকে বিদায় জানাতে ব্যাকুল ছিল বিসিবি

মাশরাফিকে বিদায় জানাতে ব্যাকুল ছিল বিসিবি
ছবি সংগৃহীত

অধিনায়কত্ব ছাড়লেও ক্রিকেটকে বিদায় বলেননি মাশরাফি বিন মুর্তজা। তাই অবসর সংক্রান্ত আলোচনা পিছু ছাড়ছে না তার। যেন ছাইচাপা আগুন হয়েই জ্বলছে বাংলাদেশের সফলতম ওয়ানডে অধিনায়কের অবসর আলোচনা। সম্প্রতি ক্রিকবাজকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে মাশরাফি বলেছেন, তাকে বিদায় জানাতে উঠে-পড়ে লেগেছিল বিসিবির কতিপয় কর্তা। বেতন-চুক্তিসহ নানা বিষয়ে তাদের মন্তব্য আহত করেছে মাশরাফিকে। এবং জানিয়েছেন, গত বছর বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচেই অবসর নিতে চেয়েছিলেন তিনি।

গত বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচে লর্ডসে অবসর নেওয়ার চিন্তা করেছিলেন মাশরাফি। তিনি বলেছেন, ‘আমি বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচে অবসর নিতে চেয়েছিলাম, কিন্তু তা হয়নি। আমি এ সম্পর্কে বিস্তারিত বলতে চাই না কেন সেখানে হয়নি। কিন্তু আমি ইংল্যান্ডেই আমার ইচ্ছার কথা তুলে ধরেছিলাম। আমি যেটা বিশ্বাস করি যে, আল্লাহ যা করে ভালোর জন্যই করে।’

শুধু তার অবসরের জন্য ম্যাচ আয়োজনের চিন্তা ভালো লাগেনি মাশরাফির। সর্বশেষ হোম সিরিজে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই নাকি খেলোয়াড় মাশরাফিকেও বিদায় জানাতে চেয়েছিল বিসিবি। সাবেক এই অধিনায়ক বলেন, ‘সত্যি বলতে তখন আমাকে বিদায় জানানোর জন্য তাড়াহুড়ো পড়ে গিয়েছিল। এটা নিশ্চিতভাবেই কষ্টকর। প্রথমত, আমাকে বিদায় জানাতে তারা একটা ম্যাচ আয়োজন করত এবং সেটা সাধারণ ম্যাচ হতো না, সাধারণ দ্বিপাক্ষিক সিরিজ এক জিনিস, তড়িঘড়ি করে একটা বিশেষ ম্যাচ আয়োজন করা অন্য জিনিস।’

মাশরাফি আরো বলেন, ‘দ্বিতীয়ত এই ম্যাচের জন্য তারা ২ কোটি টাকা খরচ করার প্রস্তুতি নিয়েছিল। নীতিগত দিক থেকে এটি ঠিক নয়, যেখানে আমাদের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটাররা পর্যাপ্ত বেতন পায় না।’

কঠিন এই সময়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সমর্থন পেয়েছেন বলে উল্লেখ করেন মাশরাফি। তবে তখন তার বেতন চুক্তিতে থাকা নিয়ে কথা বলেছিলেন বিসিবির কেউ কেউ। যা আহত করেছিল মাশরাফিকে।

তিনি বলেছেন, ‘তারা আমার বেতন নিয়ে কথা বলেছিল। প্রশ্ন তুলেছিল কেন বোর্ড একজন কোনো সার্ভিস ছাড়া বেতন পাচ্ছে? আমি ১৮ বছর ক্রিকেট খেলেছি কি শুধু টাকার কথা ভেবে? যদি শুধু টাকার কথা ভাবতাম, তাহলে আমার জন্য আরো অনেক সুযোগ ছিল। আমি টাকার জন্য ক্রিকেট খেলিনি। তার চেয়ে বাজে বিষয় হলো, তারা কথা ছড়িয়েছে যে বাংলাদেশ দল সাড়ে ৯ জন নিয়ে বিশ্বকাপ খেলেছে। আপনার কি মনে হয় এটাই আমার প্রাপ্য? হয়তো বোর্ড আমাকে ভালো বিদায় জানাতে চেয়েছিল কিন্তু আপনাকে আমার দিকটাও দেখতে হবে।’

মাশরাফিকে সরিয়ে দিতে তাড়াহুড়ো হচ্ছিল। এমনটা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘হুট করেই তারা আমাকে সরানোর জন্য হুড়োহুড়ি শুরু করল। যদি শুধু টাকাই মূল বিষয় হতো, আমি অনেক কিছু করতে পারতাম। এমনকি আমি ৮ কোটি টাকার অফার পেয়েও আইসিএলে যাইনি। আমি তা করিনি। আমি জীবন দিয়ে ক্রিকেট খেলেছি এবং হয়তো আমি বড়ো প্লেয়ার হতে পারিনি। কিন্তু আমি অন্তত কিছু সম্মান তো আশা করতে পারি।’

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত