বেটা ভার্সন
আজকের পত্রিকাই-পেপার ঢাকা শনিবার, ০৮ আগস্ট ২০২০, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭
৩৫ °সে

এটাই দারুণ সময় নিজেদের গড়ে তোলার

এটাই দারুণ সময় নিজেদের গড়ে তোলার
জাতীয় ফুটবল দলের গোলকিপার রানা। ফাইল ছবি

সাউথ এশিয়ান ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ (সাফ) সেপ্টেম্বরে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনা ভাইরাসের কারণে সেটি এ বছর আর হচ্ছে না, সেটা সাফের সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছিল। বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের গোলকিপার আশরাফুল ইসলাম রানা সাফ হওয়ার সময়টাকে কাজে লাগাতে চাইছেন। সাফ না হওয়ায় ফুটবলারদের জন্য এটি শাপে বর হয়েছে।

সেপ্টেম্বরে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ হলে বাংলাদেশের ফুটবলারদের একটা চাপে পড়তে হতো। সাফ আগামী বছর হবে। পিছিয়ে যাওয়ার কারণে প্রস্তুতি নেওয়ার দারুণ সুযোগ মনে করছেন জাতীয় দলের এই গোলকিপার রানা। রানার যুক্তিটাও অবশ্য গ্রহণযোগ্য। কারণ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ হবে বঙ্গবন্ধুর নামে। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে যেটি হওয়ার কথা ছিল, সেই টুর্নামেন্ট আগামী বছর হলেও বঙ্গবন্ধুর নামেই হবে। আর সেটা হবে নিজেদের ঘরের মাঠে। মর্যাদার এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ যদি ভালো পারফরম্যান্স করতে না পারে, তাহলে সেটি হবে ব্যর্থতা।

রানা রাকঢাক না করে বলে দিয়েছেন, অনেক বেশি সময় পাওয়া গেছে। সেপ্টেম্বরে টুর্নামেন্ট হলে প্রস্তুতির সময়টা পাওয়া যেত না। সাফের মতো বড় টুর্নামেন্টে নামার আগে যথেষ্ট প্রস্তুতি থাকা দরকার। কারণ ভারত, মালদ্বীপ, নেপালের মতো শক্তিশালী দলগুলোর বিপক্ষে লড়াই করতে হলে নিজেদের রসদ মজুত থাকা চাই। ২০০৩ সালে ঢাকায় আলফাজ আহমেদ, হাসান আল মামুন, পারভেজ বাবু, আরমান মিয়া, আরিফ খান জয়, আমিনুলরা ঘরের মাঠে ফুটবল-যুদ্ধ করে যেভাবে ট্রফি উপহার দিয়েছেন, এই প্রজন্মের ফুটবলাররা তপু বর্মণ, বিশ্বনাথ, মতিন মিয়া, সুফিল, ইয়াসিন আহমেদ, নাবিব নেওয়াজ জীবন, আশরাফুল ইসলামরা একটা ট্রফি উপহার দিতে মরিয়া।

আশরাফুল ইসলাম রানা বললেন, ‘কোভিড-১৯-এর কারণে এ বছর যে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ হওয়ার কথা ছিল, সেটি এখন না হওয়ায় ভালোই হয়েছে। আগামী বছর অনুষ্ঠিত হবে। আমাদের জন্য এটি একটি ভালো সুযোগ।’ তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি, আমাদের প্রস্তুতির ঘাটতি কাটিয়ে ওঠার জন্য আমরা এই বাড়তি সময়ে অনেক বেশি কাজ করতে পারব।’

আশরাফুল রানা এখন জাতীয় দলের নির্ভরযোগ্য গোলকিপার । অনেক দিন ঘরে বসে থাকলেও অনুশীলনে সময় দিয়েছেন। আর এখন মানিকগঞ্জের ছেলে। ঘরের অনুশীলন যথেষ্ট না, চাইলে বাইরেও যাওয়া যায় না। তার পরও জেলা স্টেডিয়ামে গিয়ে অনুশীলন করার সুযোগ পেয়েছিলেন রানা। তাই সেখানকার কর্মকর্তাদেরও ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।

ইত্তেফাক/এসআই

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত