নতুন যুগে প্রথম শিরোপা বার্সায়

নতুন যুগে প্রথম শিরোপা বার্সায়
মঞ্চে শিরোপা উদযাপনে ব্যস্ত বার্সেলোনার ফুটবলাররা      —বার্সা টুইটার

দীর্ঘদিনের শিরোপা খরা কাটালো বার্সেলোনা। কোপা দেল রে জয়ের মধ্যে দিয়ে প্রায় দুই বছর পর মেজর কোনো শিরোপা জয়ের স্বাদ পেল কাতালান ক্লাবটি। ২০১৮-১৯ লিগ জয়ের পর থেকে খাঁখাঁ করছিল বার্সার সাফল্যের ঝুলি। শনিবার রাতে অ্যাথলেটিক বিলবাওকে আসরের ফাইনালে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে শিরোপা তৃষ্ণা মেটায় বার্সেলোনা, শো-কেসে তোলে নিজেদের ৩১তম ট্রফি।

অথচ মৌসুমের শুরুতে বার্সা যে মৌসুমে কোনো শিরোপা জিততে পারবে তা কেউ কল্পনাও করেনি। গেল মৌসুমের চ্যাম্পিয়নস লিগে বায়ার্ন মিউনিখ ট্র্যাজেডির পর ভাঙাচোরা বার্সেলোনার দায়িত্ব নেন ক্লাব কিংবদন্তি রোনালদো কুম্যান। দুর্নীতিবাজ সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তেম্যুর জায়গায় নির্বাচন করে দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্ব বুঝে নেন ক্লাবের সফলতম সভাপতি হোয়ান লাপোর্তা।

মৌসুমের শুরুতে ত্যক্তবিরক্ত লিওনেল মেসিও আস্তে আস্তে তার নিবেদনের মাত্রা আগের মতো করে তোলেন। সঙ্গে ক্লাবের একঝাঁক তরুণ, উদীয়মান এবং অভিজ্ঞদের কঠোর পরিশ্রম তো ছিলই। যেন নতুন যুগে পা রেখেছে ক্লাবটি। আর সেই নতুন যুগের প্রথম শিরোপাই এলো কোপা দেল রে জয়ের মধ্যে দিয়ে।

শনিবার রাতে দুর্দান্তই খেলেছে বার্সেলোনা। অ্যাথলেটিক বিলবাওকে নিয়ে রীতিমতো ছেলেখেলা করেন মেসি-গ্রিজমানরা। কয়দিন আগেই কোপা দেল রের আরেকটি ফাইনালে হেরেছিল বিলবাও। রিয়াল সোসিয়েদাদের কাছে হেরে ২০১৯/২০ মৌসুমের শিরোপা হারায় দলটি। এই প্রতিযোগিতার ফাইনালে ওঠার আগে কোয়ার্টারে বার্সেলোনাকে বিদায় করেছিল বিলবাও। সুপার কোপাতেও তো গত জানুয়ারিতে বার্সেলোনাকে হতাশায় ডুবিয়েছিল স্পেনের বাস্ক অঙ্গরাজ্যের ক্লাবটি। ঐ দুই হারের জবাবই শনিবার যেন কড়ায়-গণ্ডায় বুঝিয়ে দিলেন মেসিরা। তুলে নিলেন মধুর বদলা।

সেভিয়ার মাঠ কারতুজায় প্রথমার্ধে কোনো গোল না পেলেও, দ্বিতীয়ার্ধের মাত্র ১২ মিনিটের ব্যবধানে বিলবাওয়ের জালে হালি পূরণ করে বার্সেলোনা। ৩১তম কোপা জেতার পথে বিলবাওয়ের জমাট রক্ষণ প্রথম ভাঙেন আঁতোয়ান গ্রিজমান। ৬০ মিনিটে ডান প্রান্ত থেকে ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ংয়ের মাটি ঘেঁষা ক্রস থেকে গোল করেন এই ফরাসি স্ট্রাইকার। ১০ মিনিট আগে একইভাবে রাইট-ব্যাক সের্হিনিও দেস্তের একটি বানানো বল নষ্ট করেছিলেন গ্রিজমান। সেই ভুলের পাপমুক্তিই যেন এই গোলে সারেন তিনি।

বার্সার দ্বিতীয় গোলটা করেন ডাচ মিডফিল্ডার ডি ইয়ং নিজেই। এবার বাঁ প্রান্ত থেকে জরদি আলবার উড়ন্ত ক্রস মাথা ছুঁইয়ে ব্যবধান বাড়ান তিনি। বার্সার বাকি দুই গোলের দুটিই ক্লাব অধিনায়ক লিওনেল মেসির। বছর ছয়েক আগে এই প্রতিযোগিতার ফাইনালে বিলবাওয়ের বিপক্ষেই বাঁ প্রান্ত থেকে একক প্রচেষ্টায় অবিস্মরণীয় এক গোল করেছিলেন মেসি। এদিন ৬৮ মিনিটে সেই গোলকে স্মৃতির পাতায় তরতাজা করে তুললেন এই আর্জেন্টাইন নিজেই। নিজেদের অর্ধ থেকে বল কুড়িয়ে দারুণ ড্রিবলিংয়ের পর ডি ইয়ংয়ের সঙ্গে ওয়ান-টু-ওয়ানে চোখধাঁধান গোলটি করেন মেসি। পরে ৭২ মিনিটে আলবার সঙ্গে দারুণ বোঝাপড়ায় বাঁ পায়ের শটে ফাইনালে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন তিনি।

বার্সেলোনার খেলোয়াড় হিসেবে রেকর্ড ৩৫তম শিরোপা জয়ের দিন অধিনায়ক মেসি জিতেছেন তার প্রথম কোপা দেল রে কাপ। সেটাও কী দারুণ ভঙ্গিতে। তার দুটি গোলই ছিল নজরকাড়া। এই দুই গোলে এবারের মৌসুমে ৩০ গোলের মাইলফলকও পেরিয়েছেন মেসি। এ নিয়ে টানা ১৩ মৌসুম বার্সার জার্সি গায়ে এই কীর্তি গড়ে দেখালেন তিনি। একটি নির্দিষ্ট ক্লাবের হয়ে ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লিগে যেই রেকর্ড নেই আর কারো। মেসির ইতিহাসের দিন চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদকে ছুঁয়েছে বার্সা। রিয়ালের সমান এখন ৯২টি শিরোপা শোভা পাচ্ছে কাতালান ক্লাবটির শো-কেসে।

ইত্তেফাক/এমআর

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x