আজ ৩৪-এ পা দিচ্ছেন মেসি

আজ ৩৪-এ পা দিচ্ছেন মেসি
লিওনেল মেসি। ছবি: সংগৃহীত

ফুটবল দুনিয়া এই এক জনের দিকে উত্সুক চোখ রাখছে। লিওনেল মেসি। ফুটবল জাদুকর। ৩০ জুন বার্সার সঙ্গে মেসির চুক্তির মেয়াদ শেষ হচ্ছে। বার্সেলোনার জার্সি রাখবেন নাকি খুলে ফেলবেন, না অন্য কোনো ডেরায় যাবেন। তা নিয়ে ফুটবল দুনিয়ার আগ্রহের মাত্রা আকাশচুম্বী। একাধিক ক্লাব অর্থ ভান্ডার খুলে বসে আছে। মেসি আমার ঘরে এসো। কিন্তু মেসি কোনো প্রস্তাবে রাজি হচ্ছেন না। কোথায় যাবেন তা নিয়ে ফুটবল দুনিয়া জল্পনা-কল্পনার ডালপালা ছড়িয়েই যাচ্ছে। আর মাত্র সাত দিন, তার পরই মেসি হবে ফ্রি প্লেয়ার।

যেখানে খুশি যোগ দিতে পারবেন। তাকে নেওয়ার জন্য বার্সেলোনা প্রস্তুাব দিয়ে রেখেছে। বড় অঙ্কের অর্থ দিতেও রাজি ছয় বারের ব্যালন ডি অর জেতা মেসিকে। বার্সেলোনার সভাপতি হুয়ান লোপার্ত এই ক্লাবের দায়িত্ব গ্রহণ করার সময় বলেছিলেন তিনি মেসিকে রাখার সবকিছুই করবেন। এটা তার একটা নির্বাচনি এজেন্ডা ছিল। মেসিকে রাখার জন্য অনেক কিছুতেই ছাড় দিচ্ছেন সভাপতি। বার্সার সভাপতিও তাই এখানো আশা ছাড়েননি তিনিও মনে করছেন চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই মেসি চুক্তিবদ্ধ হবেন। লোপার্তের বিশ্বাসের জায়গাটা তৈরি হওয়ার কারণ হচ্ছে, মেসি এখনো অন্য কোনো দলের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হননি।এখনো বার্সার সঙ্গেই আছেন। বেতন নিয়েও আলোচনা হয়েছে। লোপার্তো মনে করছেন মেসি শুধুই এক জন তারকা নন।

একই সঙ্গে বলা যায়, মেসি থাকা মানে হচ্ছে ক্লাবের অর্থ আয় বেড়ে যাওয়া। বার্সার সভাপতি মেসিকে যে প্রস্তাব দিয়ে রেখেছেন তা হলো দুই বছরের চুক্তি হবে। প্রতি মৌসুমে বার্সার কাছ থেকে বেতনভাতা বাবদ ১৩ কোটি ৮০ লাখ ইউরো পান মেসি। তবে স্প্যানিশ দৈনিক মার্কা বলছে বার্সা-মেসির নতুন চুক্তিতে প্রতি মৌসুমে মেসির বেতন কমে হবে প্রায় পাঁচশ কোটি টাকা। অর্ধেকেরও বেশি বেতন কমে গেলেও, মেসিকে একটি লোভনীয় প্রস্তাব দিয়েছে কাতালান ক্লাবটি। বার্সা ছাড়ার পরের ১০ বছর ক্লাবের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে কাজ করবেন মেসি। সে জন্য ১০০ কোটি টাকা পাবেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

ব্রাজিলে কোপা আমেরিকায় খেলছে আর্জেন্টিনা। আজ মেসির জন্মদিন। চৌত্রিশে পা দিতে যাচ্ছেন মেসি। একদিকে কোপা জয়ের অভিযান, অন্যদিকে বার্সার সঙ্গে চুক্তি নিয়ে অস্থিরতা। এই দুই ইস্যু মেসির সামনে।মেসির কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এখন আর্জেন্টিনাকে ট্রফি এনে দেওয়া।

ফুটবল দুনিয়া মাথা নিয়ে ঘুরে বেড়ালেও মেসি তার দেশ আর্জেন্টিনাকে বড় কোনো ট্রফি এনে দিতে পারেননি। সেই আক্ষেপ আছে মেসির। তার ওপর ম্যারাডোনার মৃত্যু মেসিকে ভীষণ কষ্ট দিয়েছে। মেসির ফুটবল ক্যারিয়ারে ম্যারাডোনা ছিলেন প্রেরণা। মেসি যখন প্রথম বার জাতীয় দলের জার্সি গায়ে মাঠে নেমেছিলেন সেই মাঠে উপস্থিত ছিলেন ম্যারাডোনা।

ফুটবলঈশ্বর ম্যারাডোনা সব সময় মেসির পাশে ছিলেন। ১৯৮৬ বিশ্বকাপ জয়ী ম্যারাডোনা সব সময় বিশ্বাস করতেন মেসি আরেকটি ট্রফি এনে দেবে। কিন্তু সেটা আজও হয়নি। ২০১৪ ব্রাজিল বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনালে মারাকানায় জার্মানির কাছে হেরে গিয়েছিল আর্জেন্টিনা। এর পর ২০১৫ এবং ২০১৬ সালে দুই বার কোপা আমেরিকার ফাইনালে উঠেও চিলির কাছে হেরে গিয়েছিল মেসির আর্জেন্টিনা। ফিফার দুই টুর্নামেন্টে টানা তিন বার ফাইনাল খেলেও জিততে না পারা মেসি হতাশায় পড়েছিলেন। ২০১৬ সালে মেসি ফুটবল ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণাও দিয়েছিলেন। কিন্তু সবার চাপে আবার ফুটবলে ফেরেন। ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপে ট্রফি জয়ের অভিযানে নেমেও শেষ ষোলোয় ফ্রান্সের কাছে ৪-৩ গোলে হেরে বিদায় নেয় ব্যর্থ মেসির আর্জেন্টিনা।

ফুটবল জাদুকর ম্যারাডোনার পর আর্জেন্টাইনরা মেসিকে নিয়ে ফুটবলের নতুন স্বপ্ন বুনেছিল। আবার উপহার দেবেন বিশ্বকাপ, আবার উপহার দেবেন কোপা আমেরিকা। ১৪ বার কোপার ট্রফি জয় করা আর্জেন্টিনা ট্রফি পায়নি মেসির নেতৃত্বে। ১৯৯৩ সালে শেষ বার ট্রফি জিতেছিল। ২৮ বছর অপেক্ষা করছে। ম্যারাডোনার মৃত্যুর পর প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমে মেসিরা তার ফুটবল বসের ছবি বুকে রেখেছিলেন। তাকে শান্তি দিতে এমনিট করেছিলেন, যে ম্যাচ উত্স্বর্গ করবেন। আর যদি ট্রফি জেতেন তাহলে তো কথাই নেই। মেসির যে বয়স তাতে তিনি কী পারবেন ম্যারাডোনার চাওয়া আরেকটি বিশ্বকাপ এনে দিতে। ৩৫ বছর বয়সে কাতার ২০২২ বিশ্বকাপ খেলবেন মেসি। আর ২০২৬ বিশ্বকাপে মেসির বয়স হবে ৩৯। ঐ বয়সে মেসি লম্বা রেসের দৌড়ে কুলিয়ে উঠতে পারবেন, নাকি কাতারেই শেষ হবে মেসির বিশ্বকাপ। মেসি নতুন জন্মদিনে কী শপথ নিচ্ছে আজ।

ইত্তেফাক/বিএএফ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x