ঢাকা সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯, ৩ আষাঢ় ১৪২৬
৩২ °সে


ব্যাটিং গভীরতায় সন্তুষ্ট রোডস

ব্যাটিং গভীরতায় সন্তুষ্ট রোডস
স্টিভ রোডস। ছবি-সংগৃহীত

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কোচ ক্যারিয়ার শুরুর এক বছরের মধ্যেই বড় সাফল্য পেলেন স্টিভ রোডস। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ জয়ের মধ্য দিয়ে প্রথম বহুজাতিক টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতেছে বাংলাদেশ। টাইগারদের ইতিহাস গড়া ট্রফিটা কোচ রোডসের ক্যারিয়ারেও বড় মাইলফলক। ডাবলিনে ত্রিদেশীয় সিরিজে বাংলাদেশের ব্যাটিং পারফরম্যান্সে খুশি রোডস। ইংলিশ এই কোচকে আরো বেশি সন্তুষ্টি দিচ্ছে দলের ব্যাটিং গভীরতা।

সাকিব আল হাসানকে ছাড়াই ফাইনালে জিতেছে বাংলাদেশ। শুরুতে সৌম্য সরকার ও শেষ দিকে মোসাদ্দেক ছিলেন জয়ের রূপকার। দুই তরুণের হাফ সেঞ্চুরিতে জিতেছিল বাংলাদেশ। ফাইনালে সাতে নেমে মোসাদ্দেকের ২৪ বলে অপরাজিত ৫২ রানের ম্যাচ জয়ী ইনিংসটাই রোডসের মনে ধরেছে। ব্যাটিং অর্ডারে নিচের দিকে এমন ইনিংসই বাড়িয়ে দিচ্ছে ব্যাটিং গভীরতা। দলের শক্তিমত্তাও বাড়ছে। দলের পাঁচ সিনিয়রের ওপর নির্ভরতাও কমাচ্ছে।

ডাবলিন ছাড়ার আগে বাংলাদেশের কোচ দলের ব্যাটিং গভীরতা নিয়ে বলেছেন, ‘এই দলটা নিয়েই বাংলাদেশ শক্তিশালী, যেটা আমরা চেয়েছি। আমরা আরো গভীরতা (ব্যাটিং) চাই। আমাদের যদি ব্যাটিংয়ে এমন গভীরতা থাকে তাহলে মানুষ বড় পাঁচজনের বিষয়ে কথা বলা বন্ধ করবে। তার মানে আমরা শক্তিশালী থাকবো যদি ওদের কাউকে মিস করি। ফাইনালে সাকিব খেলেনি। কিন্তু সে দারুণ একটি টুর্নামেন্ট পার করেছে। ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিংয়ে ভালো করেছে। তাই তাকে (সাকিব) ছাড়াই জয়টা দারুণ দলীয় প্রচেষ্টা।’

আরও পড়ুন : খাগড়াছড়িতে যুবককে গলা কেটে হত্যা

ত্রিদেশীয় সিরিজে চার ম্যাচ খেলে সবকটি জিতেছে বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে তিনবার, আয়ারল্যান্ডকে একবার হারিয়ে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। সামগ্রিকভাবে এই সিরিজে অনেক ইতিবাচক দিক দেখছেন রোডস। ব্যাটসম্যানদের ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকার সুফল পেয়েছে বাংলাদেশ। আর ব্যাট হাতে সবাইকে সুস্থির ও দায়িত্ব পালনে সচেষ্ট রাখতে ব্যাটিং অর্ডারে খুব বেশি পরিবর্তনে রাজি নন টাইগার কোচ।

তিনি বলেছেন, ‘আমার মনে হয় আমরা খুব ভালো করেছি, ব্যাটিং ছিল খুব ভালো। তারা খুব ধারাবাহিক ছিল; আপনি যদি ব্যাটিং অর্ডার দেখেন। ওই দিন সাকিবও ছিল না। তাই আমরা চিন্তা করেছিলাম একটা পজিশনে পরিবর্তন আনতে, সব পজিশনে নয়। আমরা ধারাবাহিকতা চাই, আর সবাই জানে তার ব্যাটিং পজিশন যেমনটা মুশফিক চারে, মিঠুন পাঁচে, রিয়াদ ছয়ে। এটাই ধারাবাহিকতা এনে দিচ্ছে এবং তারা এই ভূমিকায় সফল হচ্ছে। কারণ তাদের এই দায়িত্বটা দেওয়া হচ্ছে। তারাও বুঝতে পারছে তাদের কি করতে হবে।’

আয়ারল্যান্ডে টানা তিন ম্যাচেই হাফ সেঞ্চুরি করেছেন সৌম্য। ফাইনালে ৪১ বলে খেলেছেন ৬৬ রানের ইনিংস। ২১০ রান তাড়া করার মূল জ্বালানি এসেছিল এই ওপেনারের ব্যাট থেকেই। একপ্রান্তে ঝড় তুলেছিলেন তিনি।

ব্যাটিংয়ে সৌম্যর ধারাবাহিকতার প্রশংসায় রোডস বলেছেন, ‘প্রিমিয়ার লিগে সেঞ্চুরি ও ডাবল সেঞ্চুরির পর থেকে সৌম্য এক কথায় দুর্দান্ত। কিন্তু মানুষের কাছ থেকে কিছু সমালোচনাও শুনতে হয় যখন সে ফর্মে থাকে না। তাই ফর্ম ধরে রাখতে দেখে ভালো লাগছে। আমি আশা করি মানুষ তাকে সমর্থন করবে কারণ সে অসাধারণ একজন খেলোয়াড়। আমরা তাকে সমর্থন করি। কিন্তু সবাই এটা সব সময় করে না।’

ইত্তেফাক/কেআই

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৭ জুন, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন