ঢাকা সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৮ আশ্বিন ১৪২৬
২৭ °সে


১০ নেতার কণ্ঠে বিশ্বকাপ

১০ নেতার কণ্ঠে বিশ্বকাপ
ছবি : সংগৃহীত

মাশরাফি বিন মুর্তজা

বাংলাদেশ

আমাদের দলের সমন্বয় এখন দারুণ। সম্ভবত যে কোনো সময়ের চেয়ে ভালো। আমাদের কিছু তরুণ খেলোয়াড় এখন এসে দারুণ পারফরম করছে। আমরা এদের নিয়ে রোমাঞ্চিত।

আমরা বিশ্বাস করি, ক্রিকেটে যে কোনো কিছুই সম্ভব। নির্দিষ্ট দিনে ভালো খেললে আমরা যে কোনো দলকে হারাতে পারি। বিশ্বকাপে ভালো কিছু করার শর্ত হলো— ভালো শুরু করা। আমরা সেই ভালো শুরুর দিকে তাকিয়ে আছি। আশা করি ২ জুন প্রথম ম্যাচে আমরা ভালো একটা ফল পাবো।

অ্যারন ফিঞ্চ

অস্ট্রেলিয়া

আমার মনে হয়, ইংল্যান্ড গত কয়েক বছর ধরে দারুণ ফর্মে আছে। সেই সঙ্গে ভারত খুব ভালো অবস্থায় আছে। তাদের দলে কিছু অসাধারণ পারফরমার আছে। ফলে আপনাকে এটা মানতেই হবে যে, ইংল্যান্ড এবার বিশ্বকাপের অন্যতম ফেভারিট দল।

আমার মনে হয়, এটা গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার যে, আমাদের দলের কিছু খেলোয়াড়ের বিশ্বকাপের অভিজ্ঞতা আছে। আমার মনে হয়, দলের ছয়জন খেলোয়াড় গতবার বিশ্বকাপজয়ী দলেও ছিল। আশা করি এটা আমাদের সামনে এগিয়ে যেতে সহায়তা করবে। কিন্তু এটা ভিন্ন একটা টুর্নামেন্ট। আর একবার আপনি মাঠে নেমে খেলা শুরু করলে চাপও তৈরি হতে থাকবে। ফলে আমার মনে হয়, দারুণ একটা টুর্নামেন্ট হতে যাচ্ছে।

এউইন মরগ্যান

ইংল্যান্ড

আমার মনে হয় না যে, এখানে কোনো দল আছে, যার মাথা ও কাঁধ বাকিদের চেয়ে উঁচু। সবাই সমান অবস্থায় আছে। একটা দশ দলের বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে। এই দশটা দল বিশ্বের সেরা দশ দল। ফলে এটা অসামান্য একটা প্রতি"্বন্"্বিতামূলক টুর্নামেন্ট হতে যাচ্ছে। আর আমার মনে হয়, এখানে কিছু দারুণ মানের ক্রিকেট খেলা হবে। আমরা সেই খেলার জন্য মুখিয়ে আছি।

অবশ্যই ঘরের মাটিতে খেলাটা একটা বড় ব্যাপার হবে। অবশ্যই 'হোম অ্যাডভান্টেজ' কথাটা বলার একটা কারণ আছে। আমরা নিজেদের মাটিতে লম্বা সময় কাটাবো, পরিবারের সঙ্গে দেখা হবে, বছরের পর বছর যেভাবে প্রস্তুতি নিয়েছি, তাই নেবো। তবে ইংল্যান্ড সবার জন্যই বেড়ানো ও ক্রিকেট খেলার দারুণ একটা জায়গা।

বিরাট কোহলি

ভারত

আমাদের দুটো প্রস্তুতি ম্যাচই টিভিতে দেখানো হচ্ছে। ফলে চাপ তো শুরু হয়ে গেছে। আমরা যেখানেই খেলি, সেখানেই চাপ আছে।

আমি ব্যাপারটা এভাবে দেখি যে, আমরা পৃথিবীর যেখানেই ক্রিকেট খেলি না কেন আমাদের জন্য দারুণ একটা সমর্থক গোষ্ঠী অপেক্ষা করে। তবে আমি অ্যারনের (ফিঞ্চ) সঙ্গে একমত যে, তাদের নিজেদের কন্ডিশনে ইংল্যান্ডই এবার টুর্নামেন্টে সবচেয়ে শক্তিশালী দল। তবে আমি মরগসের (মরগ্যান) সঙ্গেও একমত হবো যে, এই টুর্নামেন্টের দশটি দলই খুব ভারসাম্যপূর্ণ এবং শক্তিশালী। ঘটনা হলো—এবার আমরা এমন একটা টুর্নামেন্ট খেলতে যাচ্ছি, যেখানে আমরা প্রত্যেকে প্রত্যেকের সঙ্গে একবার করে খেলবো। এটাই এই আসরের সেরা ব্যাপার। আমার মনে হয়, এটাই মানুষের দেখা ইতিহাসের সবচেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে।

সরফরাজ আহমেদ

পাকিস্তান

মরগ্যান আর কোহলি যেমনটা বলেছে, দশটা দলই খুব ভারসাম্যপূর্ণ এবং এরা সবাই খুব ভালো দল। ফলে আমি প্রতিটা দলকে আমার শুভকামনা জানাচ্ছি। আমার ধারণা, লোকেরা এবার বিশ্বকাপে অসাধারণ কিছু ক্রিকেট দেখবে।

অবশ্যই আপনি যদি ইংল্যান্ডে পাকিস্তানের ফলাফল দেখেন, তাহলে মানতে হবে আমরা ইংল্যান্ডে সবসময় ভালো করি। আমি ১৯৯২ টেস্ট সিরিজ, ১৯৯৯ বিশ্বকাপ বা ২০১৭ চ্যাম্পিয়নস ট্রফির কথা উল্লেখ করতে চাই। ফলে আমরা বেশ আত্মবিশ্বাসী। ইনশাআল্লাহ, আমরা এখানে ভালো করবো।

দিমুথ করুনারত্নে

শ্রীলঙ্কা

আমরা এখানে ভালো ক্রিকেট খেলেছি। সেইসঙ্গে আমাদের ইংল্যান্ডে ক্রিকেট খেলার ভালো অভিজ্ঞতা আছে। ফলে আমরা ভালো করার চেষ্টা করবো। আমরা আমাদের সেরাটাই করার চেষ্টা করবো। আমরা এখানে আত্মবিশ্বাস পাওয়ার জন্য আগে আগে চলে এসেছি। আমাদের দলের সবাই ভালো অবস্থায় আছে। আশা করি, আমরা নিজেদের সেরাটা খেলতে পারবো।

কেন উইলিয়ামসন

নিউজিল্যান্ড

আমাদের কিছু খেলোয়াড় আছে, যারা গত বিশ্বকাপেও ছিল। এটা দারুণ একটা ব্যাপার। এর ফলে আমাদের দলে দারুণ কিছু অভিজ্ঞতা যোগ হয়েছে। কিন্তু স্বাভাবিক ভাবেই চার বছর পর এই টুর্নামেন্টে দলে কিছু নতুন খেলোয়াড়ও যোগ হয়েছে। আমার মনে হয়, র্যাংকিং, ফেভারিট, আন্ডারডগ; এসব নিয়ে অনেক কথা হচ্ছে। কিন্তু আমার মনে হয়, শেষ পর্যন্ত ব্যাপার হলো—একটা দল কতটা ভারসাম্যপূর্ণ। বিশেষ করে নির্দিষ্ট একটা দিনে একটা দল যে কোনো কিছু করতে পারে। আর এ জন্যই আমাদের সামনে অসাধারণ একটা টুর্নামেন্ট অপেক্ষা করছে।

ফাফ ডু প্লেসিস

দক্ষিণ আফ্রিকা

আপনি যদি সাম্প্রতিক কালের আশেপাশের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের দিকে তাকান, আপনি দেখতে পাবেন, দেশে ও দেশের বাইরে দলগুলো খুবই প্রতি"্বন্"্বিতামূলক ক্রিকেট খেলছে। এটা এমন নয় যে, শুধু হোম টিমগুলোই প্রতাপ দেখাচ্ছে। ফলে অন্যান্য অধিনায়করাও যেমন বললেন, আমি মনে করি, আমরা সবাই নতুন এই টুর্নামেন্টটা শুরু করতে রোমাঞ্চিত হয়ে আছি। কারণ, এখানে সবাই সবার সঙ্গে খেলবে। এটা অসাধারণ একটা টুর্নামেন্ট হতে যাচ্ছে।

জেসন হোল্ডার

ওয়েস্ট ইন্ডিজ

এই টুর্নামেন্টে প্রতিটা দলের সঙ্গে খেলতে পারাটা আমাদের জন্য অসাধারণ একটা ব্যাপার হতে যাচ্ছে। আমরা বাছাইপর্বে অসাধারণ পরিশ্রম করে এখানে এসেছি। এর অর্থ হলো—এই বিশ্বের সেরা দশটি দল আজ এখানে। আমরা তাদের সবার সঙ্গে খেলতে চাই। আর নিজেদের একটা সুযোগ দিতে চাই। এই টুর্নামেন্ট কেবল যোগ্য দলই জিততে পারবে।

গুলবাদিন নাইব

আফগানিস্তান

আফগানিস্তানে এখন শান্তি বিরাজ করছে। আর ক্রিকেট সেই শান্তিতে অসাধারণ এক ভ"মিকা পালন করছে। আমরা খুবই খুশি এবং আশাবাদী যে, সেটা আমাদের এখানে দারুণ কিছু পারফরম করায় সহায়তা করবে। আমরা এত মানুষের সামনে খেলার সম্ভাবনায় সবাই রোমাঞ্চিত। এরাই বিশ্বের সেরা দশটি দল। আর আমরা এই মঞ্চে আফগানিস্তানের প্রতিনিধিত্ব করতে পেরে গর্বিত।

ইত্তেফাক/এএম

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন