ঢাকা সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ৫ কার্তিক ১৪২৬
২৬ °সে


ইংল্যান্ড অসাধারণ দৃঢ়তা দেখিয়েছে: রুট

ইংল্যান্ড অসাধারণ দৃঢ়তা দেখিয়েছে: রুট
ছবি: সংগৃহীত

দুবার পিছিয়ে পড়েও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দুর্দান্তভাবে অ্যাশেজ সিরিজ ২-২ সমতায় শেষ করেছে ইংল্যান্ড। সিরিজ জিততে না পারলেও দলের এমন পারফরমেন্সে দারুণ খুশি ইংলিশ অধিনায়ক জো রুট। তার মতে, ‘সিরিজে অসাধারণ দৃঢ়তা দেখিয়েছে তার দল।’

জয় দিয়ে অ্যাশেজ শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। বার্মিংহামে প্রথম টেস্টে ২৫১ রানে জয় পায় অসিরা। বৃষ্টির কারণে লর্ডসে দ্বিতীয় টেস্টটি ড্র হয়। তবে লিডসে তৃতীয় টেস্টে দারুণ এক জয়ের স্বাদ পায় ইংল্যান্ড। বেন স্টোকসের বীরোচিত এক ইনিংসে মাত্র ১ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় স্বাগতিকরা। ফলে সিরিজে ১-১ সমতা আনে ইংল্যান্ড। অপরাজিত ১৩৫ রানের ইনিংস খেলে ইংলিশদের দারুণ এক জয়ের স্বাদ দেন স্টোকস।

চতুর্থ টেস্টে আবারো জয় তুলে নেয় অস্ট্রেলিয়া। ম্যানচেস্টারে ১৮৫ রানের বড় ব্যবধানে জয় পায় অসিরা। ফলে আবারো সিরিজে লিড নেয় তারা। ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। ফলে অ্যাশেজ ট্রফি নিজেদের কাছে রাখা নিশ্চিত করে অসিরা। কারণ নিজেদের মাটিতে গেল অ্যাশেজে জিতেছিলো অস্ট্রেলিয়া। তবে একটি বন্ধ্যাত্ব ঘোচানোর সুযোগ তৈরি হয়েছিলো অস্ট্রেলিয়ার সামনে। আর সেটি হলো, ২০০১ সালের পর ইংল্যান্ডের মাটিতে অ্যাশেজ জয়ের স্বাদ নেয়া। এতে ওভালে সিরিজের পঞ্চম ও শেষ টেস্টে জিততেই হবে অস্ট্রেলিয়াকে। কিন্তু ১৩৫ রানে ওভাল টেস্ট জিতে অ্যাশেজ সমতায় শেষ করতে পারে ইংল্যান্ড।

অ্যাশেজ বলেই এমন হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে বলে মনে করেন রুট। তিনি বলেন, ‘এটি অ্যাশেজ ক্রিকেট। প্রতিটি খেলাই উত্তেজনাপূর্ণ ছিলো এবং আপনি দেশের হয়ে খেলেছেন। এর মানে সবার কাছে সিরিজটি গুরুত্বপূর্ণ ছিলো।’

পঞ্চম ও শেষ টেস্টের চতুর্থ দিন শেষেই ম্যাচ জয়ের মঞ্চ তৈরি করে ফেলে ইংল্যান্ড। দ্বিতীয় ইনিংসে ওপেনার জো ডেনলির ৯৪ রান ইংল্যান্ডকে বড় লিড এনে দেয়। অস্ট্রেলিয়াকে জয়ের জন্য ৩৯৯ রানের বড় টার্গেট ছুড়ে দেয় ইংল্যান্ড। সেই লক্ষ্যে ম্যাথু ওয়েডের ১১৭ রানের পরও ২৬৩ রানে অলআউট হয় অস্ট্রেলিয়া। ফলে ম্যাচ জিতে সিরিজ সমতায় শেষ করে ইংল্যান্ড। বল হাতে ৪টি করে উইকেট নিয়ে ইংল্যান্ডের জয়ে প্রধান ভূমিকা রাখেন স্টুয়ার্ট ব্রড ও জ্যাক লিচ।

তাই দলের খেলোয়াড়দের প্রশংসা করেছেন রুট। তিনি বলেন, ‘আমরা খুবই মেধাবি। খুবই কঠিন সপ্তাহের মধ্য থেকে আমরা ঘুড়ে দাঁড়িয়েছি এবং আমাদের মতো করে খেলেছি। দলের মধ্যে বেশ কিছু ভালো চরিত্র ছিলো।’

প্রথমবারের মতো ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতেই অ্যাশেজ খেলতে নামে ইংল্যান্ড। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার দুর্দান্ত পারফরমেন্সের সামনে দু’বার সিরিজ পিছিয়ে চাপে ছিলো তারা। তারপরও শেষমেষ সিরিজটি ড্র করতে পারে স্বাগতিকরা। তাই ইংল্যান্ডের সমালোচনায় মুখর ছিলো ক্রিকেট ভক্তরা। অবশ্য রুট নিজেও স্বীকার করছেন, কিছু ক্ষেত্রে তার দল সেরাটা দিতে পারেনি। তিনি বলেন, ‘কিভাবে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়া যায়, এটি সেটিরই একটি পরীক্ষা ছিলো। এটি সঠিক পথের একটি পদক্ষেপ। গ্রীষ্মের মৌসুমে সবার চেষ্টায় আমি গর্বিত।’

ইত্তেফাক/এএম

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২১ অক্টোবর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন