নামিবিয়ায় ব্যতিক্রম দুই জিরাফ

নামিবিয়ায় ব্যতিক্রম দুই জিরাফ
নামিবিয়ায় সন্ধান ব্যতিক্রমী জিরাফ। ছবি: রয়টার্স

নামিবিয়ায় ব্যতিক্রম দুই ধরনের জিরাফের সন্ধান মিলেছে। ঘটনাটি গবেষকদের অনেক বেশি অবাক করেছে। পৃথিবীতে জিরাফ সবচেয়ে লম্বা প্রাণী হিসেবে পরিচিত। তাদের লম্বা গলার সাহায্যে তারা গাছের সবচেয়ে উঁচু শেখরে পৌঁছাতে পারে, খেতে পারে অনেক লম্বা গাছের ওপরের পাতা। কিন্তু এবার উগান্ডার নামিবিয়ায় মিলেছে সম্পূর্ণ ভিন্ন রকমের দুই জিরাফ। খোঁজ পাওয়া জিরাফ দুটোর উচ্চতা অনেক কম। গবেষকদের কাছে এ ঘটনাটি অনেকটাই আকস্মিক।

জিরাফ কন্সারভেশন ফাউন্ডেশন এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান ফেনেসি গত শুক্রবার এক ভিডিও কনফারেন্সে রয়টার্সকে বলেন, “যা আমাদের গবেষকেরা পেয়েছে তা অনেক বড় চটকদার একটা খবর এবং আমরা অনেক বেশি অবাক হয়েছিলাম।”

সচরাচর সকল জিরাফরাই ১৫ থেকে ২০ ফুট পর্যন্ত লম্বা হয়ে থাকে, কিন্তু ২০১৮ সালে এ ফাউন্ডেশনের বিজ্ঞানীরা নামিবিয়াতেই খোঁজ পায় প্রায় সাড়ে ৮ ফুট লম্বা একটা জিরাফের। তার ঠিক ৩ বছর আগে উগান্ডার ওয়াইল্ডলাইফ পার্কে তারা খুঁজে পেয়েছিলেন প্রায় ৯ ফুট ৩ ইঞ্চি লম্বা একটি জিরাফের।

আরও পড়ুন: চুল পড়া রোধে মেথি

ফাউন্ডেশনটি তারা তাদের খোঁজের তথ্য প্রকাশ করেছিলো গত মাসের শেষের দিকে ব্রিটিশ মেডিক্যাল জার্নালে। সেখানে তারা জানায়, সন্ধান পাওয়া এই দুই জিরাফের গলা যথেষ্ট লম্বা থাকলেও ব্যতিক্রম ছিল তাদের পায়ের মাপে, বিজ্ঞানের ভাষায় এ সমস্যা কে ‘স্কেলেটাল ডিসপ্লাসিয়া’ বলে। এ রোগটি মানুষের এবং গৃহপালিত প্রাণীদের মাঝে খুব বেশি দেখা যায়। তবে বন্য প্রাণীদের মাঝে দুর্লভ।

ফেনেসি আরও জানান, এটা মোটেও খুশির সংবাদ হবেনা জিরাফ গোত্রের জন্য। তারা শারীরিক ভাবে বাধাগ্রস্ত হবে তাদের সাধারণ আকারের জিরাফের সাথে বংশ বিস্তারের প্রক্রিয়ায়। তিনি আরও আলোকপাত করেন, এ ঘটনার জন্য অতিরিক্ত জনসংখ্যা বৃদ্ধি, আবহাওয়া পরিবর্তন, আবাদি জমির বিস্তার সহকারে আরও নানা জিনিস দায়ী।

পৃথিবীতে পাওয়া যাওয়া সব থেকে লম্বা এই প্রাণীর প্রজাতি সংখ্যা ক্রমেই কমে আসছে। গত ৩০ বছরে যে সংখ্যা কমে এখন দাঁড়িয়েছে প্রায় ১ লাখ ১১ হাজারে। অর্থাৎ মাত্র ৪০ শতাংশে। কিন্তু ফাউন্ডেশনটির সম্মিলিত প্রয়াসে সে সংখ্যা ধীরে ধীরে পরিবর্তনের আলো দেখছে।

ইত্তেফাক/এনএসএন/এমএএম

Nogod
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত